​​​​​​​অলিভ অয়েলে ত্বক ও চুলের যত্ন

​​​​​​​অলিভ অয়েলে ত্বক ও চুলের যত্ন

স্বাস্থ্য ভালো রাখতে রান্নায় অলিভ অয়েল ব্যবহার বহু আগে থেকেই চলে আসছে। তবে, চুল ও ত্বক ভালো রাখতেও অলিভ অয়েল দারুণ কার্যকর। তাই দিনে দিনে এর চাহিদাও বৃদ্ধি পাচ্ছে।

দৈনন্দিন রূপচর্চায় কীভাবে অলিভ অয়েল ব্যবহার করবেন জেনে নিন -

> বডি অয়েল হিসেবে অলিভ অয়েল ব্যবহার করা যেতে পারে। কয়েক ফোটা অলিভ অয়েল হাতের তালুতে ঘষে গোসলের পর সারা শরীরে লাগিয়ে নিন। নিয়মিত লাগালে ত্বক হয়ে উঠবে মসৃণ ও কোমল।

> ঘন, ঝকঝকে চুল পেতে অলিভ অয়েল ব্যবহার করতে পারেন। গরম করে চুল এবং মাথার ত্বকে লাগান। ১০ মিনিট মালিশ করুন। তারপর কমপক্ষে ২০ মিনিট রেখে শ্যাম্পু করে নিন। এছাড়া, হেয়ার মাস্ক হিসেবেও অলিভ অয়েল ব্যবহার করতে পারেন। একটি ডিমের কুসুমের সঙ্গে ২ টেবিল চামচ অলিভ অয়েল এবং ১ চা চামচ লেবুর রস মিশিয়ে পেস্ট তৈরি করে নিন। এই পেস্টটি মাথার ত্বক এবং চুলে লাগিয়ে ১৫ মিনিট রেখে দিন। তারপর শ্যাম্পু করুন।

> অলিভ অয়েলে অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট বৈশিষ্ট্য রয়েছে। যা ত্বকের বলিরেখা দূর করতে সহায়তা করে। তাই চোখের চারপাশের বলিরেখা দূর করতে চাইলে অলিভ অয়েলকে আই ক্রিম হিসেবেও ব্যবহার করা যেতে পারে। এই তেলটি ত্বকে পুষ্টি যোগায়।

> মুখ পরিষ্কার করার জন্য এই তেল ব্যবহার করতে পারেন। মেকআপ তোলার জন্য দোকান থেকে কেনা পণ্যের পরিবর্তে আপনি অলিভ অয়েল ব্যবহার করতে পারেন। অলিভ অয়েল দিয়ে মুখ পরিষ্কার করার পরে ফেস ওয়াশ এবং হালকা গরম পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।

> ফাটা গোড়ালির চিকিৎসাতেও অলিভ অয়েল দুর্দান্ত কার্যকর। পিউমিক স্টোন দিয়ে গোড়ালি এক্সফোলিয়েট করুন, তারপরে সামান্য অলিভ অয়েল লাগিয়ে ম্যাসাজ করুন। এরপর মোজা পরে নিন। এতে ফাটা গোড়ালি দ্রুত সেরে উঠবে।

> নখ এবং কিউটিকলেরও পুষ্টির প্রয়োজন হয়। এক্ষেত্রে অলিভ অয়েল দারুণ কাজ করে। নখের উপর অলিভ অয়েল লাগালে নখ মজবুত হয়, নখ ভাঙা প্রতিরোধ করে এবং কিউটিকল ভালো থাকে। এছাড়াও, অলিভ অয়েল হালকা গরম করে ৫-১০ মিনিট নখগুলো ভিজিয়ে রাখতে পারেন। খেয়াল রাখবেন তেল যেন অতিরিক্ত গরম না থাকে। হাতের কনুই এবং হাঁটুর কালো দাগ, শুষ্ক ত্বক সারাতেও অলিভ অয়েল দারুণ কার্যকর।

যাযাদি / এসএস

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

আরও খবর

Copyright JaiJaiDin ©2022

Design and developed by Orangebd


উপরে