কবির জন্মবার্ষিকীতে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান, হয়নি মধুমেলা

কবির জন্মবার্ষিকীতে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান, হয়নি মধুমেলা
মাইকেল মধুসূদন দত্ত

বাংলা সাহিত্যের প্রবাদপুরুষ আধুনিক বাংলা কাব্যের রূপকার অমিত্রাক্ষর ছন্দের জনক ও সনেট প্রবর্তক মহাকবি মাইকেল মধুসূদন দত্তের ১৯৭তম জন্মবার্ষিকী উদযাপিত হয়।

এ উপলক্ষে কবির আবক্ষ প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধাঞ্জলি নিবেদন, আলোচনা সভা, কবিতা আবৃত্তি ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। সোমবার বিকালে যশোর জেলা প্রশাসন কেশবপুরের সাগরদাঁড়ির মধুমঞ্চে এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করে।

কেশবপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার এমএম আরাফাত হোসেনের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন যশোর জেলা প্রশাসক তমিজুল ইসলাম খান। বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন কেশবপুর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান যুদ্ধাহত বীর মুক্তিযোদ্ধা কাজী রফিকুল ইসলাম, উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি এসএম রুহুল আমীন, কেশবপুর থানার অফিসার ইনচার্জ জসীম উদ্দীন, আবু শারাফ সাদেক কারিগরি কলেজের প্রভাষক কানাইলাল ভট্টাচার্য, মধুসূদন একাডেমির পরিচালক এবং কবি ও মধু গবেষক খসরু পারভেজ, সাগরদাঁড়ি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মুস্তাফিজুল ইসলাম মুক্ত। স্বাগত বক্তব্য রাখেন মহাকবির জন্মবার্ষিকী উদযাপন কমিটির আহ্বায়ক ও স্থানীয় সরকার বিভাগ যশোরের উপ-পরিচালক হুসাইন শওকত।

মধুমঞ্চে অনুষ্ঠান শুরুর পূর্বে জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে মহাকবির আবক্ষে শ্রদ্ধাঞ্জলি নিবেদন করেন প্রশাসনসহ বিভিন্ন সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠনের নেতারা। যশোর জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে স্থানীয় সরকার বিভাগ যশোরের উপ-পরিচালক হুসাইন শওকত মহাকবির আবক্ষে শ্রদ্ধাঞ্জলি নিবেদন করেন। পরে একে একে শ্রদ্ধাঞ্জলি নিবেদন করেন কেশবপুর উপজেলা প্রশাসন, উপজেলা পরিষদ, কেশবপুর প্রেসক্লাব, সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোট, লোকজ একাডেমি, চারুপীঠ আর্ট স্কুলসহ বিভিন্ন সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠনের নেতারা।

চলমান বৈশ্বিক মহামারি করোনাভাইরাসের কারণে এবার কবির জন্মভূমি কেশবপুরের সাগরদাঁড়িতে সপ্তাহব্যাপী মধুমেলার আয়োজন করা হয়নি বলে উপজেলা নির্বাহী অফিসার এমএম আরাফাত হোসেন জানান।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

আরও খবর

Copyright JaiJaiDin ©2021

Design and developed by Orangebd


উপরে