উদ্বোধনের অপেক্ষায় দ্বিতীয় পর্যায়ে ভূমি-গৃহহীনদের ঘর

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী-মুজিববর্ষ উপলক্ষে ভূমি ও গৃহহীনদের জন্য প্রধানমন্ত্রীর উপহার হিসেবে দ্বিতীয় পর্যায়ের ঘর নির্মাণ প্রায় শেষ। এখন এগুলো উদ্বোধনের অপেক্ষায় আছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আগামীকাল গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে এসব ঘরের চাবি ও জমির নামজারি খতিয়ান হস্তান্তর কার্যক্রম উদ্বোধন করবেন। দ্বিতীয় পর্যায়ে সারা দেশে ৫৩৩,৩৪০টির মধ্যে বগুড়া, নেত্রকোনা, গাজীপুর, হবিগঞ্জ, ঝিনাইদহ, বাগেরহাট, নাটোর, নেত্রকোনার পূর্বধলা, শেরপুরের নকলা, পটুয়াখালীর মির্জাগঞ্জ ও ময়মনসিংহের গৌরীপুরে ৩,৬১৪টি ভূমি ও গৃহহীন পরিবার এসব ঘর পাচ্ছে। সংশ্লিষ্ট এলাকা থেকে আমাদের আঞ্চলিক স্টাফ রিপোর্টার ও প্রতিনিধিদের পাঠানো তথ্যে
উদ্বোধনের অপেক্ষায় দ্বিতীয় পর্যায়ে ভূমি-গৃহহীনদের ঘর
গাজীপুরে ভূমিহীনদের বাড়ি প্রদান বিষয়ে প্রেসব্রিফিং করেন জেলা প্রশাসক এস এম তরিকুল ইসলাম -যাযাদি

বগুড়ায় সাড়ে আটশ' পরিবার

পাচ্ছে জমিসহ ঘর

\হস্টাফ রিপোর্টার, বগুড়া

দ্বিতীয় পর্যায়ে বগুড়ায় সাড়ে আটশ' ভূমিহীন পরিবার জমিসহ বাড়ি পাচ্ছেন। এর আগে প্রথম পর্যায়েও বগুড়ায় গৃহহীনদের ঘর নির্মাণ করে দেওয়া হয়েছিল। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা রোববার কার্যক্রম উদ্বোধনের মাধ্যমে ভূমিহীন পরিবারগুলো তাদের কাঙ্ক্ষিত স্বপ্নের বাড়ি পাবেন। উপজেলা পর্যায়ে আনুষ্ঠানিকভাবে ভূমিহীনদের হাতে বাড়িগুলো হস্তান্তর করা হবে।

এ উপলক্ষে শুক্রবার বগুড়া জেলা প্রশাসকের সভা কক্ষে এক প্রেস ব্রিফিং করা হয়। এতে বক্তব্য রাখেন জেলা প্রশাসক জিয়াউল হক। উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক মাসুম আলী বেগ, উজ্জ্বল কুমার ঘোষ, আরডিসি ফেরদৌস আরা, এনডিসি জিএম রাশেদুল ইসলাম, সহকারী কমিশনার আশরাফুর রহমান প্রমুখ।

জেলা প্রশাসক জানান, দ্বিতীয় দফায় বগুড়ার ১২টি উপজেলায় মোট ৮৫৭ জন পরিবারকে ঘর হস্তান্তর করা হবে। প্রথম দফায় ১৪৫২ পরিবারকে বাড়ি হস্তান্তর করা হয়েছিল। ১২ উপজেলার মধ্যে বগুড়া সদরে ২২৩, ধুনট উপজেলায় ১২০, আদমদিঘী উপজেলায় ২৫, দুপচাঁচিয়ায় ১৫০, গাবতলীতে ২৫, কাহালুতে ৩০, নন্দীগ্রামে ৮০, সারিয়াকান্দিতে ৫১, শাজাহানপুরে ১৩, শেরপুরে ১৭, শিবগঞ্জে ৭৩ ও সোনাতলা উপজেলায় ৫০ জনকে জমিসহ বাড়ি হস্তান্তর করা হবে।

\হ

নেত্রকোনায় দ্বিতীয় পর্যায়ে

৯২৫ ঘর হস্তান্তর

\হস্টাফ রিপোর্টার, নেত্রকোনা

নেত্রকোনা জেলা প্রশাসনের সার্বিক তত্ত্বাবধানে দ্বিতীয় পর্যায়ে জেলার ১০টি উপজেলায় ৯২৫টি অসহায় পরিবার সেমিপাকা ঘর পাচ্ছে। উপহার হিসেবে পাকা বাড়ি বরাদ্দ পাওয়া ৯২৫টি পরিবারে বইছে আনন্দের বন্যা। দ্বিতীয় পর্যায়ে পাকা ঘর বরাদ্দ পাওয়া অসহায় পরিবারগুলো প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সুস্বাস্থ্য এবং দীর্ঘায়ু কামনা করেছেন।

নেত্রকোনা জেলা প্রশাসক কাজি মো. আবদুর রহমান বলেন, দ্বিতীয় পর্যায়ে নেত্রকোনা সদরে ৪৪টি, দুর্গাপুরে ৩৫, বারহাট্টায় ২৫, কলমাকান্দায় ৫০, আটপাড়ায় ৫০, কেন্দুয়ায় ৫৬, মোহনগঞ্জে ৭৫, মদনে ৮০, খালিয়াজুরীতে ৪০০, পূর্বধলায় ২০টি সেমিপাকা ঘর তৈরি করা হয়েছে। ২০ জুন প্রধানমন্ত্রী দ্বিতীয় পর্যায়ের উপহারের ঘরগুলো বিতরণ উদ্বোধন করবেন। প্রশাসনের পক্ষ থেকে ওইদিনই কাগজপত্র ও জমির দলিল মালিকদের কাছে বুঝিয়ে দেওয়া হবে।

গাজীপুরে ২০২ পরিবার

পাচ্ছে বিনামূল্যে জমি-ঘর

\হগাজীপুর প্রতিনিধি

গাজীপুরে দ্বিতীয় পর্যায়ে ২০২টি ভূমি ও গৃহহীন পরিবারকে ঘর এবং জমি হস্তান্তর করা হচ্ছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে রোববার ওইসব ঘরের চাবি ও জমির নামজারি খতিয়ান হস্তান্তর কার্যক্রম উদ্বোধন করবেন।

শুক্রবার সকালে গাজীপুর জেলা প্রশাসকের কনফারেন্স রুমে এক সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে। জেলা প্রশাসক এসএম তরিকুল ইসলাম, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) মশিউর রহমান, গাজীপুর সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আব্দুলস্নাহ আল জাকী, সদরের সহকারী কমিশনার (ভূমি) তানিয়া তাবাসসুম প্রমুখ সংবাদ সম্মেলনে অংশ নেন। এ সময় জেলা প্রশাসক এসএম তরিকুল ইসলাম বলেন, দুই শতাংশ জমিসহ পাঁচ উপজেলায় দ্বিতীয় পর্যায়ে ২০২ পরিবারকে ঘর প্রদান করা হবে।

\হ

বাগেরহাটে ঘর উপহার

পাবে ৬৪৫ পরিবার

\হবাগেরহাট প্রতিনিধি

বাগেরহাটের নবাগত জেলা প্রশাসক মোহাম্মাদ আজিজুর রহমান বলেছেন, জেলার ৬৪৫ ভূমিহীন পরিবার সরকারের দেওয়া বিনামূল্যে বসতঘর বরাদ্দ পাবে। যা জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী অর্থাৎ মুজিববর্ষের উপহার। প্রধানমন্ত্রী বঙ্গবন্ধুকন্যা শেখ হাসিনা রোববার ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে ঘর প্রদান অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করবেন। জেলার প্রতিটা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার সম্মেলন কক্ষে বসে প্রধানমন্ত্রীর এ অনুষ্ঠান উপভোগসহ কথা বলার সুযোগ রয়েছে। এখানে মুক্তিযোদ্ধা, জনপ্রতিনিধি ও সুধীজনরা উপস্থিত থাকবেন।

শুক্রবার জেলা প্রশাসনের সম্মেলন কক্ষে প্রেস ব্রিফিংয়ে সাংবাদিকদের এ কথা বলেন তিনি। তিনি বলেন, দ্বিতীয় পর্যায়ে জেলায় মোট ৬৪৫টি ঘর বরাদ্দ পাওয়া যায়। ইতোমধ্যে ৪৩৪টির নির্মাণকাজ শেষ হয়েছে। বাকি ২২২টির কাজ চলমান। স্ব-স্ব প্রকল্প বাস্তবায়ন কমিটি মনিটরিং করছে। এর আগে প্রকল্পের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারাও বাগেরহাটের নির্মাণাধীন ঘরগুলো পরিদর্শন করেছেন।

প্রেস ব্রিফিংয়ে স্থানীয় সরকার উপ-পরিচালক দেব প্রসাদ পাল, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) শাহীনুজ্জামান, সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মুহাম্মাদ মোছাব্বেরুল ইসলাম, এনডিসি মো. শাহাজান, প্রেসক্লাব সম্পাদক আব্দুল বাকী তালুকদার, সাবেক সভাপতি আহাদ উদ্দিন হায়দার প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।

\হ

ঝিনাইদহে ৭০৫ গৃহহীন

পরিবার পাচ্ছে ঘর

\হঝিনাইদহ প্রতিনিধি

ঝিনাইদহে দ্বিতীয় পর্যায়ে ১৮৬টি ভূমি ও গৃহহীন পরিবার পাচ্ছে জমিসহ ঘর। শুক্রবার সকালে জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে সাংবাদিক সম্মেলনে এসব তথ্য জানানো হয়। সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন জেলা প্রশাসক মজিবর রহমান, স্থানীয় সরকারের উপ-পরিচালক ইয়ারুল ইসলাম ও অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) সেলিম রেজা। জেলা প্রশাসক জানান, জেলায় মোট ৭০৫টি ভূমি ও গৃহহীন পরিবারকে সরকারি ঘর বরাদ্দ দেওয়া হয়। এর মধ্যে প্রথম পর্যায়ে ৪০৭টি ঘর হস্তান্তর করা হয়েছে। রোববার দ্বিতীয় পর্যায়ে ১৮৬টি ঘর হস্তান্তর করা হবে। বাকি ঘরগুলো নির্মাণাধীন রয়েছে।

হবিগঞ্জে মাথা গোঁজার ঠাঁই পাচ্ছে আরও ৩৫৫ পরিবার

\হহবিগঞ্জ প্রতিনিধি

প্রথম দফায় হবিগঞ্জ জেলায় মাথা গোঁজার ঠাঁই হয়েছে ৭৮৭টি পরিবারের। এবার দ্বিতীয় দফায় আরও ৩৫৫টি পরিবার পাচ্ছে তাদের আপন ঠিকানা। জেলার ৯ উপজেলায় ৩৫৫টি ঘর উপহার হিসেবে উপকারভোগীদের মধ্যে বিতরণ করা হবে। এর মধ্যে আজমিরীগঞ্জ উপজেলায় ৩০টি, চুনারুঘাট উপজেলায় ৪০টি, নবীগঞ্জ উপজেলায় ৬০, বানিয়াচং উপজেলায় ৭০টি, বাহুবল উপজেলায় ৭৩টি, মাধবপুর উপজেলায় ৩০টি, লাখাই উপজেলায় ০৭টি, শায়েস্তাগঞ্জে ১৫টি ও হবিগঞ্জ সদর উপজেলায় ৩০টি। প্রতিটি ঘর নির্মাণে সরকারের খরচ হবে ১ লাখ ৯০ হাজার টাকা। এ ব্যাপারে হবিগঞ্জের জেলা প্রশাসক ইশরাত জাহান বলেন, ঘর নির্মাণে অনিয়ম করলে কাউকে ছাড় দেওয়া হবে না।

\হ

নওগাঁয় ঘর হস্তান্তরে

সংবাদ সম্মেলন

\হনওগাঁ প্রতিনিধি

দ্বিতীয় পর্যায়ে নওগাঁয় ৫০২টি ভূমি ও গৃহহীন পরিবারকে ঘর হস্তান্তর উপলক্ষে সংবাদ সম্মেলন করা হয়েছে। শুক্রবার নওগাঁ সার্কিট হাউসে জেলা প্রশাসনের আয়োজনে জেলা প্রশাসক হারুন-অর-রশীদ এ সংবাদ সম্মেলন করেন। আগামীকাল রোববার সকাল সাড়ে ১০টায় গণভবন থেকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে উপকারভোগী গৃহহীন পরিবারের মধ্যে ঘর হস্তান্তর উদ্বোধন করবেন। সংবাদ সম্মেলনে জেলা প্রশাসক বলেন, বৈরী আবহাওয়ার কারণে ৫০ থেকে ৬০টি ঘরে রঙের কাজ করতে দেরি হচ্ছে। আগামী ২০ জুনের মধ্যে কাজ শেষ হবে বলে তিনি আশাবাদী।

সংবাদ সম্মেলনে স্থানীয় সরকার বিভাগের উপ-পরিচালক উত্তম কুমার রায়, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক ইব্রাহিম হোসেন, সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মির্জা ইমাম উদ্দিন, সহকারী কমিশনার ও এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট রফিকুল ইসলাম ও ফারাহ ফাতেহা তাকমিলাসহ অন্যান্য কর্মকর্তা ও কর্মচারী উপস্থিত ছিলেন।

জেলা প্রশাসকের কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে, জেলার ১১টি উপজেলার মধ্যে সদর উপজেলায় ১০টি, বদলগাছীতে ৯টি, মহাদেবপুরে ৭৬টি, আত্রাইয়ে ১০টি, রানীনগরে ৩৩টি, মান্দায় ২১টি, পত্নীতলায় ১১৭টি, ধামইরহাটে ২০টি, পোরশায় ৭১টি, নিয়ামতপুরে ৭৫টি এবং সাপাহারে ৬০টি ঘর রয়েছে।

\হ

মির্জাগঞ্জে ২২৫ পরিবারের

জন্য প্রস্তুত স্বপ্নের ঠিকানা

\হমির্জাগঞ্জ (পটুয়াখালী) প্রতিনিধি

মুজিব শতবর্ষ উপলক্ষে পটুয়াখালীর মির্জাগঞ্জ উপজেলার ৬টি ইউনিয়নে দ্বিতীয় পর্যায়ে ২২৫টি ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবার পাচ্ছে প্রধানমন্ত্রীর উপহারস্বরূপ নতুন পাকা ঘর। শুক্রবার উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা তানিয়া ফেরদৌস অফিস কক্ষে প্রেস ব্রিফিংয়ে সাংবাদিকদের এ তথ্য জানান। সারাদেশের সঙ্গে এ এলাকার ২২৫টি ঘর উদ্বোধন করা হবে। এছাড়াও এই উপজেলার সন্তান সংযুক্ত আরব আমিরাতের রাষ্ট্রদূত আবু জাফর ও জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তরের প্রকল্প পরিচালক শামছুল আলম ব্যক্তিগত উদ্যোগে ও নিজস্ব অর্থায়নে নির্মিত দুটি ঘর দুই গৃহহীনকে প্রদান করবেন। ব্রিফিংয়ে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কার্যালয়ের উপ-সহকারী প্রকৌশলী জাহিদুল হক।

\হ

নকলায় আরও ৪২ পরিবার

পাচ্ছে জমি ও বাড়ি

\হনকলা (শেরপুর) প্রতিনিধি

ভূমি ও গৃহহীন পরিবারকে জমি ও গৃহ প্রদানের উদ্বোধন উপলক্ষে শেরপুরের নকলায় সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে। বৃহস্পতিবার বিকালে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জাহিদুর রহমান তার কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলন করে এ তথ্য জানিয়েছেন। এ সময় সহকারী কমিশনার (ভূমি) কাওছার আহম্মেদ, প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা জাহাঙ্গীর আলম, নকলা প্রেসক্লাবের সভাপতি হারুনুর রশিদ, সাধারণ সম্পাদক শফিউল আলম লাভলু, সিনিয়র সাংবাদিক শাহাজাদা স্বপন, জাহাঙ্গীর হোসেন আহম্মেদ, মোশারফ হোসেনসহ স্থানীয় সাংবাদিকরা উপস্থিত ছিলেন।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জাহিদুর (ইউএনও) রহমান বলেন, প্রথম পর্যায়ে এ উপজেলায় ৫৮টি পরিবারকে জমিসহ ঘর প্রদান করা হয়েছে। দ্বিতীয় পর্যায়ে আর ৪২টি পরিবারকে এসব ঘর প্রদান করা হবে। ইতোমধ্যে বন্দোবস্তকৃত দুই শতাংশ খাস জমির কবুলিয়ত ও নামজারিসহ আনুষঙ্গিক কার্যক্রম শেষ হয়েছে। ৪২টি ঘরের মধ্যে টালকি ইউনিয়নের জামতলীতে ৬টি এবং চন্দ্রকোনা ইউনিয়নে বাছুর আগলী ও চকবড়ইগাছীতে ৩৬টি।

\হ

গৌরীপুরে বরাদ্দকৃত ঘর

উদ্বোধনের প্রেসব্রিফিং

\হগৌরীপুর (ময়মনসিংহ) প্রতিনিধি

দ্বিতীয় পর্যায়ের উদ্বোধন উপলক্ষে ময়মনসিংহের গৌরীপুর উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে প্রেস ব্রিফিং করা হয়েছে। উপজেলা পরিষদের কনফারেন্স রুমে বৃহস্পতিবার এ প্রেস ব্রিফিং অনুষ্ঠিত হয়।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা হাসান মারুফের সভাপতিত্বে এতে বক্তব্য রাখেন- গৌরীপুর সহকারী কমিশনার (ভূমি) আবিদুর রহমান, উপজেলা প্রকৌশলী আবু সালেহ মো. আব্দুল ওয়াহেদ, প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা সোহেল রানা পাপ্পু, গৌরীপুর প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি শফিকুল ইসলাম মিন্টু, সদস্য সচিব মশিউর রহমান কাউসার, ত্রাণ ও দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা বিভাগের উপ-সহকারী প্রকৌশলী মাহফুজুর রহমান প্রমুখ। দ্বিতীয় ধাপে গৌরীপুরে ২৫ পরিবার এ উপহার পাচ্ছে। উপজেলার ভাংনামারী ইউনিয়নে ১০, ২নং গৌরীপুর ইউপিতে ০৮, সহনাটি ০২, মইলাকান্দা ০১ ও মাওহা ইউনিয়নে ০৪টি। ইউএনও হাসান মারুফ জানান- গৌরীপুরে ইতোমধ্যে ১৭টি ঘর নির্মাণ শেষ হয়েছে। বৃষ্টির কারণে মাটি নরম থাকায় ৮টি ঘর পরে নির্মাণ করে সুবিধাভোগীদের কাছে হস্তান্তর করা হবে।

\হ

বকশীগঞ্জে ঘর উদ্বোধন

উপলক্ষে প্রেসব্রিফিং

\হবকশীগঞ্জ (জামালপুর) প্রতিনিধি

জামালপুরের বকশীগঞ্জে দ্বিতীয় পর্যায়ে সরকারি খাস জমিতে প্রধানমন্ত্রীর আশ্রয়ণ-২ প্রকল্পের আওতায় ভূমিহীন ও গৃহহীনদের জন্য নির্মিত সরকারি ঘর উদ্বোধন উপলক্ষে প্রেস ব্রিফিং করেছেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) মুন মুন জাহান লিজা। শুক্রবার নিজ কার্যালয়ে প্রেস ব্রিফিং করে ঘরগুলোর কাজের অগ্রগতি, গুণমান ও সার্বিক পরিস্থিতি গণমাধ্যমকর্মীদের সামনে তুলে ধরেন ইউএনও মুন মুন জাহান লিজা। এ সময় সহকারী কমিশনার (ভূমি) স্নিগ্ধা দাসসহ স্থানীয় গণমাধ্যমকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

ইউএনও মুন মুন জাহান লিজা প্রেস ব্রিফিংয়ে জানান, আগামী ২০ জুন সারাদেশের মতো বকশীগঞ্জ উপজেলায় ৫০টি পরিবারের জন্য নির্মিত সরকারি ঘর উদ্বোধন করা হবে। প্রধানমন্ত্রীর উদ্বোধনের পর আনুষ্ঠানিকভাবে উপকারভোগীদের ঘর ও জমির দলিল হস্তান্তর করা হবে। তিনি আরও জানান- 'আশ্রয়ণের অধিকার, শেখ হাসিনার উপহার' সেস্নাগান নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর অগ্রাধিকার আশ্রয়ণ-২ প্রকল্পের আওতায় 'ক' শ্রেণির ভূমিহীন অর্থাৎ যাদের জমিও নেই ঘরও নেই তাদের পুনর্বাসনের জন্য দ্বিতীয় পর্যায়ে ৫০টি পরিবারের জন্য গৃহ নির্মাণ করা হয়েছে।

দুই শতাংশ খাস জমিতে এক লাখ ৯০ হাজার টাকা ব্যয়ে দুই কক্ষবিশিষ্ট আধাপাকা ঘরের সঙ্গে বারান্দা, রান্নাঘর ও সংযুক্ত টয়লেট নির্মাণ করা হয়েছে। তবে ঘরের উচ্চতা প্রথম পর্যায়ের ঘরের চেয়ে এক ফুট বাড়ানো হয়েছে। ৩টি দরজার পরিবর্তে নতুন ডিজাইনে ৪টি করে দরজা দেওয়া হয়েছে।

দ্বিতীয় পর্যায়ে বিভিন্ন ক্যাটাগরির মানুষ এবার ঘরের সুবিধা পাচ্ছেন। এর মধ্যে পিছিয়ে পড়া জনগোষ্ঠী রবিদাস সম্প্রদায়, তৃতীয় লিঙ্গের মানুষ, প্রতিবন্ধী, বিধবা, স্বামী পরিত্যক্তা নারী, বৃদ্ধাদের অগ্রাধিকার দেওয়া হয়েছে।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

আরও খবর

Copyright JaiJaiDin ©2021

Design and developed by Orangebd


উপরে