শুক্রবার, ১৯ জুলাই ২০২৪, ৪ শ্রাবণ ১৪৩১

নাজিরপুরে জমজমাট পশুর হাট, মাঝারি গরুর বিক্রি বেশি

নাজিরপুর, পিরোজপুর প্রতিনিধি
  ১৫ জুন ২০২৪, ১৯:৫৫
ছবি যাযাদি

পিরোজপুর জেলার নাজিরপুর উপজেলার সব চেয়ে বড় বাজার দিঘীরজান বাজার । দুই জেলার মিলনস্থান হওয়ায় এ বাজারে বসে বিশাল পশুর হাট। আজ শনিবার কুরবানি ঈদের শেষ হাট ফলে ক্রেতা–বিক্রেতায় জমেছে দিঘীরজান বাজারের এই পশুর হাট। হাটে বিভিন্ন দামে বিক্রি হচ্ছে বিভিন্ন জাতের গরু।

তবে হাটে মাঝারি আকারের গরু বেশি দেখা গেছে। হাটে বড় গরুর তুলনায় ছোট ও মাঝারি গরুর চাহিদাও বেশি। এই গরুগুলো বেশি বিক্রি হচ্ছে।

তবে দাম নিয়ে পরস্পরবিরোধী মন্তব্য করছেন ক্রেতা-বিক্রেতারা। ক্রেতারা বলছেন, ‘দাম বেশি।’ বিক্রেতারা বলছেন, ‘হাটে গরু রয়েছে। তবে ক্রেতারা দাম বলতে চাচ্ছে না। হাটে তুলনামূলক মাঝারি আকারের গরুগুলো বেশি বিক্রি হচ্ছে।’

আজ শনিবার (১৫ জুন ) উপজেলার দিঘীরজান বাজার পশুর হাট ঘুড়ে এমন চিত্র দেখা গেছে।

হাটে গিয়ে দেখা গেছে, মাঝারি আকারের গরুর মধ্যে দামের দিক থেকে ৮০ হাজার থেকে ১ লাখ ২০-৩০ হাজার টাকা গরুর চাহিদা বেশি।

এর মধ্যে ৬০ থেকে ৭০ হাজার টাকা দামের গরুগুলো একজন বা দুজনে নিচ্ছেন কোরবানির জন্য। আবার ১ লাখ ২০-৩০ হাজার টাকা দামের গরু ৫ থেকে ৭ ভাগে কোরবানির জন্য কিনছেন ক্রেতারা।

নাজিরপুর উপজেলার ৬নং নাজিরপুর ইউনিয়নের ৩নং ওয়ার্ডের ইউ, পি সদস্য আবদুল তিতাস মেম্বর একটি ষাঁড় বিক্রির জন্য হাটে নিয়ে এসেছেন। দাম হাঁকাচ্ছেন ২ লাখ ২০ হাজার টাকা। তবে দামে না হওয়ায় ষাঁড়টি বিক্রি করতে পারেননি বলে জানান তিনি।

আরেক গরু বিক্রেতা গোলাম মোস্তফা বলেন, গরুর বাজার ভালো না। বাজারে গরুর গোশতের দাম বেশি। কিন্তু হাটে গরুর দাম কম। বাজারে গরুর গোশত ৭৫০ টাকা কেজি। সেই হিসাবে এক মণ গোশতের দাম পড়ছে ৩০ হাজার। অনেকেই এই টার্গেটের কম দাম বলছেন।

হাটে নাজিরপুর উপজেলার গরু ক্রেতা রাকিবুল ইসলাম বলেন, হাটে গরুর দাম তুলনামূলক বেশি। এক লাখ ও দেড় লাখ টাকা দামের গরুগুলো বেশি বিক্রি হচ্ছে। ছোট ও মাঝারি আকারের এই গরুগুলোর চাহিদা বেশি। এই গরুগুলো বেশি বিক্রি হচ্ছে। তাঁরা সাত ভাগে কোরবানি দেবেন। তাই একটা গরু তাঁরা কিনেছেন ১ লাখ ২০ হাজার টাকায়। গরুটির ওজন হবে প্রায় সাড়ে ৩ মণ।

দিঘীরজান হাটের ইজারাদার নিজাম মৃধা ও লোকমান হা‌কিম মিরু বলেন ‘হাটে ছোট ও মাঝারি গরুর চাহিদা বেশি। এক লাখ থেকে ১ লাখ ২০-৪০ হাজার টাকা দামের গরুগুলো বেশি বিক্রি হচ্ছে। হাটে পর্যাপ্ত কোরবানির পশু উঠেছিল। কেনাবেচা ভালো হয়েছে।’

যাযাদি/এসএস

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়

উপরে