শুক্রবার, ১২ জুলাই ২০২৪, ২৮ আষাঢ় ১৪৩১

ভরপাশা ইউনিয়ন এখন ময়লার ভাগার, স্বাস্থ্য ঝুঁকিতে ১০ হাজার মানুষ 

বাকেরগঞ্জ (বরিশাল) প্রতিনিধি
  ১৩ জুন ২০২৪, ১৮:৪৮
ছবি-যায়যায়দিন

বরিশাল বাকেরগঞ্জে ঐতিহ্যবাহী ইউনিয়ন ১১ নং ভরপাশা ইউনিয়ন এখন ময়লার ভাগারে পরিনত হয়েছে, ভরপাশা ইউনিয়নের বাসিন্দারা রয়েছেন চরম স্বাস্থ্য ঝুঁকিতে, ভৌগলিক অবস্থান থেকে বরিশালের দক্ষিণ দিকে বাকেরগঞ্জ উপজেলার অবস্থান, ভরপাশা ইউনিয়ন বাকেরগঞ্জ উপজেলা থেকে দুই কিলোমিটার দক্ষিণ দিকে,ইউনিয়নের মাঝখানে থেকে চলে গেছে বরিশাল পটুয়াখালী মহাসড়ক।

এই ইউনিয়নের তিন দিকেই প্রবাহমান নদী বয়ে গেছে। কৃষি কাজ, মৎস্য চাষ, গবাদি পশু পালন করে জীবিকা নির্বাহ করেন অসংখ্য মানুষ। সরকারি বেসরকারি চাকুরীজীবী রয়েছেন অনেক।

সবকিছু মিলিয়ে সুখী সমৃদ্ধ ও শান্তিপূর্ণ বসাবাস করে আসছেন সাধারণ মানুষ স্বাধীনতার পর থেকেই। বর্তমানে ভরপাশা ইউনিয়নের সাধারণ মানুষকে অত্যন্ত কষ্টের মাঝে দিনাতিপাত করতে হচ্ছে, ২০১৮ সালে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নামে নামকরণ করণ করে শুরু হয় শেখ হাসিনা সেনানিবাসের কার্যক্রম, প্রথম দিকেই অবকাঠামো নির্মাণ কাজের জন্য বন্ধ করে দেয়া হয় ইউনিয়নের অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ কৃষিনির্ভর পোরাসৌলা খাল, এই ঐতিহ্যবাহী খালের দুই পাড়ে বসাবাস করেন ০২ ০৪, ০৫ ও ০৬ নং ওয়ার্ডের প্রায় ১২ হাজার মানুষ, বসবাসকারী অধিকাংশ মানুষ কৃষি কাজ ও মৎস্য আহরণ করে জীবিকা নির্বাহ করে। পোরাসৌলা খাল বন্ধ হওয়ার কারনে কচুরিপানা জমে ও রাসায়নিক পদার্থ মিসে ব্যাবহারের অনুপযোগী হয়ে পড়েছে পানি। ভয়াবহ পরিবেশ বিপর্যয়ের আশঙ্কা করছেন সাধারণ মানুষ।

অপরদিকে এ চার ওয়ার্ডে কয়েক হাজার সেনাবাহিনী সদস্য ভাড়া থাকেন পরিবারের সদস্যদের নিয়ে। সেনাসদস্যদের পরিবারের ময়লা আবর্জনা ফেলার নির্দিষ্ট কোন যায়গা না থাকায় যত্রতত্র ময়লা আবর্জনা ফেলে আসছেন বেশকয়েক বছর,

যার ফলে ভরপাশা ইউনিয়নের কৃষ্ণকাঠী, দুধলমৌ সহ ৪-৬ টি ওয়ার্ড এর সাধারণ মানুষ চরম স্বাস্থ্য ঝুঁকিতে রয়েছেন।

বরিশাল পটুয়াখালী মহাসড়কের পাশে দাদুর হাট বাজারের চার পাশে প্রতিটি খাল এখন ময়লার ভাগারে পরিনত হয়েছে।

এসব কারণে বায়ু ও পানি দুশিত হয়ে অসুস্থ হয়ে হাসপাতালে যেতে হয়েছে অনেক মানুষ কে, এই অস্বাস্থ্যকর পরিবেশ ও ভয়াবহ স্বাস্থ্য ঝুঁকিতে থাকা মানুষের খোঁজ খবর নিচ্ছেন না কেউ, সাধারণ মানুষের দাবী বাকেরগঞ্জ উপজেলা প্রশাসন ও সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের কাছে দ্রুত বিষয়টি খতিয়ে দেখে ব্যবস্থা গ্রহণ করে পরিবেশ বিপর্যয়ের হাত থেকে ভরপাশা ইউনিয়নের সাধারণ মানুষকে বাঁচাতে উদ্বেগ নেয়া।

এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ সাইফুর রহমান কে প্রশ্ন করলে যায়যায়দিন কে জানান এমন ভয়াবহ পরিস্থিতি হয়েছে তা আমার জানা ছিল না, তবে যত দ্রুত সম্ভব উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের কাছে জানানো হবে এবং এই পরিস্থিতি মোকাবেলায় বাকেরগঞ্জ উপজেলা প্রশাসন থেকে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

যাযাদি/ এম

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়

উপরে