শনিবার, ১৩ জুলাই ২০২৪, ২৮ আষাঢ় ১৪৩১

হাবিপ্রবি ছাত্রলীগ সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদককে রাজকীয় সংবর্ধনা 

হাবিপ্রবি প্রতিনিধি
  ২১ মে ২০২৪, ০৯:৪৩
ছবি-যায়যায়দিন

হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (হাবিপ্রবি) শাখা ছাত্রলীগের নতুন কমিটির সভাপতি মোঃ আলমগীর হোসেন আকাশ বলেন, আমরা সর্বদা সাধারণ শিক্ষার্থীদের সকল সঙ্কটে পাশে থেকে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার সুষ্ঠু পরিবেশ বিনির্মাণে কাজ করতে চাই।

সোমবার (২০ মে) হাবিপ্রবি ছাত্রলীগের নবগঠিত কমিটির সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদককে রাজকীয় সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেন তিনি।

তিনি আরো বলেন, আমরা এই ক্যাম্পাসে সকলের নেতা। সবকিছুর ঊর্ধ্বে থেকে সাধারণ শিক্ষার্থীদের সমস্যার কথা বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের কাছে তুলে ধরবো। হলের ডাইনিং ব্যবস্থা উন্নতকরণ, শিক্ষার্থীদের মাঝে সিনিয়র জুনিয়রের ভ্রাতৃত্ববোধের সম্পর্ক সৃষ্টি, বিশ্ববিদ্যালয়ে সাংস্কৃতিক, ক্রীড়ানুষ্ঠান আয়োজন সহ সকল প্রগতিশীল কর্মকান্ড হাতে নিয়ে আমরা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাণ ফিরিয়ে আনতে চাই।

দীর্ঘ ১৩ বছর পর গত ১৪ মে নতুন কমিটির দায়িত্ব পাওয়ার পর ২০ মে (সোমবার) প্রথম হাবিপ্রবি ক্যাম্পাসে আসেন সভাপতি মোঃ আলমগীর হোসেন আকাশ ও সাধারণ সম্পাদক এম এম মাসুদ রানা মিঠু। এসময় উৎসবমুখর পরিবেশে নতুন সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক কে বরণ করে নেয় বিশ্ববিদ্যালয়ের শাখা ছাত্রলীগের নেতাকর্মী ও সাধারণ শিক্ষার্থীরা।

হাবিপ্রবি ছাত্রলীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের নেতৃত্বে প্রশাসনিক ভবন সম্মুখে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ করে হাবিপ্রবি শাখা ছাত্রলীগ। এরপর নেতৃবৃন্দ হাবিপ্রবি উপাচার্য অধ্যাপক ড. এম কামরুজ্জামান- এর সাথে সৌজন্য সাক্ষাৎ করেন।

হাবিপ্রবি ছাত্রলীগের সভাপতি মো. আলমগীর হোসেন আকাশের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক এম এম মাসুদ রানা মিঠুর সঞ্চালনায় সংবর্ধনা অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

জাতীয় সঙ্গীত, জাতীয় পতাকা উত্তোলন ও বাংলাদেশ ছাত্রলীগের দলীয় পতাকা উত্তোলনের মাধ্যমে সংবর্ধনা অনুষ্ঠানের সূচনা হয়। এসময় নবগঠিত কমিটির সদস্যদের ফুল দিয়ে বরণ করে নেয় হাবিপ্রবি শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক।

হাবিপ্রবি ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক এম এম মাসুদ রানা মিঠু বলেন, বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের সাথে সমন্বয় করে আমরা শিক্ষার্থীদের অধিকার নিয়ে কাজ করবো।অধিকার আদায়ে আমরা সবসময় শিক্ষার্থীদের চাওয়াকে প্রাধান্য দিবো।আমরা চাই স্মার্ট জেনারেশন তৈরি করতে। আমরা হাবিপ্রবিকে একটি স্মার্ট বিশ্ববিদ্যালয়ে রূপান্তর করতে সর্বোচ্চ চেষ্টা করবো।

সবশেষে শিক্ষার্থী ও জনসাধারণের মাঝে মিষ্টি বিতরণ করে হাবিপ্রবি ছাত্রলীগ।

যাযাদি/ এস

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়

উপরে