বৃহস্পতিবার, ২৩ মে ২০২৪, ৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১

ফরিদপুরে মধুমতির ভাঙন এলাকা পরিদর্শনে পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়ের প্রতিনিধি দল

ফরিদপুর প্রতিনিধি
  ১৯ মার্চ ২০২৩, ১১:২০
ফরিদপুরে মধুমতির ভাঙন এলাকা পরিদর্শনে পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়ের প্রতিনিধি দল

ফরিদপুরের মধুখালী ও আলফাডাঙ্গা উপজেলায় মধুমতি নদীর ভাঙন এলাকা পরিদর্শন করেছেন পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়ের একটি প্রতিনিধি দল। আজ শনিবার সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত তারা মধুখালী উপজেলার কামারখালি ও সালামতপুর এবং আলফাডাঙ্গার বাঁশতলা, দিগনগর খেয়াঘাট সহ বিভিন্নস্থানে প্রায় ৮ কিলোমিটার ভাঙ্গনকবলিত এলাকা পরিদর্শন করেন।

পরিকল্পনা কমিশনের কৃষি, পানি সম্পদ ও পল্লী প্রতিষ্ঠান বিভাগের সচিব একেএম ফজলুল হকের নেতৃত্বে এসময় অন্যান্যের সাথে পানি উন্নয়ন বোর্ডের অতিরিক্ত প্রধান প্রকৌশলী মো. শাহজাহান সিরাজ, অতিরিক্ত সচিব ছায়েদুজ্জামান, যুগ্ম সচিব ড. অঞ্জন কুমার দেব রায়, পাউবোর তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী মো.

সাহিদুল ইসলাম, নির্বাহী প্রকৌশলী পার্থ প্রতিম সাহা, মধুখালী উপজেলা নির্বাহী অফিসার আশিকুর রহমান চৌধুরী, আলফাডাঙ্গা উপজেলা নির্বাহী অফিসার, রফিকুল হক সহ সরকারি কর্মকর্তাগণ উপস্থিত ছিলেন।

এসময় পরিকল্পনা কমিশনের সচিব একেএম ফজলুল হক বলেন, মধুমতির ভাঙ্গনের বাস্তব অবস্থা খুবই ভয়াবহ৷ বর্ষা মৌসুমে ভাঙ্গনের তীব্রতা আরো ভয়াবহ আকার ধারণ করবে। এ ব্যাপারে স্থানীয় সংসদ সদস্য একটি প্রকল্প জমা দিয়েছেন। সেখানে তিনি বলেছেন, এলাকার মানুষের বাড়িঘর, ফসলি জমি, স্কুল-কলেজ এমনকি সরকারের আশ্রয়ণ প্রকল্প ঝুঁকির মধ্যে রয়েছে। আমরা সেটি দেখতেই আজ সরেজমিনে এসেছি। এসময় ভাঙ্গনরোধে কার্যকর পদক্ষেপ নেয়া হবে বলে তিনি জানান।

এর আগে প্রতিনিধি দলের সদস্যরা সালামতপুর গ্রামে বীরশ্রেষ্ঠ মুন্সি আব্দুর রউফ স্মৃতি জাদুঘর ও গ্রন্থাগার পরিদর্শন করেন। এসময় বীরশ্রেষ্ঠ মুন্সি আব্দুর রউফের বোন হাজেরা বেগম সহ অন্যান্যরা উপস্থিত ছিলেন। স্থানীয়রা এসময় ভাঙ্গনের ঝুঁকি থেকে বীরশ্রেষ্ঠ জাদুঘর ও তার গ্রাম রক্ষার জোর দাবি জানান। এছাড়া দুপুরে আলফাডাঙ্গার পাচুরিয়া ইউনিয়নের বাঁশতলা এলাকায় ভাঙ্গনকবলিতদের কথা শুনেন প্রতিনিধি দলের সদস্যরা। সাধারণ গ্রামবাসী এসময় ফি বছর মধুমতির ভাঙ্গনে তাদের দুঃখ-দুর্দশার চিত্র তুলে ধরেন।

যাযাদি/ এসএম

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়