শুক্রবার, ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১০ ফাল্গুন ১৪৩০
walton
প্রধানমন্ত্রীকে হত্যার হুমকি

বিএনপি নেতা আবু সাঈদ চাঁদ ৫ দিনের রিমান্ডে

যাযাদি ডেস্ক
  ২৬ মে ২০২৩, ০০:০০
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে হত্যার হুমকি দেওয়া রাজশাহী জেলা বিএনপির আহ্বায়ক আবু সাঈদ চাঁদকে বৃহস্পতিবার গ্রেপ্তার করা হয় -ফোকাস বাংলা

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে হত্যার হুমকি দেওয়ার অভিযোগে করা মামলায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য রাজশাহী জেলা বিএনপির আহ্বায়ক আবু সাঈদ চাঁদকে পাঁচ দিনের রিমান্ডে পেয়েছে পুলিশ। বৃহস্পতিবার সকালে গ্রেপ্তারের পর বিকাল সোয়া ৪টায় পুঠিয়া থানার মামলায় চাঁদকে রাজশাহীর বিচারিক হাকিম আদালত-৪ এ হাজির করে ১০ দিনের রিমান্ড আবেদন করা হয়। শুনানি শেষে আদালতের বিচারক মাহবুব আলম পাঁচদিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন। রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী (পিপি) মুসাব্বিরুল ইসলাম এ তথ্য জানিয়েছেন।

আমাদের রাজশাহী প্রতিনিধি জানান, এর আগে আবু সাঈদ চাঁদকে বৃহস্পতিবার বেলা সোয়া ১১টার দিকে রাজশাহী মহানগরীর ভেড়িপাড়া মোড় থেকে গ্রেপ্তার করা হয়। রাজশাহী জেলা ও মহানগর পুলিশ (আরএমপি) যৌথভাবে সড়কে চেকপোস্ট বসিয়ে একটি প্রাইভেট কার থেকে তাকে গ্রেপ্তার করে।

আবু সাঈদ চাঁদ বিএনপির কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য এবং রাজশাহী জেলা কমিটির আহ্বায়ক। তিনি রাজশাহীর চারঘাট উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান। একাধিকবার বিএনপির প্রার্থী হিসেবে তিনি জাতীয় সংসদ নির্বাচনে অংশ নিলেও নির্বাচিত হতে পারেননি।

গত ১৯ মে বিকালে রাজশাহীর পুঠিয়া উপজেলার শিবপুর উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে জেলা ও মহানগর বিএনপি আয়োজিত এক সমাবেশে চাঁদ বলেন, 'আর ২৭ দফা ১০ দফার মধ্যে আমরা নাই। এক দফা- শেখ হাসিনাকে কবরস্থানে পাঠাতে হবে। শেখ হাসিনাকে কবরস্থানে পাঠাতে হবে। শেখ হাসিনাকে পদত্যাগ করার জন্য যা যা করার দরকার আমরা করব।'

তার এই বক্তব্যের ভিডিও দুই দিন পর ছড়িয়ে পড়লে নিন্দা ও প্রতিবাদের ঝড় ওঠে। রাজশাহী জেলা ও মহানগরসহ দেশের বিভিন্ন থানায় তার নামে সন্ত্রাসবিরোধী আইনে বেশকিছু মামলা হয়। আত্মগোপনে থাকা চাঁদকে গ্রেপ্তারে অভিযান চালিয়ে আসছিল পুলিশ। বৃহস্পতিবার গ্রেপ্তারের পর চাঁদকে নগরীর সিঅ্যান্ডবি মোড়ে আরএমপির সদর দপ্তরে নিয়ে যাওয়া হয়।

এরপর দুপুর ১২টায় আরএমপি সদর দপ্তরে সংবাদ সম্মেলন করা হয়। সেখানে আরএমপি কমিশনার আনিসুর রহমান জানান, প্রধানমন্ত্রীকে প্রকাশ্যে হত্যার হুমকি দেওয়ায় রাজশাহীর পুঠিয়া থানায় প্রথম চাঁদের বিরুদ্ধে মামলা হয়। ওই মামলায় তাকে গ্রেপ্তার দেখানো হবে।

সংবাদ সম্মেলনে পুলিশের রাজশাহী রেঞ্জের উপমহাপরিদর্শক (ডিআইজি) আবদুল বাতেন জানান, বিভিন্ন অপরাধে চাঁদের বিরুদ্ধে আগে থেকেই ২০ থেকে ২৫টি মামলা ছিল। প্রধানমন্ত্রীকে হত্যার হুমকির ঘটনায় রাজশাহী জেলা ও মহানগরের থানাগুলোতে আরও ছয় থেকে সাতটি মামলা হয়েছে। এছাড়া দেশের বিভিন্ন থানায় বেশকিছু মামলা হয়েছে তার বিরুদ্ধে।

সংবাদ সম্মেলনে রাজশাহী জেলা পুলিশের পুলিশ সুপার (এসপি) এবিএম মাসুদ হোসেন, নগর পুলিশের অতিরিক্ত কমিশনার বিজয় বসাকসহ ঊর্ধ্বতন অন্য কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

গ্রেপ্তারের খবর আদালতকে জানাল রাষ্ট্রপক্ষ

এদিকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে হত্যার হুমকি দেওয়া রাজশাহী জেলা বিএনপির আহ্বায়ক আবু সাঈদ চাঁদকে গ্রেপ্তার করার বিষয় হাইকোর্টকে জানিয়েছে রাষ্ট্রপক্ষ। বৃহস্পতিবার বিচারপতি মো. কামরুল হোসেন মোলস্না ও বিচারপতি খোন্দকার দিলীরুজ্জামানের হাইকোর্ট বেঞ্চকে বিষয়টি অবহিত করা হয়। ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল এমরান আহম্মদ ভূঁইয়া চাঁদকে গ্রেপ্তারের বিষয়টি আদালতকে জানান।

এ সময় আদালত বলেন, ফৌজদারি আইন যেভাবে চলে তার (চাঁদ) বিরুদ্ধে সেভাবেই মামলা চলবে।

গত ২২ মে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে হত্যার হুমকি দেওয়া রাজশাহী জেলা বিএনপির আহ্বায়ক আবু সাঈদ চাঁদকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে কি না, জানতে চেয়েছিলেন হাইকোর্ট। একইসঙ্গে পুলিশের সবশেষ পদক্ষেপও জানতে চেয়েছিলেন আদালত।

সাতক্ষীরায় আরেকটি মামলা

অন্যদিকে গ্রেপ্তার আবু সাইদ চাঁদের বিরুদ্ধে সাতক্ষীরার আদালতে মামলা করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাবেক সহসভাপতি ও বঙ্গবন্ধু আওয়ামী আইনজীবী পরিষদের সদস্য সাইদুজ্জামান জিকো বাদী হয়ে আমলি আদালত-১ এ মামলা করেন।

আদালতের বিচারক চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট হুমায়ুন কবীর মামলাটি আমলে নিয়ে সদর থানার ওসিকে এফআইআর হিসেবে রেকর্ড করার নির্দেশ দিয়েছেন।

চবির প্রগতিশীল শিক্ষক সমাজের প্রতিবাদ

আবু সাঈদ চাঁদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি ও তার ইন্ধনদাতাদের খুঁজে বের করার দাবি জানিয়েছেন চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় বাংলাদেশি জাতীয়তাবাদ ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় উদ্বুদ্ধ প্রগতিশীল শিক্ষক সমাজের আহ্বায়ক প্রফেসর ডক্টর মোহাম্মদ সেকান্দর চৌধুরী।

এক বিবৃতিতে তিনি বলেন জননেত্রী শেখ হাসিনার দক্ষ ও যোগ্য নেতৃত্বে বাংলাদেশ যখন বিশ্ব দরবারে মাথা উঁচু করে দাঁড়িয়েছে এবং বহু প্রতিকূলতার জয় করে দেশের সামগ্রিক অবস্থা উত্তরোত্তর সুদৃঢ় হচ্ছে তখন তাকে হত্যার হুমকি দেশের অগ্রগতিকে থামিয়ে দেওয়া এবং জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর নেতৃত্বে এবং ৩০ লাখ শহীদের রক্তের বিনিময়ে অর্জিত মহান স্বাধীনতাকে নস্যাৎ করার গভীর ষড়যন্ত্রের অংশ।

প্রগতিশীল শিক্ষক সমাজের আহ্বায়ক সেকেন্দার চৌধুরী বলেন, প্রধানমন্ত্রীকে হত্যার হুমকি একুশ শতাব্দীর মানব সভ্যতা, গণতন্ত্র ও মুক্তবুদ্ধি চর্চার একটা প্রতিবন্ধকতা। প্রধানমন্ত্রী যখন দেশের উন্নতির জন্য নিরন্তর কাজ করে যাচ্ছেন তখন এ ধরনের হুমকি কোনোভাবেই কাম্য নয়।

বিবৃতিতে আরও বলা হয়, আবু সাঈদ ইতিপূর্বেও এ ধরনের মন্তব্য করার পরেও তাকে তার পদে বহাল রাখায় বিএনপির শীর্ষ নেতৃত্বের সুস্পষ্ট ইন্ধন আছে বলে প্রতীয়মান হয়। এ পর্যন্ত শেখ হাসিনাকে ২০০৪ সালের ২১শে আগস্টসহ সর্বমোট ২১ বার হত্যার চেষ্টা করা হয়েছে। তাই আবু সাঈদ চাঁদের এ হুমকিকে নিছক 'স্স্নিপ অফ টাং' হিসেবে নেওয়ার কোনো সুযোগ নেই।

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়

উপরে