বৃহস্পতিবার, ০২ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ১৯ মাঘ ১৪২৯
walton1
নতুন শুল্ক আইন বাস্তবায়নের তাগিদ

আইএমএফের শর্তের জালে এনবিআর

পবন আহমেদ
  ৩১ অক্টোবর ২০২২, ০০:০০
দেশকে অর্থনৈতিক সংকট থেকে উত্তরণে জাতীয় রাজস্ব বোর্ডকে (এনবিআর) কর জিডিপি বাড়ানোসহ বেশ কিছু শর্ত বেঁধে দিচ্ছে আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিল (আইএমএফ)। একই সঙ্গে নতুন শুল্ক আইন কবে নাগাদ বাস্তবায়ন হবে এবং এনবিআর রাজস্ব প্রশাসনের সংস্কারের কথাও বলেছে সংস্থাটি। এ ছাড়া আয়কর খাতে ক্যাপাসিটি বিল্ডিং, ভ্যাট অটোমেশন, ট্রেড ফ্যাসিলেশন, স্কিল ডেভেলপমেন্ট, টোব্যাকো খাতে করহার পুনর্বিবেচনার কথাও বলেছে আইএমএফ। বৈঠক সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে। অর্থনীতিবিদরা বলছেন, ঋণ দেওয়ার ক্ষেত্রে আইএমএফ-এর সুনির্দিষ্ট কিছু প্রস্তাব থাকে। এর মধ্যে অন্যতম হলো ভর্তুকি কমানো। অর্থনৈতিক সক্ষমতা বাড়ানোর স্বার্থে যেসব দেশে আইএমএফ ঋণ দেয়, সেসব দেশে ভর্তুকি কমানোর পরামর্শ দিয়ে থাকে। তবে অর্থনৈতিক সক্ষমতা বাড়ানোর জন্য ভর্তুকি কমানোর ও প্রশাসনে সংস্কারের কোনো বিকল্প নেই বলেও মনে করেন তারা। রোববার এনবিআর-এর সঙ্গে আইএমএফের প্রতিনিধি দলের বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়েছে। পৃথকভাবে এনবিআর-এর তিনটি বিভাগের সঙ্গে বৈঠক করেন আইএমএফ প্রতিনিধি দল। বৈঠকে এনবিআর চেয়ারম্যান আবু হেনা মো. রহমাতুল মুনিম নেতৃত্ব দেন। এ ছাড়া শুল্ক নিরীক্ষা, আধুনিকায়ন ও আন্তর্জাতিক বাণিজ্যের সদস্য ডক্টর আব্দুল মান্নান সিকদার, কাস্টমস নীতির সদস্য মো. মাসুদ সাদিক, মূসক নীতির সদস্য জাকিয়া সুলতানা, মূসক নিরীক্ষার সদস্য ডক্টর মো. সহিদুল ইসলাম, কর অডিটের সদস্য প্রদু্যত কুমার সরকার ও কর প্রশাসনের সদস্য শাহীন আক্তার উপস্থিত ছিলেন। নাম প্রকাশ না করার শর্তে এনবিআরের এক কর্মকর্তা বলেন, এনবিআরের আয়কর নীতি, ভ্যাট নীতি ও বাস্তবায়ন এবং কাস্টমস নীতির সঙ্গে আলাদা আলাদা বৈঠক করেন আইএমএফের প্রতিনিধি দলের সদস্যরা। বৈঠকে আয়কর বাড়ানোর বিষয়ে এনবিআরের পরিকল্পনা জানতে চান সংস্থাটির কর্মকর্তারা। জবাবে এনবিআর কর্মকর্তারা জানান, করহার না বাড়িয়ে কর ফাঁকি বন্ধে জোর দেওয়া হয়েছে। এতে আয়কর খাতে সর্বশেষ তিন মাসে রাজস্ব আয়ের প্রবৃদ্ধি ২০ শতাংশের কোটায় রয়েছে বলেও আইএমএফ কর্মকর্তাদের অবহিত করে এনবিআর। করহার না বাড়িয়ে আয়কর আদায় কীভাবে বাড়ানো হবে আইএমএফের এমন প্রশ্নে এনবিআরের আয়কর কর্মকর্তারা বলেন, করজাল বাড়াতে ইতোমধ্যে জোন সম্প্রসারণসহ বেশকিছু উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। কর ফাঁকি বন্ধ করে সেই সঙ্গে করের আওতা বাড়ালে আয়কর আরও অনেক বাড়বে বলেও আইএমএফকে জানায় এনবিআর। এ ছাড়া কর অব্যাহতির বিষয়ে জানতে চাইলে এনবিআর কর্মকর্তারা বলেন, প্রতি বাজেটে বিভিন্ন খাতে কিছু কিছু ক্ষেত্রে কর ছাড় দেওয়া হয়েছে। আর নতুন নতুন খাতকে করের আওতায় নিয়ে এসে আয়কর খাতে অব্যাহতি আরও কমানো হবে বলেও জানান এনবিআর কর্মকর্তারা। কাস্টমস নীতি বিভাগের এক কর্মকর্তা বলেন, এনবিআরের শুল্ক খাতের সঙ্গেও কাস্টমস এবং বন্ডে বিশাল অংকের রাজস্ব অব্যাহতি কমানোর বিষয়েও জানতে চান আইএমএফ কর্মকর্তারা। এ ছাড়া নতুন শুল্ক আইন কবে নাগাদ বাস্তবায়ন করা হবে, এ বিষয়ে জানতে চান তারা। এনবিআর কর্মকর্তারা বলেন, দেশীয় শিল্প বিকাশের স্বার্থে কিছু কিছু ক্ষেত্রে বিশেষ করে আমদানিতে শুল্ক ছাড় দেওয়া হচ্ছে। এ ছাড়া শিল্প বিকাশের স্বার্থে বন্ডে ছাড় অব্যাহত রয়েছে। তবে বাস্তবতার দিক বিবেচনায় নিয়ে ধীরে ধীরে এসব খাতে কর অব্যাহতি কমানো হচ্ছে। বিশেষ করে বন্ডের কিছু কিছু বিষয়ে নতুন করে করারোপ করা হচ্ছে। প্রতিবছর বাজেটে ভর্তুকি কমিয়ে আনার চেষ্টা করা হচ্ছে। কাস্টমস আইন বাস্তবায়নের ক্ষেত্রে এনবিআর কর্মকর্তারা বলেন, আমরা ইতোমধ্যে কাস্টমস আইন প্রণয়ন করে মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমে পাঠানো হয়েছে। বর্তমানে এই আইনটি পাসের অপেক্ষায় রয়েছে। কত সময়ের মধ্যে এই আইন পাস হবে আইএমএফের এমন প্রশ্নের জবাবে এনবিআর কর্মকর্তারা বলেন, জাতীয় সংসদে পাস হলেই বাস্তবায়নের কাজ শুরু হবে। সূত্রে জানা গেছে, এনবিআরের সঙ্গে বৈঠকে আইএমএফ ভ্যাট অটোমেশনের ক্ষেত্রে জোর দিয়েছে। অটোমেশনের আওতায় ই-ফাইলিং থেকে শুরু করে ডিজিটাল ব্যবস্থাপনার বিষয়েও জানতে চেয়েছেন আইএমএফ কর্মকর্তরা। এনবিআর কর্মকর্তারা, এনবিআরের ভ্যাট অটোমেশনের বিষয়টি তুলে ধরেন। সেই সঙ্গে জানানো হয়, ই-ফাইলিংয়ের কাজ শেষ পর্যায়ে এবং ইএফডির অগ্রগতি সন্তোষজনক। তামাকের করহার বাড়ানোর বিষয়টিও জানতে চান আইএমএফ কর্মকর্তারা। জবাবে এনবিআর কর্মকর্তারা বর্তমানে দেশে তামাকের সর্বোচ্চ করহারের বিষয়টি আইএমএফকে অবহিত করেন। আর ভ্যাট অব্যাহতির বিষয়ে এনবিআর কর্মকর্তারা বলেন, ইতোমধ্যে নতুন নতুন কিছু পণ্যে ভ্যাট আরোপ করা হয়েছে। বিশেষ করে মোবাইল ফোনে নতুন করে ভ্যাট আরোপ করা হয়েছে। যেখানে আগে ভ্যাট ছিল না। আরও কিছু কিছু খাতকে ভ্যাটের আওতায় নিয়ে আসা হচ্ছে। সেই সঙ্গে ভ্যাট অব্যাহতির বিষয়ে এনবিআর জোর দিচ্ছে বলেও আইএমএফের প্রতিনিধি দলের সদস্যদের অবহিত করেন এনবিআর কর্মকর্তারা। এ প্রসঙ্গে সাবেক তত্ত্বাবধায়ক সরকারের উপদেষ্টা এবি মির্জা আজিজুল ইসলাম বলেন, আইএমএফের শর্ত বড় বিষয় নয়। যে শর্তের কথা আইএমএফ বলছে, এনবিআর-এর নিজেদের তাগিদেই সেগুলো নিয়ে বেশ কিছু কাজ করা উচিত। তিনি বলেন, ট্যাক্সের যে মূল বিষয় রয়েছে বাংলাদেশে, তা পৃথিবীর অন্য দেশের চেয়ে ও দক্ষিণ এশিয়ার মধ্যে নিম্নতম। এর উদাহরণ হিসেবে তিনি বলেন, নেপালের মাথাপিছু আয় আমাদের চেয়ে অনেক কম, কিন্তু তাদের উন্নয়ন কর বা রাজস্ব কর আমাদের চেয়ে অনেক বেশি। তাই আইএমএফ শর্ত না দিলেও এই কাজ (কর আয় সংস্কার) আমাদের আগেই করা উচিদ ছিল।
  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়

উপরে