বার্সার হার, এল ক্লাসিকো জিতল রিয়াল

বার্সার হার, এল ক্লাসিকো জিতল রিয়াল

লা লিগায় একই মৌসুমে দ্বিতীয়বারের মতো এল ক্লাসিকো জিতল রিয়াল মাদ্রিদ। শনিবার রাতে আলফ্রেডো দি স্টেফানো স্টেডিয়ামে রোমাঞ্চকর লড়াইয়ে চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী বার্সেলোনাকে ২-১ গোলে হারিয়ে শিরোপা লড়াই জমে তুলেছে লস ব্লাঙ্কস শিবির। রিয়ালের জয়ে পয়েন্ট তালিকায় তিনে নেমে গেছে বার্সেলোনা, ৩০ ম্যাচে কাতালানদের পয়েন্ট ৬৫। ১ পয়েন্ট বেশি নিয়ে শীর্ষে রিয়াল। এক ম্যাচ কম খেলা অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদের পয়েন্টও রিয়ালের সমান ৬৬।

এবারের লা লিগায় দুটি এল ক্লাসিকোই জিতল রিয়াল। গত অক্টোবরে ন্যু ক্যাম্পে ৩-১ গোলে জিতেছিল জিদান শিবির। ৪৩ বছর পর বার্সেলোনার বিপক্ষে টানা তিনটি ম্যাচ জিতল রিয়াল। চিরপ্রতিদ্বন্দ্বীদের বিপক্ষে এর আগে টানা তিনটি ম্যাচ তারা জিতেছিল ১৯৭৮ সালে, সেবার সবগুলোই লা লিগায়। লিগে এই নিয়ে টানা চার ম্যাচ জিতল রিয়াল, অপরাজিত টানা ১০ ম্যাচে। অন্যদিকে টানা ১৯ ম্যাচ অপরাজিত থাকার পর হারল বার্সেলোনা।

অথচ পুরো ম্যাচে বল দখল বার্সার ছিল ৬৯ শতাংশ। ১৮টি শটের চারটিই ছিল লক্ষ্যে। সেখানে রিয়ালের ১৪ শটের তিনটি ছিল লক্ষ্যে, এর মধ্যে দুটিতেই গোল। মেসি পেলেন না গোল। বেনজেমা-ক্রুসের গোলে রিয়ালের হাসি। এল ক্লাসিকোয় লাল কার্ড থাকবে না, তা কী করে হয়। ম্যাচ শেষে রিয়ালের ক্যাসেমিরো পেলেন লাল কার্ড। বার্সার হয়ে একমাত্র গোল দাতা ওসকার মিনগেজা।

ম্যাচের শুরুটা ঢিমেতালে। আস্তে আস্তে বাড়ে উত্তেজনা। ১৩ মিনিটেই উল্লাসে মাতে রিয়াল। বেনজেমার গোলে এগিয়ে স্বাগতিকরা। চমৎকার সাইড-ফুট ফ্লিকে বল জালে জড়ান এই ফরাসি ফরোয়ার্ড (১-০)। ২৭ মিনিটে ক্রুসের ফ্রি কিক ও কিছুটা সৌভাগ্যের ছোঁয়ায় ব্যবধান দ্বিগুণ করে রিয়াল (২-০)। প্রথমার্ধে রিয়ালের স্কোর ৩-০ হতে পারত। তবে ভালভারদের জোরালো শট পোস্টে বাধা পায়। ফিরতি বলে ভাসকেসের শট ঝাঁপিয়ে ফেরান মার্ক-আন্ড্রে টের স্টেগেন।

বিরতির আগে যোগ করা সময়ে অসাধারণ এক গোল পেতে পারতেন আগের ছয় ক্লাসিকোয় গোল না পাওয়া মেসি। কিন্তু বার্সা অধিনায়কের দারুণ কর্নারে বল পোস্টে লেগে ফেরত আসে। প্রথমার্ধে শুরু হওয়া বৃষ্টি দ্বিতীয়ার্ধে নামে মুষলধারে। সঙ্গে ঝড়ো বাতাস। প্রতিকূল পরিবেশে ফুটবল তার স্বাভাবিক ছন্দ হারায়। তবে বার্সেলোনা ঠিকই বল দখলে রেখে আক্রমণে চাপ বাড়াতে থাকে। ৬০ মিনিটে গোলের দেখা পায় বার্সা। বাঁ দিক থেকে আলবার ক্রস দুই পায়ের ফাঁক দিয়ে ছেড়ে দেন বদলি নামা অঁতোয়ান গ্রিজমান। আর ফাঁকায় বল পেয়ে ১০ গজ দূর থেকে ব্যবধান কমান প্রথম ক্লাসিকো খেলতে নামা তরুণ ডিফেন্ডার মিনগেজা (২-১)।

বাকি সময়ের প্রায় পুরোটায় চাপ ধরে রাখে বার্সেলোনা। কিন্তু গোলের দেখা পায়নি তারা। নির্ধারিত সময়ের শেষ মিনিটে ১০ জনের দলে পরিণত হয় রিয়াল; মিনগেসাকে ফাউল করে দ্বিতীয় হলুদ কার্ড দেখেন কাসেমিরো। যোগ করা সময়ের একেবারে শেষ মুহূর্তে সমতাসূচক গোল প্রায় পেয়েই যাচ্ছিল বার্সেলোনা। কিন্তু ভাগ্য সহায় হয়নি; বদলি নামা তরুণ মিডফিল্ডার ইলাইশ মোরিবার শট ক্রসবারে বাধা পায়। রিয়াল যখন উল্লাসে ব্যস্ত, বার্সা শিবিরে রাজ্যের হতাশা। ঐতিহ্যের লড়াই বলে কথা।

যাযাদি/এসএইচ

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

আরও খবর

Copyright JaiJaiDin ©2021

Design and developed by Orangebd


উপরে