logo
বুধবার, ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ১৪ ফাল্গুন ১৪২৬

  ক্রীড়া প্রতিবেদক   ২৯ জানুয়ারি ২০২০, ০০:০০  

অনুশীলন ছাড়াই পাকিস্তান যাবে মুমিনুলরা

পাকিস্তান সফরে সদ্য সমাপ্ত টি২০ সিরিজের আগেও তিন দিনের অনুশীলন ক্যাম্প করে খেলতে যায় টাইগাররা। তবে টেস্ট সিরিজের প্রথম ম্যাচের আগে কোনো অনুশীলন ক্যাম্পের আয়োজন করবে না বিসিবি

অনুশীলন ছাড়াই পাকিস্তান যাবে মুমিনুলরা
পাকিস্তানে টি২০ সিরিজে বাংলাদেশের প্রাপ্তির খাতা বলতে গেলে প্রায় শূন্য। তবে একমাত্র তামিম ইকবালের ব্যাটিং। টাইগারদের সামনে এবার রাওয়ালপিন্ডি টেস্ট। যদিও এই টেস্টকে সামনে রেখে অনুশীলন ক্যাম্প করবে না তামিম ইকবাল-মুমিনুলরা। বিসিএল খেলার মাধ্যমেই প্রস্তুতি সেরে নেবে তারা -ফাইল ফটো
বহুল আলোচিত পাকিস্তান সফরের প্রথম ধাপ শেষ। দ্বিতীয় ধাপে একটি টেস্ট ম্যাচ খেলতে ফেব্রম্নয়ারিতে ফের পাকিস্তানে উড়াল দেবে টাইগাররা। তবে এর আগে আলাদা করে কোনো প্রস্তুতি ক্যাম্পে অংশগ্রহণ করবেন না ক্রিকেটাররা।

আগামী ৭ ফেব্রম্নয়ারি রাওয়ালপিন্ডিতে শুরু হবে দুই ম্যাচের টেস্ট সিরিজের প্রথম টেস্ট। সাধারণত প্রতি সিরিজের আগেই খেলোয়াড়দের অনুশীলন ক্যাম্প হয়ে থাকে। পাকিস্তান সফরে সদ্যসমাপ্ত টি২০ সিরিজের আগেও তিনদিনের অনুশীলন ক্যাম্প করে খেলতে যায় টাইগাররা। তবে টেস্ট সিরিজের প্রথম ম্যাচের আগে কোনো অনুশীলন ক্যাম্পের আয়োজন করবে না বিসিবি।

অবশ্য ক্যাম্প না হলেও খেলার মাঝেই থাকবেন ক্রিকেটাররা। আগামী ৩১ জানুয়ারি থেকে শুরু হচ্ছে দেশের প্রথম শ্রেণির ফ্র্যাঞ্চাইজিভিত্তিক টুর্নামেন্ট বাংলাদেশ ক্রিকেট লিগ (বিসিএল)। এই টুর্নামেন্টের প্রথম রাউন্ডে জাতীয় দলের প্রায় সব ক্রিকেটারই থাকবেন।

এর ফলে প্রায় সবাই থাকবেন ম্যাচ খেলার মধ্যে। ক্রিকেটে একটি প্রবাদ বলা হয়ে থাকে, 'ম্যাচ প্র্যাকটিসের চেয়ে বড় প্র্যাকটিস নেই'। বিসিএলে ব্যস্ত থাকায় ম্যাচ খেলার কোনো প্রয়োজন দেখছে না বিসিবি। তাই আলাদা করে কোনো অনুশীলন ক্যাম্প আয়োজন করছে না ক্রিকেট বোর্ড।

টি২০ সিরিজ শেষে সোমবার দিবাগত মধ্যরাতে অনেকটা খালি হাতেই দেশে ফিরেছে বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দল। দিবাগত গভীর রাত তিনটায় বিসিবির ভাড়া করা বিশেষ বিমানে দেশে ফিরে এসেছে মাহমুদ উলস্নাহর নেতৃত্বাধীন টি২০ দল। যেখানে দলের সঙ্গী ছিলেন বোর্ড সভাপতি নাজমুল হাসান পাপনও।

এদিকে বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের যে কোনো বিদেশ সফরের দেশত্যাগ ও দেশে ফেরা- উভয় সময়েই বিমানবন্দরে লক্ষ্য করা যায় ভক্ত-সমর্থক ও সংবাদকর্মীদের ব্যাপক ভিড়। প্রিয় দলের প্রতি শুভকামনা জানাতেই হাজির হন ভক্ত-সমর্থকরা আর দায়িত্বের কারণে থাকেন সংবাদকর্মীরাও।

কিন্তু ব্যতিক্রম ছিল এবারের পাকিস্তান সফর। গত ২২ জানুয়ারি দেশত্যাগ ও ২৭ জানুয়ারি মধ্যরাতে দেশে ফেরার বিষয়টা যেন বেশ নীরবেই সেরেছে বাংলাদেশ দল। যদিও ঢাকা ত্যাগের দিন বিমানবন্দরে সংবাদ মাধ্যমের কিছু লোকের উপস্থিতি থাকলেও রাতে ফেরার সময় ছিল না তেমন কিছুই।

এর পেছনে অবশ্য মাঠে ভরাডুবি ছাড়াও রয়েছে ভিন্ন কারণ। কেননা বাংলাদেশ দল দেশে ফিরেছে গভীর রাতে। মূলত এ কারণেই অত রাতে ছিল না কোনো সংবাদকর্মী কিংবা ভক্ত-সমর্থকদের ভিড়। নিরাপত্তা কিংবা আতিথেয়তা যতো ভালোই হোক না কেন, মাঠের খেলায় বাংলাদেশকে কিন্তু এক বিন্দুও ছাড় দেয়নি পাকিস্তান। সোমবার শেষ ম্যাচ বৃষ্টিতে ভেসে যাওয়ার আগে বাংলাদেশকে প্রথম ম্যাচে ৫ উইকেটে এবং দ্বিতীয় ম্যাচে ৯ উইকেটের বড় ব্যবধানে হারিয়ে সিরিজের ট্রফিটি নিজেদের ঘরেই রেখে দিয়েছে স্বাগতিকরা।

পাকিস্তানের মাটিতে তিন ম্যাচের টি২০ সিরিজ খেলতে যাওয়ার আগে ক্রিকেটের চেয়ে বেশি আলোচিত বিষয় ছিল-নিরাপত্তা! তবে টি২০ সিরিজ শেষে যথাযথ নিরাপদে ক্রিকেট দল মঙ্গলবার ভোররাতে দেশে ফেরার পর এখন আলোচনা ক্ষেত্রের নতুন নাম-পারফরম্যান্স।

টি২০ সিরিজে দলের পারফরম্যান্স মোটেও ভালো কিছু হয়নি। ফেব্রম্নয়ারির প্রথম সপ্তাহে ক্রিকেট দল দ্বিতীয় দফা পাকিস্তান সফরে যাচ্ছে। এই সফরে রাওয়ালপিন্ডিতে খেলবে একটি টেস্ট। ক্রিকেটের সংক্ষিপ্ততম ফরমেটে দলের নুয়ে পড়া পারফরম্যান্সকে ভুলিয়ে দিতে টেস্ট সিরিজে ভালো কিছু করে দেখাতে মরিয়া বাংলাদেশ দল।

ক্রিকেটারদের মতো ক্রিকেট বোর্ডের কর্তারাও অপেক্ষায় আছেন টেস্ট সিরিজে যেন সন্তুষ্টির হাসি মেলে। রাওয়ালপিন্ডি টেস্টের জন্য নির্বাচকরা দু-এক দিনের মধ্যে দল ঘোষণা করবেন। বিসিবির সূত্র জানিয়েছে-পাকিস্তানে টেস্ট সিরিজের জন্য দলের অধিনায়ক হিসেবে থাকছেন মুমিনুল হক। সর্বশেষ ভারতের মাটিতে আইসিসির টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের দুই টেস্ট সিরিজে মুমিনুলই দলকে নেতৃত্ব দিয়েছিলেন। যদিও সেই সিরিজে ব্যাট হাতে চার ইনিংসেই মুমিনুল ছিলেন ব্যর্থ। অধিনায়ক হিসেবেও ম্যাচে টস করা ছাড়া এমন কিছু করতে পারেননি যা নিয়ে বাড়তি আলোচনা হতে পারে। তবে এই মুহূর্তে বাংলাদেশ দলের টেস্ট অধিনায়ক হওয়ার মতো তালিকায় আর কাউকে পাওয়া যাচ্ছে না-তাই মুমিনুল হকের নেতৃত্বেই পাকিস্তানে টেস্ট সিরিজ খেলতে যাচ্ছে বাংলাদেশ।

দ্বিতীয় দফা বাংলাদেশ দলের পাকিস্তান সফরের বিষয়ে আরেকটি বিষয় নিশ্চিত করেছে ক্রিকেট বোর্ড, টেস্ট দল কোনো চার্টার্ড ফ্লাইটে পাকিস্তান যাচ্ছে না। টি২০ সিরিজ খেলতে ক্রিকেট দল বাংলাদেশ বিমানের একটি চার্টার্ড ফ্লাইটে লাহোর গিয়েছিল। পাকিস্তানের সঙ্গে বাংলাদেশের সরাসরি কোনো ফ্লাইট নেই। আরব আমিরাত বা দোহা হয়েই মূলত পাকিস্তান যেতে হয়। তাতে ফ্লাইটের সময় অনেক লম্বা হয়ে পড়ে। ফ্লাইট বদল করারও ঝক্কি পোহাতে হয়। তাই টি২০ সিরিজে দলকে কিছুটা স্বস্তি দিতে বিসিবি বাড়তি খরচা করে চার্টার্ড ফ্লাইটে দলকে লাহোরে নিয়ে যায়। তবে টেস্ট সিরিজে সেই সিদ্ধান্ত বদলে ফেলেছে বিসিবি। সাধারণ ফ্লাইটেই দোহা হয়ে রাওয়ালপিন্ডি যাবে বাংলাদেশ টেস্ট দল। রাওয়ালপিন্ডি টেস্টের আগে বাংলাদেশ দল ৪ ফেব্রম্নয়ারি পাকিস্তান রওয়ানা হবে।

পাকিস্তানের বিরুদ্ধে বাংলাদেশ এখন পর্যন্ত ১০টি টেস্ট ম্যাচ খেলেছে। এই লড়াইয়ের ৯টি টেস্ট ম্যাচই জিতেছে পাকিস্তান। একটি টেস্ট ড্র হয়েছে।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
close

উপরে