logo
মঙ্গলবার, ১২ নভেম্বর ২০১৯, ২৮ কার্তিক ১৪২৬

  অনলাইন ডেস্ক    ১৮ অক্টোবর ২০১৯, ০০:০০  

বিপিএলে আগ্রহী ৩৮ বিদেশি কোচ

আমরা যে খেলোয়াড়দের সাধারণত বিপিএলে দেখে থাকি তারা প্রায় সকলেই তালিকাবদ্ধ হয়েছে। এটা ভালো খবর আমাদের জন্য। খেলোয়াড় আগের মতোই থাকছে। এছাড়া ৩৮জন বিদেশি কোচ আবেদন করেছে যারা বিপিএলে কোচ হিসেবে থাকতে চায়। ৯টা কোম্পানি টিম স্পন্সর হতে আগ্রহী

বিপিএলে আগ্রহী ৩৮ বিদেশি কোচ
ক্রীড়া প্রতিবেদক

বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগে (বিপিএল) কোচ হওয়ার আগ্রহ প্রকাশ করেছেন ৩৮ জন বিদেশি। ৩৯৩ জন বিদেশি খেলোয়াড়কে ড্রাফটের জন্য নিবন্ধন করেছে বিসিবি। ১২ নভেম্বর হতে পারে পেস্নয়ার্স ড্রাফট। ৬ ডিসেম্বর বঙ্গবন্ধু বিপিএল শুরু করতে চায় বিসিবি। অংশগ্রহণকারী সাতটি দলের পৃষ্ঠপোষক হতে এরই মধ্যে ৯টি কোম্পানি আবেদন করেছে। যাচাই-বাছাইয়ের পর চূড়ান্ত হবে টিম স্পন্সর।

বৃহস্পতিবার মিরপুরে সভা শেষে বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন সংবাদমাধ্যমকে জানিয়েছেন টুর্নামেন্টের অগ্রগতি নিয়ে, 'বিপিএলের আপডেট জানার জন্য আমরা বসেছিলাম। কোন অবস্থায় এসেছি আমরা। যেটা দেখলাম আজকে ৩৯৩ জন খেলোয়াড় রেজিস্ট্রেশন করেছে। আমরা যে সমস্ত খেলোয়াড়দের সাধারণত বিপিএলে দেখে থাকি তারা প্রায় সকলেই তালিকাবদ্ধ হয়েছে। এটা ভালো খবর আমাদের জন্য। খেলোয়াড় আগের মতোই থাকছে। এ ছাড়া ৩৮ জন বিদেশি কোচ আবেদন করেছে যারা বিপিএলে কোচ হিসেবে থাকতে চায়। ৯টা কোম্পানি টিম স্পন্সর হতে আগ্রহী।'

বিসিবি সভাপতি জানিয়েছেন, বেশ কিছু বিদেশি কোচদের আবেদন জমা পড়লেও দেশি কোচদের সুযোগ থাকবে বিপিএলে কাজ করার।

জাতীয় লিগে স্কোয়াডে থাকা দুই লেগ স্পিনারকে তাদের দল একাদশে না রাখায় ক্ষুব্ধ হয়েছে বিসিবি। শাস্তি হিসেবে দুই দলের দুই কোচকে বরখাস্ত করেছে বিসিবি।

লেগ স্পিনারদের খেলানো নিয়ে বেশ কয়েক দিন থেকেই আলোচনা চলছিল বিসিবিতে। দেশের ক্রিকেটে লেগ স্পিনারের মান বাড়াতে আসছে বিপিএলে প্রতি দলে একজন করে লেগ স্পিনার বাধ্যতামূলক করা হচ্ছে। এমনকি তাদের দিয়ে চার ওভারের বোলিং করানোও বাধ্যতামূলক করা হচ্ছে।

জাতীয় ক্রিকেট লিগেও চার-পাঁচজন লেগ স্পিনারকে বিভিন্ন দলে জুড়ে দেয়া হয়েছিল। ঢাকা বিভাগের হয়ে প্রথম রাউন্ড থেকেই দলে আছেন টেস্ট খেলার অভিজ্ঞতা থাকা জুবায়ের হোসেন লিখন। রংপুর বিভাগে আছেন রিশাদ হোসেন। জুবায়েরকে ঢাকা খেলায়নি প্রথম ম্যাচে। বৃহস্পতিবার শুরু হওয়া দ্বিতীয় রাউন্ডের ম্যাচেও এই স্পিনারকে একাদশের বাইরে রাখে টিম ম্যানেজমেন্ট।

প্রথম রাউন্ডে রিশাদ দলের সঙ্গে না থাকলেও দ্বিতীয় রাউন্ডে তিনি যোগ দেন রংপুরে। কিন্তু তাকে একাদশে রাখেননি কোচ। এই দিনেই বিসিবিতে সভায় ছিলেন বোর্ড প্রধান নাজমুল হাসান। বিষয়টি তার কানে গেলে সংবাদ মাধ্যমের সামনে ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া জানান তিনি, 'এই যে জাতীয় লিগ হচ্ছে, এত কিছু বলার পরও, লেগ স্পিনার নিয়ে এত কথা বলছি, অথচ রিশাদকে খেলানো হয়নি এখনো। লিখনকেও (জুবায়ের হোসেন) খেলানো হয়নি। আমরা এত কিছু বলার পরও যদি সেরা একাদশে না নামায়, তাহলে কি করণীয়? আমরা নিশ্চিত ছিলাম আজকে খেলাবে, কিন্তু নামায়নি।'

ঢাকা ও রংপুরের দুই কোচকে ঢাকায় এসে বিসিবির কারণ দর্শানোর নোটিশের জবাব দিতে হবে বলে জানান বোর্ড প্রধান, 'এই নিয়ন্ত্রণটা আমাদের হাতে কেন নেই। আপাতত যেটা করেছি, জাতীয় লিগে কেন খেলায়নি, সেটি জানতে আজকেই দুই কোচকে তলব করা হয়েছে। অবশ্যই উত্তর দিতে হবে তাদের, বলার পরও কেন খেলানো হয়নি। ঢাকা ও রংপুরের কোচকে ডাকা হয়েছে। লেগ স্পিনারদের তো খেলাতে হবে! না খেলালে ওরা উঠে আসবে কিভাবে?'

এ নিয়ে বিস্ময়ের শেষ নেই প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদীনের, 'মানসিকতা দেখেন, আমরা লেগ স্পিনার হন্যে হয়ে খুঁজছি। আর এত বলার পরও স্কোয়াডেই রাখেনি রিশাদকে। ওকে কদিন আগে আমরা শ্রীলংকায় নিয়ে গেছি। অথচ বিভাগীয় দলে সুযোগ দেওয়া হচ্ছে না।'

ব্যাখ্যা তো দিতেই হবে দুই কোচকে। সন্ধ্যায় বিসিবি খুব দ্রম্নত তাঁদের বাদ দিয়ে নতুন দুই কোচকে দায়িত্ব দিয়েছে বলে নিশ্চিত করেছেন বোর্ডের একটা সূত্র। ঢাকা বিভাগের কোচ হিসেবে জাহাঙ্গীরের জায়গায় দায়িত্ব পেয়েছেন মোহাম্মদ সেলিম আর রংপুরের মাসুদকে সরিয়ে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে জাফরুল এহসান। দুজন এরই মধ্যে ভেনু্যতে রওনা দিয়েছে বলে জানালেন বিসিবির দায়িত্বশীল এক কর্মকর্তা।

জাতীয় ক্রিকেট লিগের দ্বিতীয় রাউন্ডে চট্টগ্রামে প্রথম স্তরের ম্যাচে খেলছে ঢাকা ও রংপুর দুই দল।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
close

উপরে