মঙ্গলবার, ০৭ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ২৪ মাঘ ১৪২৯
walton1

বেনাপোলে নতুন পিসি যোগদানে বন্দর এলাকায় শৃঙ্খলা ফিরেছে

বেনাপোল প্রতিনিধি
  ০৭ ডিসেম্বর ২০২২, ১৮:০৩

জননিরাপত্তা রক্ষার ক্ষেত্রে অশুভ শক্তিকে পরাজিত করতে বাংলাদেশ আনসার বাহিনী অত্যান্ত সততা, দক্ষতা ও আন্তরিকতার সাথে কাজ করে যাচ্ছে। এছাড়া দেশের প্রায় ৫০ হাজার আনসার সদস্য সরকারি - বেসারকারী বিভিন্ন স্থাপনা ও প্রতিষ্ঠানে নিরাপত্তা বিধান করে অর্থনীতির চাকা সচল রাখতে অনন্য ভুমিকা পালন করছেন। দেশ ও জনপদকে নিরাপদ রাখতে এ বাহিনী দেশের জন্য নিরালস পরিশ্রম করে যাচ্ছেন।

তবে দুই একজন অদক্ষ আনসার সদস্যর জন্য অনেক কাজে ক্ষতিগ্রস্থ হয়। তেমনি বেনাপোল স্থল বন্দরে নিয়োজিত পর পর দুই জন আনসার সদস্যর কারনে অনেক অনিয়ম হয়েছে বলে বাতাসে ও গুঞ্জন রয়েছে। ওই দুই জন হলেন বেনাপোল স্থল বন্দরের পিসি কাকন ও পল্টু রায়। এদের মেয়াদ কাল পুর্ণ হওয়ার আগে এরা নিজেদের অদক্ষতা প্রমান করে বদলী হয়েছে। অভিযোগ রয়েছে নিজ আনসার সদস্যদের শুশৃংখল ভাবে দিক নির্দেশনা প্রমানিত হওয়ার পর শাস্তি যোগ্য বদলী হয়েছে ওই দুই প্লাটুন কর্মকর্তার। এরা বন্দরের প্রতিগেটে এবং আন্তর্জাতিক যাত্রী টার্মিনালের গেটে  দায়িত্বে থাকা আনসার সদস্যদের দিক নির্দেশনার অভাবে অনেক বদনাম রটিয়েছে বাহিনীর নামে। তারই কারনে অবশেষে মেয়াদের আগে বদলী হয়েছে।

তবে এর এর আগে দেখা গেছে বেনাপোল স্থল বন্দরে  ২০১৯ সালে পিসি সাকিব খান এবং ২০২১ সালেি ্পসি আবুল কালাম আজদ অত্যান্ত দক্ষতা, নিষ্ঠা ও আন্তরিকার সাথে পুরো স্থল বন্দর এলাকায় কাজ করে দেশী বিদেশী পর্যটকদের কাছে সুনাম অর্জন করেছে। আর সেই সুনাম ছড়িয়েছে সমগ্র আনসার বাহিনীর সদস্য ও কর্মকর্তাদের। ২০২২ সালের জানুয়ারী থেকে ঢিলে ডালা ভাবে বেনাপোল স্থল বন্দরের প্লাটুন কমান্ডারদের  (পিসি) অদক্ষতা খামখেয়ালীপনার কারনে সাধারন সদস্যরা জড়িয়ে পড়ে দুর্নীতির সাথে। স্থল বন্দরের আমদানিকৃত পণ্য চুরি এবং ভারত গমন পাসপোর্ট যাত্রীদের গমনাগমন এর সময় আগে পিছে প্রবেশ এর সময় অর্থ বানিজ্যর সাথে জড়িয়ে অনেক সুনামক্ষুন্ন করেছে গোটা বাহিনীর।

তবে সম্প্রতি ২০১৯ সালে কর্মরত প্লাটুন কমান্ডার পুনরায় বেনাপোল স্থল বন্দরে যোগদান এর পর গোটা বন্দর এলাকায় স্বস্তি ফিরে এসেছে। বেনাপোল বন্দর এলাকায় ঘুরে দেখা গেছে স্থল বন্দরের গেটে নিয়োজিত আনসার সদস্যরা প্রতিটি বহিরাগত অপরিচিত লোকদের জিজ্ঞাসাবাদ এবং পরিচয় নেওয়ার পর প্রবেশ করবে কি না তা যাচাই বাছাই করছে। আবার চেকপোষ্ট যাত্রী টার্মিনালে দেখা গেছে একের পর এক লাইন মেইন্টেন করে তারা প্রবেশ করাচ্ছে ইমিগ্রেশন ও কাস্টমসে। যাত্রীরা ও সুশৃঙ্খল ভাবে দাড়িয়ে প্রবেশ করছে। এর আগে যে সব অনিয়ম দুর্নিতী হয়েছে তা থেকে বেরিয়ে আসতে পেরে বেজায় খুশি যাত্রীরা।

স্থল বন্দরের আনসার সদস্যদের মধ্যে এরকম পরিবর্তনের কারন জানতে চাইলে তারা জানায় নতুন পিসি য্গোদানের পর সতর্ক করে দিয়েছে তাদের দায়িত্ব সঠিক ভাবে করতে না পারলে বাড়ি চলে যেতে হবে। যার কারনে রাতারাতি চাকুরী বাঁচাতে এরকম কাজ করতে হচ্ছে।

যাযাদি/মনিরুল

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়

উপরে