logo
শনিবার, ০৮ আগস্ট ২০২০, ২৪ শ্রাবণ ১৪২৬

  ক্রীড়া ডেস্ক   ০৭ জুলাই ২০২০, ০০:০০  

কোহলির বিরুদ্ধে অভিযোগ খতিয়ে দেখছে বিসিসিআই

কোহলির বিরুদ্ধে অভিযোগ খতিয়ে দেখছে বিসিসিআই
ভারতীয় অধিনায়ক বিরাট কোহলি
ভারতীয় অধিনায়ক বিরাট কোহলির বিরুদ্ধে স্বার্থ সংঘাত হয়, একই সঙ্গে এমন দুটি পদে থাকার অভিযোগ উঠেছে। ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের এথিকস অফিসার ডি কে জৈন অভিযোগ পেয়ে তা খতিয়ে দেখছেন। কোহলির বিরুদ্ধে লিখিত এই অভিযোগ করেন মরুপ্রদেশ ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশনের আজীবন সদস্য সঞ্জীব গুপ্তা।

এ ব্যাপারে ডি কে জৈন বলেন, 'হঁ্যা, আমরা কোহলির বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র পেয়েছি। এই বিষয়ে আমরা খোঁজ নেওয়া শুরু করেছি। অভিযোগের সত্যতা খুঁজে পাওয়া গেলে কোহলির কাছে এই বিষয়ে জানতে চাওয়া হবে। অবশ্যই তাকে উত্তর জানানোর সুযোগ দেওয়া হবে।

সবার জন্য যে নিয়ম প্রযোজ্য, কোহলির জন্যও একই নিয়ম থাকবে।'

ভারতের লোধা কমিশনের সুপারিশ অনুযায়ী বিসিসিআইয়ের সঙ্গে চুক্তিভুক্ত কেউ অন্য কোনো লাভজনক সংস্থার সঙ্গে জড়িত থাকতে পারবেন না। কিন্তু ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের এই নিয়ম ভেঙেছেন বিরাট কোহলি। তাই কোহলির বিরুদ্ধে অভিযোগ করেছেন সঞ্জীব। এরই মধ্যে বিসিসিআইয়ের কাছে অভিযোগপত্রটি পৌঁছে গেছে। এই অভিযোগ প্রমাণিত হলে বড় ধরনের শাস্তির মুখোমুখি হতে পারেন কোহলি।

সঞ্জীব গুপ্তার অভিযোগ, জাতীয় দলের অধিনায়ক কোহলি কর্নারস্টোন ভেঞ্চার পার্টনারস এলএলপির পরিচালক পদে আছেন, যে সংস্থার আবার কর্নারস্টোন স্পোর্ট ও এন্টারটেইনমেন্ট নামে আরেকটি ভেঞ্চার রয়েছে। যে ভেঞ্চার থেকে আবার লোকেশ রাহুল, ঋষভ পন্থ, রবীন্দ্র জাদেজা, উমেশ যাদব ও কুলদীপ যাদবের ব্যবসায়িক দিক দেখাশোনা করা হয়।

লিখিত অভিযোগে সঞ্জীব দাবি করেন স্বার্থের সংঘাত হয় এমন দুটি পদে আছেন কোহলি। যা সর্বোচ্চ আদালত অনুমোদিত ভারতীয় বোর্ডের ধারার সুস্পষ্ট লঙ্ঘন। কোহলির বিরুদ্ধে অভিযোগপত্রে সঞ্জীব লিখেছেন, 'কোহলি স্বার্থের সংঘাত হয় এমন দুই পদে আছেন। সুপ্রিম কোর্ট দ্বারা অনুমোদিত বোর্ডের ৩৮(৪)

ধারাকে যা সরাসরি লঙ্ঘন করেছে। তাই যেকোনো একটি পদ তাকে

ছেড়ে দিতে হবে।'

তবে বিসিসিআইর এক কর্মকর্তা ভিন্ন কথা বলছেন। তিনি বলেন, 'ভারতীয় বোর্ডকে কেউ উদ্দেশ্যপ্রণোদিতভাবে ভিন্ন পথে নেওয়ার চেষ্টা করছে। তারা তাদের ব্যক্তিগত স্বার্থের জন্য এমনটা করছে। আমার মনে হয় এর পেছনে অন্য কোনো উদ্দেশ্য আছে। আমরা সবকিছু খতিয়ে দেখব।'

এর আগে কপিল দেব, রাহুল দ্রাবিড়, সৌরভ গাঙ্গুলি ও ভিভিএস লক্ষ্ণণের বিরুদ্ধে স্বার্থের সংঘাতের অভিযোগ এনেছিলেন এই সঞ্জীব গুপ্তা। তার অভিযোগের শুনানির পর একটি পদ ছেড়ে দিতে হয়েছিল ভারতীয় ক্রিকেটের নামিদামি এই ক্রিকেটারদের।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সকল ফিচার

রঙ বেরঙ
উনিশ বিশ
জেজেডি ফ্রেন্ডস ফোরাম
নন্দিনী
আইন ও বিচার
ক্যাম্পাস
হাট্টি মা টিম টিম
তারার মেলা
সাহিত্য
সুস্বাস্থ্য
কৃষি ও সম্ভাবনা
বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি
close

উপরে