logo
রোববার ১৮ আগস্ট, ২০১৯, ৩ ভাদ্র ১৪২৬

  বিনোদন রিপোর্ট   ১২ জুন ২০১৯, ০০:০০  

প্রত্যাশা পূরণ করতে পারছে না ঈদের ছবি

প্রত্যাশা পূরণ করতে পারছে না ঈদের ছবি
'নোলক' ছবির দৃশ্যে শাকিব খান ও ববি
গর্জেছে যত, বর্ষেনি তত। মুক্তির আগে ঢাকঢোল পোটানোর পাশাপাশি নানান রকম আশার বাণী শোনা গেলেও অনেকটাই গুড়েবালি সেই আশায়। মুক্তির পর প্রত্যাশা পূরণ অনেকটাই ব্যর্থ এবারের ঈদের ছবি। দর্শক চাহিদা বিবেচনা করে এবার ঈদে সময়ের শীর্ষতারকা শাকিব খানের দুটি ছবি মুক্তি পাওয়ায় অনেক বন্ধ সিনেমা হলও নতুন করে চালু করা হয়েছে। কিন্তু লাভের মুখ দেখার পরিবর্তে হতাশার ছাপ ফুটিয়ে উঠেছে হলমালিকদের চোখে-মুখে। রাজধানী ঢাকার সিনেমা হলগুলোতে কিছুটা দর্শক সমাগম থাকলেও ঢাকার বাইরের অবস্থা মোটেও সন্তোষজনক নয় বলে জানিয়েছেন হলমালিকরা। আর এর মাধ্যমে মোটা অঙ্কের লোকসান গুনতে হচ্ছে ছবিগুলোর লগ্নিকারদের।

এবার ঈদুলফিতর উপলক্ষে দেশের প্রেক্ষাগৃহে মুক্তি পেয়েছে 'পাসওয়ার্ড', 'নোলক' ও 'আবার বসন্ত'। তিনটি ছবির প্রথম দুটিরই নায়ক শাকিব খান। নায়িকা শবনম বুবলি ও ইয়ামিন হক ববি। খোঁজ খবর নিয়ে এবং সিনেমা সংশ্লিষ্টদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, চাহিদাসম্পন্ন নায়ক-নায়িকা থাকা সত্ত্বেও মানহীন ও নকলের অভিযোগে সিনেমাগুলো হলে দর্শক টানতে ব্যর্থ হয়েছে। মূলত এবারের ঈদে প্রতিযোগিতা চলছে 'পাসওয়ার্ড' ও 'নোলক' এর মধ্যে। শাকিব খান প্রযোজিত ও মালেক আফসারি পরিচালিত 'পাসওয়ার্ড' ছবিটি ব্যবসায়িকভাবে এগিয়ে থাকলেও ছবিটি নকলের রোষানলে পড়েছে। অবশ্য মুক্তির আগে পরিচালক চ্যালেঞ্জ ছুড়েছিলেন ছবিটি নকল কেউ তা প্রমাণ করতে পারলে লক্ষ টাকা পুরস্কারও দেয়া হবে। অভিযোগ উঠেছে 'পাসওয়ার্ড' কোরিয়ান ছবি 'দ্য টার্গেট' এর হুবহু নকল।

'নোলক' এই ঈদের সবচেয়ে ব্যয়বহুল ছবি বলে দাবি করা হলেও ব্যবসায় সুবিধা করতে পারছে না। অন্যদিকে ঈদের সিনেমার মধ্যে সবচেয়ে খারাপ অবস্থা যাচ্ছে 'আবার বসন্ত'র।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, প্রতি বছর ঈদুলফিতরের সময় হালের জনপ্রিয় নায়ক শাকিব খানের সিনেমা প্রেক্ষাগৃহে টানে দর্শকদের। বছরজুড়ে চট্টগ্রামের প্রেক্ষাগৃহগুলোতে খরা থাকলেও ঈদের সময় চিত্র কিছুটা পাল্টে যায়। শাকিবের টানে হলে দর্শকের উপস্থিতি বাড়ে। কিন্তু এবারের চিত্র ভিন্ন। এবার চট্টগ্রামের প্রেক্ষাগৃহগুলোতে শাকিবের সিনেমাও তেমনভাবে সাড়া জাগাতে পারছে না।

দর্শক টানতে না পারায় হতাশ চট্টগ্রামের একটি মাল্টিমিডিয়া সিনেপেস্নক্সসহ চারটি সিনেমা হলের সঙ্গে সংশ্লিষ্টরা। চারটি প্রেক্ষাগৃহ হচ্ছে- নগরীর কে সি দে রোডে 'সিনেমা প্যালেস', কাজীর দেউড়ি এলাকায় 'আলমাস' ও 'দিনার' এবং ষোলশহর দুই নম্বর গেট এলাকায় ফিনলে স্কয়ারে 'সিলভার স্ক্রিন'।

শাকিব খান ও বুবলী অভিনীত 'পাসওয়ার্ড' সিনেমাটি চলছে আলমাস সিনেমা হলে। সিনেমা প্যালেসে চলছে শাকিব-ববি অভিনীত 'নোলক'। সিনেপেস্নক্সের পস্নাটিনাম স্ক্রিনে 'নোলক' ছবিটির পাশাপাশি অনন্য মামুনের গল্পনির্ভর চলচ্চিত্র 'আবার বসন্ত' প্রদর্শিত হচ্ছে। দিনার সিনেমা হলে চলছে 'নয়া মাস্তান' নামে একটি পুরনো চলচ্চিত্র।

ঈদ উপলক্ষে খুলনা নগরের পাঁচটি সিনেমা হলে চলছে তিনটি ছবি। শঙ্খ ও লিবার্টি সিনেমা হলে ঈদের দিন থেকে চলছে 'পাসওয়ার্ড' ছবিটি। সোসাইটি সিনেমা হলে চলছে উত্তম আকাশ পরিচালিত 'বয়ফ্রেন্ড'। সঙ্গীতা ও চিত্রালী সিনেমা হলে চলছে 'নোলক'। ঈদের মৌসুমে এই তিনটি হলে চলছে দর্শকখরা। হল তিনটির কর্তৃপক্ষ জানান, ঈদের প্রথম দিন মোটামুটি দর্শক সমাগম থাকলেও ক্রমেই দর্শক কমে যাচ্ছে। বগুড়ার সোনিয়া সিনেমা হলে চলছে 'পাসওয়ার্ড'। ঈদের দিন ছবিটি দর্শকদের ভালো প্রশংসা কুড়ালেও ঈদের দিন থেকে তৃতীয় দিন পর্যন্ত দর্শক উপস্থিতি হতাশাব্যঞ্জক বলে জানান সোনিয়া সিনেমা হলের মালিক রফিকুল ইসলাম।

এদিকে ময়মনসিংহের গফরগাঁওয়ে একমাত্র সিনেমাহল রূপান্তরে ঈদের ছবিতেও চরম দুরবস্থা চলছে। সোমবার সকালে সরেজমিন হলটিতে গিয়ে মর্নিং শোতে মাত্র তিনজন দর্শক পাওয়া যায়। পরিচালনা কর্তৃপক্ষ জানিয়েছেন, শুধু ঈদের দিন কয়েকশ দর্শক ছবিটি উপভোগ করেন। এতে ৬০/৭০হাজার টাকার টিকিট বিক্রি হয়। কিন্তু এর পর থেকে প্রতিদিন লোকসান গুনতে হচ্ছে। পরিচালকদের সূত্রে জানা যায়, সিনেমা ব্যবসা না চলার কারণে ৭-৮শ আসনযুক্ত পৌর শহরের একমাত্র সিনেমা হল রূপান্তর প্রায় পরিত্যক্ত অবস্থায় পড়ে ছিল। এ অবস্থায় হল মালিক ভিতরের আসন, ফ্যান, লাইটসহ সকল কিছু বিক্রি করে দিয়েছেন। দুই ঈদে ছবি চালানোর জন্য পৌর প্যানেল মেয়র সাহজাহান সাজু ও ইমন নামে দুজন সম্প্রতি হলটি ২৫ হাজার টাকায় ভাড়া নিয়েছেন। পরে দর্শকদের বসার জন্য ডেকোরেটরদের কাছ থেকে চেয়ার, ফ্যান ও লাইট ভাড়া করে আনেন। ব্যাপক প্রচারণা চালিয়ে ঈদুলফিতরের দিন থেকে শাকিব খান-ববি হক অভিনীত নোলক ছবিটি চালানো হয়। এতে ঈদের দিন প্রায় ৬০-৭০ হাজার টাকার টিকিট বিক্রি হয়েছে। কিন্তু এরপর থেকে প্রতিটি শোতে হাতে গনা কয়েকজন দর্শক ছবিটি দেখতে আসছেন। ফলে প্রতিদিন লোকসান গুনতে হচ্ছে।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
close

উপরে