মঙ্গলবার, ২৮ মে ২০২৪, ১৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১

ফরিদপুরে বাস-পিকআপ সংঘর্ষে নিহত ১৩

ফরিদপুর প্রতিনিধি
  ১৬ এপ্রিল ২০২৪, ০৯:৩৩
আপডেট  : ১৬ এপ্রিল ২০২৪, ১২:৩৯
ছবি-যায়যায়দিন

ফরিদপুরে যাত্রীবাহী বাস ও পিকআপ ভ্যানের মুখোমুখি সংঘর্ষে একই পরিবারের পাঁচজনসহ নিহত হয়েছে ১৩ জন । এদের মধ্যে নারী ও শিশু রয়েছে। এ ঘটনায় আহত হয়েছে আরো কমপক্ষে ১৫ ব্যক্তি । নিহতরা সকলেই পিকআপ ভ্যানের যাত্রী ।

মঙ্গলবার সকাল পৌনে আটটার দিকে ঢাকা-খুলনা মহাসড়কে ফরিদপুর সদরের কানাইপুরের তেঁতুলতলা এলাকায় এই দুর্ঘটনা ঘটে। খবর পেয়ে স্থানীয়দের সঙ্গে নিয়ে ফায়ার সার্ভিস, হাইওয়ে পুলিশ ও জেলা পুলিশের সদস্যরা উদ্ধার কাজ শুরু করে। এসময় ঘটনাস্থলেই পিকআপ ভ্যানের চালকসহ ১১ জন নিহত হয়। পরে আহতদের উদ্ধার করে ফরিদপুর বঙ্গবন্ধু মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হলে সেখানে আরো দুই জনের মৃত্যু হয়।

ঢাকা থেকে মাগুরাগামী ইউনিক পরিবহনের সঙ্গে ফরিদপুরের আলফাডাঙ্গা থেকে আসা একটি পিকআপ ভ্যানের মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়।

খবর পেয়ে ঘটনাস্থল ও হাসপাতালে ছুটে যান ফরিদপুরের জেলা প্রশাসক মো. কামরুল আহসান তালুকদার ও পুলিশ সুপার মোহাম্মদ মোর্শেদ আলম। এ ঘটনায় পাঁচ সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। নিহত প্রত্যেকের পরিবারকে ৫ লাখ টাকা ও আহতদের প্রত্যেককে ৩ লাখ টাকা দেওয়ার ঘোষণা দেন জেলা প্রশাসক।

এক পরিবারের নিহত পাঁচজন হলেন ফরিদপুরের বোয়ালমারীর বেজিডাঙ্গা গ্রামের রফিক মোল্লা (৩৫), তাঁর স্ত্রী সুমি বেগম (২৩), দুই ছেলে রুহান মোল্লা (৬), হাবিব মোল্লা (৩) ও মা। রফিক ঢাকায় একটি সরকারি অফিসে লিফটম্যান হিসেবে কর্মরত ছিলেন। ঈদের ছুটি শেষ করে তিনি মা, স্ত্রী ও দুই ছেলেকে নিয়ে পিকআপ ভ্যানে করে ঢাকায় যাচ্ছিলেন। নিহত অপরদের পরিচয় পাওয়া যায়নি ।

নিহতের স্বজনরা জানান, বাসে সিট না পেয়ে পিকআপ ভ্যান ভাড়া করে সকলেই বাড়ী থেকে সকালে বের হয়ে ফরিদপুরের উদ্দেশ্যে রওনা দেন ।

ফরিদপুরের জেলা প্রশাসক কামরুল আহসান তালুকদার জানান, খবর পেয়েই আমরা ছুটে এসেছি। অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেটকে প্রধান করে পাঁচ সদস্যের তদন্ত টিম গঠন করা হয়েছে। এছাড়া নিহতদের পরিবারের সদস্যদের জন্য ৫ লাখ এবং আহতদের পরিবারের জন্য ৩ লাখ টাকা ঘোষণা করা হয়েছে।

ফরিদপুরের জেলা পুলিশ সুপার মোরশেদ আলম জানান, সড়কে আমাদের চলাচলে আরো সচেতন হতে হবে, তা না হলে থামবে না মৃত্যুর মিছিল। শুধু যাত্রীদেরেই নয় মালিক ও শ্রমিকদের বড় ভূমিকা রাখতে হবে।

এই ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী কানাইপুরের দিগনগর গ্রামের বাসিন্দা সাহানা বেগম বলেন, ঘটনাস্থলে আসার পর বাসটির একটি চাকা রাস্তার গর্তে পড়ে যায়। গাড়িটি আড়াআড়িভাবে সড়কের ওপর দাঁড়িয়ে যায়। এ সময় পিকআপ ভ্যানটি বাসটির মাঝামাঝিতে এসে আঘাত করলে এই দুর্ঘটনা ঘটে।

ফরিদপুর কোতয়ালী থানার ওসি হাসানুজ্জামান জানান, লাশের সুরত হালের পরে আমার পরিচয় সনাক্ত করে পরিবারের কাছে হস্তান্তরের প্রক্রিয়া চলছে।

যাযাদি/ এসএম

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়
X
Nagad

উপরে