আবিদ-শফিকে বাংলাদেশের অস্বস্তি

আবিদ-শফিকে বাংলাদেশের অস্বস্তি

তাইজুলের বিদায়ে দ্বিতীয় ইনিংসে ১৫৭ রানে থেমেছে বাংলাদেশ। প্রথম ইনিংসের ৪৪ রানসহ বাংলাদেশ ২০১ রানের লিড দিয়েছে। জয়ের জন্য পাকিস্তানকে করতে হবে ২০২ রান। আর বাংলাদেশের চাই ১০ উইকেট।

২০২ রানের টার্গেটে ব্যাট করতে নেমে দুর্দান্ত খেলছে পাক দুই ওপেনার আবিদ-শফিক। এক প্রান্তে তাইজুল ইসলাম, অন্য প্রান্তে বল করে যাচ্ছেন এবাদত, মিরাজ ও জায়েদ। কিন্তু উইকেটের দেখা পাচ্ছে না বাংলাদেশ।

এই প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত বিনা উইকেটে পাকিস্তানের সংগ্রহ ৯৭ রান।

এর আগে চট্টগ্রাম টেস্টের চতুর্থ দিনের শুরুটা ভালো হয়নি বাংলাদেশের। দিনের শুরুতেই আউট হয়ে সাজঘরে ফিরে যান অভিজ্ঞ ব্যাটার মুশফিকুর রহিম। দিনের প্রথম ওভারের প্রথম বলেই চার মেরে শুরু করেন মুশফিক। তবে এরপর আর এগোতে পারেননি তিনি। হাসান আলির করা দিনের প্রথম ওভারের তৃতীয় বলেই আউট হয়ে সাজঘরে ফেরেন তিনি। বোল্ড হয়ে ফেরার আগে করেন ১৬ রান।

এরপর লিটন দাসকে নিয়ে ভালো একটি জুটি গড়ার চেষ্টা করছিলেন অভিষিক্ত ব্যাটার ইয়াসির আলী রাব্বি। ড্রিংকস ব্রেকের এক ওভার আগে শাহীন শাহ আফ্রিদির বাউন্স হতে যাওয়া বলটাকে ছেড়ে দিতে গিয়ে হেলমেটের পেছনে আঘাত পান ইয়াসির আলী রাব্বি। ফিজিও, সতীর্থরা ছুটে এসে তার অবস্থা পর্যবেক্ষণ করে আবার ফিরে যান ড্রেসিং রুমেই। ব্যাটিং চালিয়ে যান রাব্বি।

কিন্তু ড্রিংকস ব্রেকের পর তিনি মাঠ থেকে বেরিয়ে গিয়েছেন। ব্যাট হাতে মাঠে নতুন ব্যাটসম্যান মেহেদি হাসান মিরাজ। বিশ্রামে যাওয়ার পূর্বে ইয়াসির করেছেন ৩৬* রান। লিটন-মিরাজ জুটি থেকে আসে ২৫ রান। মিরাজ ফেরেন ১১ রান করেন। ইয়াসিরের কনকাশন বদলি হিসেবে নামেন নুরুল হাসান সোহান। কিন্তু সুযোগ পেয়েও ঠিকঠাক কাজে লাগাতে পারেননি এই উইকেটকিপার ব্যাটসম্যান। সাজিদের বলে উড়িয়ে মারতে গিয়ে লং অনে ক্যাচ দিয়ে ফেরেন নুরুল। আউট হবার আগে তার ব্যাট থেকে এসেছে ৩৩ বলে ১৫ রান। পরে অবশ্য বেশি সময় থাকতে পারেননি লিটন দাসও। শাহিনের বলে এলবিডব্লিউ হয়ে গেছেন অর্ধশতক পাওয়া লিটন। রিভিউ নিয়েছিলেন, কিন্তু তাতে বাঁচতে পারেননি। ৫৯ রান করে আউট হয়েছেন লিটন।

লিটনের বিদায়ের পর ক্রিজে এসেছিলেন আবু জায়েদ, কিন্তু তিন বলের বেশি টিকতে পারেননি তিনি। শাহিনের ডেলিভারিতে তার ব্যাটের কানা ছুঁয়ে তালুবন্দী হয় রিজওয়ানের হাতে। জায়েদ ফেরেন খালি হাতেই। তাকে ফিরিয়ে ইনিংসে শাহিনের পাঁচ উইকেট হয়ে গেল।

শেষ ব্যাটসম্যান হিসেবে উইকেট বিলিয়ে দিয়ে আসেন তাইজুল ইসলাম। সাজিদ খানের ডেলিভারিতে বাউন্ডারি হাঁকাতে চেয়েছিলেন তাইজুল। কিন্তু ব্যাটে-বলে হল না। ফলাফল স্ট্যাম্পড তাইজুল। ১৫৭ রানেই অলআউট হলো বাংলাদেশ।

এর আগে চট্টগ্রাম টেস্টের তৃতীয় দিনের খেলায় তাইজুলের বাঁহাতি ঘূর্ণিতে প্রথম ইনিংসে ২৮৬ রানে অলআউট হয় পাকিস্তান। নিজেদের প্রথম ইনিংসে ৩৩০ রান করেছিলো স্বাগতিকরা। ফলে ৪৪ রানের লিড পায় বাংলাদেশ। স্পিনার তাইজুল ইসলাম একাই ধসিয়ে দেন পাকিস্তানের ইনিংস। সাত উইকেট নেন তিনি।

যাযাদি/এসআই

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

আরও খবর

Copyright JaiJaiDin ©2022

Design and developed by Orangebd


উপরে