মঙ্গলবার, ২৩ জুলাই ২০২৪, ৮ শ্রাবণ ১৪৩১

মন খারাপের রাতে মিমি যা করেন

বিনোদন ডেস্ক
  ২৩ জুন ২০২৪, ১৩:১৯
আপডেট  : ২৩ জুন ২০২৪, ১৩:২৩
ছবি-যায়যায়দিন

ওপার বাংলার জনপ্রিয় অভিনেত্রী মিমি চক্রবর্তী। বর্তমানে ‘তুফান’ চলচ্চিত্রে শাকিব খানের বিপরীতে অভিনয় করে দুই বাংলাতেই আলোচনায় তিনি। কয়েকদিন আগে ‘তুফান’-এর প্রচারণা শেষ করে কলকাতায় ফেরেন অভিনেত্রী। এখন কাজের বাইরে বেশ মুক্ত সময় কাটাচ্ছেন এই টালি নায়িকা।

অভিনয়ের পাশাপাশি যেমন রাজনীতিতে সরব অভিনেত্রী, তেমন গানের প্রতিও রয়েছে তার অসম্ভব ঝোঁক। গানকে ভীষণ ভালোবাসেন মিমি; শত ব্যস্ততার মধ্যে হলেও একটু সময় বের করেন গান করার। এরই মধ্যে চলে এলো বিশ্ব সংগীত দিবস। তাই দিবসটি উপলক্ষে ভারতীয় গণমাধ্যমে নিজের গানের প্রতি তার ভালোবাসা ব্যক্ত করেন তিনি।

মিমি মনে করেন, তার জীবনে গান বিষয়টি না থাকলে অচল হয়ে পড়ত তার জীবন। এমনকি বেঁচে থাকতেও তার কষ্ট হতো, হারাতেন নিজের অস্তিত্ব। তবে মিমি যে পেশাদার গায়িকা এমন তো না। অভিনয় জীবনেই তার ব্যস্ততা বেশি। এর মাঝেও কীভাবে গান নিয়ে তার সময় কাটে, সে বিষয়টিও ভক্তদের কাছে ভাগ করে নিয়েছেন অভিনেত্রী।

মিমির কথায়, ‘গান ছাড়া হয়তো আমার অস্তিত্বই থাকত না। বলা ভালো, জীবনযুদ্ধে টিকে থাকতে পারতাম না। পেশার তাগিদে বা খ্যাতির জন্য গান করি না আমি। কেবল নিজের জন্যই গান গাই। যে অনুরাগীদের আমার গান ভালো লাগে, তারাই শোনেন। আমি কখনো গান শিখিনি। কিন্তু গানের সঙ্গে এতটাই ওতপ্রোতভাবে জড়িয়ে রয়েছি যে, গান ছাড়া জীবন কল্পনাও করতে পারি না।’

অভিনেত্রী বলেন, ‘মন খারাপের রাতে আমি আর মা পুরনো দিনের গান গাই। আধুনিক গানের তুলনায় লতা-কিশোরের গানের দিকে আমার ঝোঁক বেশি। আমি কয়েকটি মিউজিক ভিডিওতে গান করেছি, রবীন্দ্রনাথের প্রেমের গান। আমার মনে হয় একবার ‘গীতবিতান’-এর প্রেম পর্যায়ের গানের সঙ্গে একাত্ম হয়ে গেলে তার থেকে রোমান্টিক আর কী হতে পারে! প্রেম, ভালোবাসা বা বিরহের গান, সব হয়তো জানি না, যতটুকু পারি করি আর কি।’

উল্লেখ্য, এর আগে চলতি বছরের শুরুতে বাংলাদেশে ‘ভাল্লাগছে না’ শিরোনামে গান গেয়ে আলোচনায় এসেছিলেন মিমি চক্রবর্তী। টিএম রেকর্ডসের উদ্যোগে সংগীত পরিচালক কৌশিক হোসেন তাপসের কথা, সুর ও সংগীতায়োজনে গানটি প্রকাশিত হয়েছিল ইউটিউবে।

যাযাদি/ এস

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়

উপরে