ভোগান্তী উপেক্ষা করে ঢাকা ছুটতে মানুষ

ভোগান্তী উপেক্ষা করে ঢাকা ছুটতে মানুষ

চলমান কঠোর লকডাউনের মাঝেও কলকারখানা খোলার ঘোষনায় মহাসড়কে বেড়েছে মানুষের চলাচল। শনিবার সকাল থেকেই ঝিনাইদহ শহরের কেন্দ্রীয় বাস টার্মিনালে ঢাকাগামী যাত্রীদের ভীড় দেখা যায়। বেলা বাড়ার সাথে সাথে বাড়তে থাকে ভীড়। বিভিন্ন স্থান থেকে ট্রাক, ইজিবাইক, ভ্যান ও রিক্সা যোগে টার্মিনালে এসে হাজির হচ্ছে তারা। গণপরিবহন বন্ধ থাকায় বিপাকে পড়েছের এসব কর্মজীবী মানুষ। কাজে যোগ দিতে ইজিবাইক, মাহেন্দ্রসহ ছোট ছোট যানে ঢাকায় ফিরতে হচ্ছে তাদের। এক জেলা থেকে অন্যজেলায় গিয়ে সেখান থেকে নতুন বাহনে ছুটছেন তারা। যাত্রীদের অতিরিক্ত চাপের সুযোগে ইচ্ছেমতো ভাড়া আদায় করছে এসব যানবাহনের চালকরা। কয়েকগুন বেশি ভাড়া গুনতে হচ্ছে তাদের। যানবাহন না পেয়ে অনেককে বসে থাকতে দেখা গেছে।

ঝিনাইদহ থেকে ঢাকাগামী রাশেদুল ইসলাম নামের এক যাত্রী বলেন, আগামীকালকে থেকে অফিস খোলা। অফিস তো যেতেই হবে। সেই কারণে বাচ্চা-কাচ্চা নিয়ে অনেক কষ্ট-দুর্ভোগ করে সিএনজি, অটোরিকসা করে যাওয়া হচ্চে। ফ্যাক্টারী খোলা ঠিক আছে তবে গাড়ীগুলো যদি খুলে দিত তাহলে আমাদের ভোগান্তি হত না।

এদিকে যশোরের অভয়নগর থেকে আসা আব্দুল্লাহ নামের এক যাত্রী বলেন, ঢাকার উদ্দেশ্যে রওনা হয়েছি। আমি আছি আমার ওয়াইফ আছে। ১০ টাকার ভাড়া ১০০ টাকা নিচ্ছে তারপরও গাড়ী পাচ্ছি না। খুবই বিপদে আছি।

চুয়াডাঙ্গার জীবননগর থেকে আসা নাজমুল হোসেন নামের এক যাত্রী বলেন, সরকার জনগণের কথা কখনো চিন্তাই করে না। আমাদের কথা যদি ভাবতো তাহলে গাড়ী চালু করতো। গাড়ী বন্ধ করে গার্মেন্টস খুলে দেওয়া কোন ভাবেই উচিত হয়নি। মানুষকে এভাবে ভোগান্তী দেওয়া ঠিক না।

এ ব্যাপারে ঝিনাইদহ ট্রাফিট ইন্সপেক্টর সালাহউদ্দিন বলেন, সকাল থেকে টার্মিনালে মানুষের উপস্থিতি বেড়েছে। তারা ছোট ছোট যানবাহনে বিভিন্ন এলাকা থেকে মানুষ আসছে, আবার বিভিন্ন ছোট ছোট অবৈধ যাত্রীবাহি গাড়িতে ঢাকার উদ্দ্যেশ্যে চলে যেতে দেখছি।

যাযাদি/এস

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

আরও খবর

Copyright JaiJaiDin ©2021

Design and developed by Orangebd


উপরে