logo
মঙ্গলবার, ২২ অক্টোবর ২০১৯, ৬ কার্তিক ১৪২৬

  ক্রীড়া প্রতিবেদক   ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ০০:০০  

অনিশ্চিত আমিনুল ইসলাম বিপস্নব

ফাইনালের আগে আফগান পরীক্ষা

ফাইনালের আগে আফগান পরীক্ষা
হাতের ইনজুরির কারণে শনিবার আফগানিস্তানের বিপক্ষে খেলবেন না তরুণ লেগ স্পিনার আমিনুল ইসলাম বিপস্নব। তারপরও শুক্রবার সকালে তাকে মাঠে দেখা যায় দলের সঙ্গে বোলিং অনুশীলন করতে। পাশে পেসার তাইজুল ইসলাম -বিসিবি
ইংল্যান্ড বিশ্বকাপে স্বপ্নিল শুরু টাইগারদের, এরপর হুট করেই পথ হারানো। বিচ্ছিন্ন পথটা এখনও সঠিক পথে আনতে পারেননি তারা। মাঝে শ্রীলংকা সঙ্গের হোয়াইটওয়াশ হওয়ার পর আফগানদের কাছে ঘরের মাঠে করুণ হার যেন ব্যর্থতার ষোলোকলা পূর্ণ করেছে। আর তাতে গেল গেল রব পড়ে গেছে ক্রিকেট পাড়ায়। মিরপুরে নানা সংকটে থাকা জিম্বাবুয়ের সঙ্গে যখন ধুঁকতে ধুঁকতে জয় পেতে হয়েছিল তখন চরম আশাবাদী লোকটিও হতাশায় ডুবেছেন।

বাংলাদেশের খেলোয়াড়রা হারে আত্মবিশ্বাসের অভাবেই। প্রতিটি হারের পর অধিনায়ক হতে দলের প্রায় সব খেলোয়াড় ওই একটি কথাই বলে যাচ্ছেন। আত্মবিশ্বাসের তলানিতে দল। তরুণ আমিনুল নিজের প্রথম ম্যাচেই যখন আত্মবিশ্বাসে টগবগ করে ফুটতে পারেন, সেখানেই দলের বাকি সবাই কেন নয়?

ভাগ্য ফেরাতে সাগরিকায় পা রাখে বাংলাদেশ দল। একসময় এ মাঠ পয়া হিসেবেই চিহ্নিত হতো। দুঃসময়েও অনেক বড় বড় জয় এসেছে সে মাঠেই। সঙ্গে একাদশে আনা হলো বড় বড় রদবদল। আনা হলো আনকোরা তরুণ আমিনুল ইসলাম বিপস্নবকে। যাকে কিনা দুদিন আগেও চিনতেন না জাতীয় দলের খেলোয়াড়রাও। আমিনুল এলেন, দেখলেন এবং জয়ও করলেন। ১৪ রানের খরচায় ২টি উইকেট। অবশ্য একজন লেগ স্পিনারের জন্য এরচেয়ে ভালো কিছু হতে পারে না। জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে দাপুটে জয়ই পেল টাইগাররা।

প্রশ্ন উঠতে পারে দুর্বল জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে জয় দিয়েই এত কিছু। কিন্তু ইতিহাস সাক্ষী, হারের বৃত্তে থাকা বাংলাদেশ দল বরাবরই জিম্বাবুয়েকে হারিয়েই ঘুরে দাঁড়িয়েছে। তাই এখান থেকেই হয়তো নতুন শুরু করতে পারে টাইগাররা।

ত্রিদেশীয় সিরিজের ফাইনালের আগে আফগানিস্তানের বিপক্ষে আরেকবার পরীক্ষা টাইগারদের। আজ শনিবার সন্ধ্যা সাড়ে ছয়টায় ম্যাচটি অনুষ্ঠিত হবে চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে।

দুই দলের ফাইনাল নিশ্চিত হয়েছে আগেই। গুরুত্বের বিচারে আজ শনিবার আফগানিস্তান ও বাংলাদেশ দলের ম্যাচটা কেবল আনুষ্ঠানিকতা। তাই এমন ম্যাচে ইনজুরিতে থাকা কোনো খেলোয়াড়কে খেলানোর ঝুঁকি নেবে না কেউই। তারপরও অনুশীলনে বোলিং করেছেন তরুণ লেগ স্পিনার আমিনুল ইসলাম বিপস্নব, অভিষেক ম্যাচে চোট পাওয়ায় যার বাঁ হাতে লেগেছিল তিনটি সেলাই।

আগের দিন পূর্ণ বিশ্রাম নিয়েছে বাংলাদেশ। শুক্রবার সকালেই তাই চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে অনুশীলনে আসে দলের ক্রিকেটাররা। মাঠের এক প্রান্তে বল হাতে দেখা যায় আমিনুলকেও। চলতি সিরিজের জন্য ডাক পাওয়া স্পিন বোলিং কোচ সোহেল ইসলামের অধীনে ফ্রি বোলিং করেছেন তিনি।

বোলিং দেখেই বোঝা যাচ্ছিল, আজকের ম্যাচে খেলার সম্ভাবনা তার খুবই কম। বাঁ হাত শরীরের সঙ্গে মিলিয়ে বল করছেন। তাতে শরীরের ভারসাম্যও ঠিকভাবে রাখতে পারছিলেন না। ফলোথ্রম্নতে বল ধরছেনও একদিকে কাঁত হয়ে, যাতে বাঁ হাতে বল লাগার কোনো ঝুঁকি না থাকে।

তবে কেন বোলিং করছেন আমিনুল? স্পিন কোচ সোহেল ইসলামকে জিজ্ঞাসা করতেই জানালেন, 'ব্যথা পেয়েছে বাঁ হাতে। ডান হাতে বোলিং করতে সমস্যা নেই। তাই নিজেকে ঝালিয়ে রাখার জন্যই অনুশীলন।'

তবে কি তার খেলার কোনো সম্ভাবনা রয়েছে? এমন সম্ভাবনাকে উড়িয়ে দিয়ে উল্টো প্রশ্ন করেন সোহেল, 'সেলাই কাটতেই তো সাতদিন লাগে। খেলবে কীভাবে? বোলিং না হয় ডান হাতে করল, কিন্তু ফিল্ডিং তো করতে হবে। আবার যদি তার দিকে বল আসে। আর তাকে নিয়ে ঝুঁকি নেয়ারও কোনো কারণ নেই।'

বাস্তব দৃষ্টিতে, আফগানিস্তানের বিপক্ষে জিততেই হবে এমন কোনো ব্যাপার নেই। ফাইনাল নিশ্চিত আগেই। তাই এমন ম্যাচে আমিনুলকে খেলানোর ঝুঁকি নেয়ার কোনো মানে নেই। কিন্তু বিশ্ব ক্রিকেটে খেলোয়াড়দের হাতে সেলাই নিয়ে মাঠে নেমে যাওয়ার উদাহরণ রয়েছে ভুরি ভুরি। তবে সেটা দেয়ালে পিঠ ঠেকার মতো অবস্থা হলেই।

অন্যদিকে এদিন শুরু থেকেই অনুশীলন করেছেন স্পিনার তাইজুল ইসলাম। নেটে বল করেছেন, করেছেন ফ্রি বোলিংও। তাতে আপাত দৃষ্টিতে এটা ধারণা করা গেছে যে, আমিনুলের পরিবর্তে আফগানদের বিপক্ষে এই বাঁহাতি স্পিনারকেই বাংলাদেশের একাদশে দেখা যেতে পারে।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
close

উপরে