logo
রবিবার, ৩১ মে ২০২০, ১৭ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬

  ক্রীড়া প্রতিবেদক   ০৭ এপ্রিল ২০২০, ০০:০০  

করোনার প্রভাব

অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ হতে পারে ডিপিএল

'ডিপিএল এবং ডিপিএল টি২০ ঈদুল ফিতরের ১০ দিন আগে শেষ করতে চেয়েছিলাম। ফিকশ্চার সেভাবেই করা আছে। কিন্তু এখন যে পরিস্থিতি, তাতে তো লিগ আদৌ মাঠে গড়াবে কি না, মাঠে গড়ালে কতোদিন লাগবে, তা বলা যাচ্ছে না।'

প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসের প্রকোপ বাংলাদেশে সেভাবে শুরু হয়নি তখনো। একে একে বৈশ্বিক বা বিদেশি ঘরোয়া প্রতিযোগিতা যখন স্থগিত হচ্ছিল, বাংলাদেশের ক্রিকেটও অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ করে দেয় বিসিবি।

গত ১৯ মার্চ বিসিবিতে সংক্ষিপ্ত সভা শেষে স্থগিতের ঘোষণা দিয়েছিলেন বোর্ড সভাপতি নাজমুল হাসান। ঢাকা প্রিমিয়ার লিগ সংক্রান্ত বিষয়ে তিনি বলেছিলেন, প্রতিযোগিতাটি যদি শুরু হয়ও সেটি ১৫ এপ্রিলের আগে নয়। তবে বর্তমান পরিস্থিতিতে ১৫ এপ্রিল তো বটেই, কবে শুরু হবে সেই সম্ভাবনার কথাও বলার উপায় নেই।

এরপরও ক্রিকেট কমিটি অব ঢাকা মেট্রোপলিস (সিসিডিএম) পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করছে। আগামী ১৫ এপ্রিল পর্যন্ত পরিস্থিতির আরও অবনতি হলে ফের 'অনির্দিষ্টকালের জন্য' প্রিমিয়ার লিগ বন্ধ করে দেওয়া হতে পারে।

গতকাল সোমবার তেমনটাই জানিয়েছেন সিসিডিএম সদস্য সচিব আলী হোসেন, 'আমরা আগামী ১৫ এপ্রিল পর্যন্ত পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করছি। তবে দেশের যা অবস্থা তাতে করে খেলা মাঠে গড়ানোর সম্ভাবনা নেই। তারপরও বিসিবি প্রধানের ঘোষণা অনুযায়ী আমরা ১৫ এপ্রিল ফের আরেকটি সিদ্ধান্ত দেব। এই মুহূর্তে খেলার চেয়ে নিরাপদ থাকাটাই সবচেয়ে বেশি জরুরি।'

আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের ব্যস্ততার বাইরে ঢাকা প্রিমিয়ার ডিভিশন ক্রিকেট লিগ (ডিপিএল) আয়োজনে সুবিধাজনক শ্লট খুঁজে নিয়েছিল সিসিডিএম। ক্রিকেটারদের উন্মুক্ত দলবদল সম্পন্ন করে সকল তারকা ক্রিকেটারের অংশগ্রহণে ডিপিএল গড়িয়েছিল মাঠে।

পর পর ২টি দ্বিপাক্ষিক সফর, আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে অ্যাওয়ে সিরিজ এবং হোমে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে টেস্ট সিরিজ সামনে রেখে ডিপিএলকে আদর্শ প্রস্তুতির মঞ্চ হিসেবে নিয়েছিল ক্রিকেটাররা।

সূচি অনুযায়ী ১৫ মার্চ থেকে ডিপিএল শুরু হয়ে ২৮ এপ্রিল প্রথম পর্ব, ৮ মে সুপার লিগ সম্পন্ন করার কথা ছিল। সুপার লিগের ৬ দল নিয়ে ডিপিএল টি২০ ও ঈদের আগেই সম্পন্ন করতে চেয়েছিল সিসিডিএম।

তবে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ আতঙ্কে ডিপিএল স্থগিত হওয়ায় ঘরোয়া মৌসুমের ডিপিএলের ভবিষ্যৎ নিয়ে উদ্বিগ্ন সিসিডিএম। ডিপিএলের কোঅর্ডিনেটর আমিন খান জানিয়েছেন উদ্বেগের কথা- 'ডিপিএল এবং ডিপিএল টি২০ ঈদুল ফিতরের ১০ দিন আগে শেষ করতে চেয়েছিলাম। ফিকশ্চার সেভাবেই করা আছে। কিন্তু এখন যে পরিস্থিতি, তাতে তো লিগ আদৌ মাঠে গড়াবে কি না, মাঠে গড়ালে কতোদিন লাগবে, তা বলা যাচ্ছে না।'

ঈদের আগে লিগ শেষ করতে না পারলে বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের আন্তর্জাতিক ব্যস্ততায় তারকাদের অংশগ্রহণ হয়ে পড়বে অনিশ্চিত। তারকাদের অংশগ্রহণ ছাড়া বিগ বাজেটের দলসমূহ কি তখন লিগে খেলতে চাইবে?

ডিপিএল স্থগিত হওয়ায় ক্রিকেটারদের সম্মানি নিয়ে উদ্বিগ্ন সিসিডিএম সদস্য সচিব আলী হোসেন, 'তিন ধাপে ক্রিকেটারদের সম্মানি দেওয়ার নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। লিগের খেলা একটানা চললে ক্রিকেটাররা ক্লাব থেকে যথাসময়ে প্রতিশ্রম্নত সম্মানি পেত। কিন্তু এখন তো পেমেন্টের ক্ষেত্রে একটা শঙ্কা দেখা দিয়েছে।'

ঈদুলফিতরের আগে লিগ শেষ করতে পারলে পুরো পেমেন্ট পেয়ে স্বস্তিতে থাকতে পারত ক্রিকেটাররা। লিগে জট বড় হলে সেখানেও যে অস্বস্তির আলামত পাচ্ছে সিসিডিএম।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
close

উপরে