সরিষা চাষের আগাম পরিকল্পনায় বাড়বে শস্যের নিবিড়তা

সরিষা চাষের আগাম পরিকল্পনায় বাড়বে শস্যের নিবিড়তা

বাংলাদেশের মানুষের প্রধান খাদ্যশস্য ধান, ফলে ধানভিত্তিক চাষে রয়েছে আমাদের বেঁচে থাকার দৃঢ় চেতনা আমরা এখন ধানচাষে স্বয়ংসম্পূর্ণ তবে অন্যান্য ফসলেও আমাদের মনোযোগী হওয়া প্রয়োজন বিশেষ করে তেলজাতীয় ফসলের উৎপাদন বৃদ্ধি করা আবশ্যক তবে ধান চাষকে চলমান রেখেই আমাদের পরিকল্পনা করে আগাতে হবে দেশে যে পরিমাণ তেলফসল উৎপাদিত হয় তা দিয়ে দেশীয় চাহিদার ১০ শতাংশ মিটানো যায় বাকী ৯০ শতাংশ ভোজ্যতেল বাইরে থেকে আমদানি করতে হয় জন্যে প্রতিবছর আমদানি বাবদ প্রায় ২৫ হাজার কোটি টাকা বিদেশে চলে যাচ্ছে ২০২০-২১ অর্থবছরে তেল আমদানিতে ব্যয় হয়েছিল প্রায় ১৬ হাজার কোটি টাকা আর এবছর প্রথম ১০ মাসে ব্যয় হয়েছে প্রায় ২০ হাজার কোটি টাকা ফলে ভোজ্যতেল ক্রমেই রাজনৈতিক পণ্যে পরিণত হয়েছে আমাদের এই চক্র থেকে বের হয়ে আসতে হবে তেলফসলে দেশকে সমৃদ্ধ করতে ইতোমধ্যে সরকার বছর মেয়াদি পরিকল্পনা গ্রহণ করেছে পরিকল্পনা অনুযায়ী ধানের উৎপাদন ঠিক রেখে আগামী ২০২৪-২৫ অর্থ বছরের মধ্যে স্থানীয়ভাবে ১০ লাখ টন তেল উৎপাদন করা হবে, যা চাহিদার শতকরা ৪০ ভাগ এর ফলে তেল আমদানিতে প্রায় ১০ হাজার কোটি টাকা সাশ্রয় করা সম্ভব হবে পরিকল্পনা বাস্তবায়নে কাজ করছে দেশের কৃষি বিজ্ঞানীগণ কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের কর্মকর্তাগণ

বর্তমান প্রেক্ষাপটে তেলফসলের উৎপাদন বৃদ্ধির গুরুত্বপূর্ণ কৌশল হলো প্রচলিত শস্যবিন্যাসে তেলফসলকে অন্তর্ভুক্ত করা মুহূর্তে দেশে প্রায় ২০ লক্ষ হে. জমি বোরো-পতিত-রোপাআমন শস্যবিন্যাসের আওতায় আছে যেটিকে সরিষা-বোরো-রোপাআমন শস্যবিন্যাসে রুপান্তর করতে পারলে সরিষার উৎপাদন বৃদ্ধি সম্ভব ফলে দুই ফসলি জমিগুলো তিন ফসলে রুপান্তরিত হবে, শস্যের নিবিড়তা বৃদ্ধি পাবে শস্য বিন্যাসটির জন্য প্রয়োজন স্বল্প মেয়াদী রোপাআমন (জীবনকাল ১১০-১১৫ দিন) এবং স্বল্প জীবনকালের সরিষার জাত (জীবন কাল ৭৫-৮৫ দিন) দেশের কৃষি গবেষণা প্রতিষ্ঠান গুলো ইতোমধ্যে তেমন জাত অবমুক্ত করতে সক্ষম হয়েছে সরিষা চাষের জন্যে কৃষক ভাইদের এখনই পরিকল্পনা করতে হবে এজন্যে আসন্ন আমন মৌসুমে আগাম জাত নির্বাচন করতে হবে এক্ষেত্রে ব্রি ধান৭১, ব্রি ধান৭৫, ব্রি ধান৮৭, বিনা ধান৭, বিনা ধান১৭ ইত্যাদি জাত বিবেচনায় নিতে হবে হাইব্রীড ধানের ক্ষেত্রে ধানী গোল্ড, এরাইজ এজেড৭০০৬, হীরা১০ নির্বাচন করা যেতে পারে অল্পদিনের এইসব জাত চাষ করলে আমন ধান কর্তনের পর আগাম জাতের সরিষা খুব সহজেই চাষ করা যাবে আগাম জাতের সরিষার মাঝে বারি সরিষা১৪, বারি সরিষা১৫, বারি সরিষা১৭, বিনা সরিষা৪, বিনা সরিষা৯ ইত্যাদি উল্লেখযোগ্য জাত যা ৭৫-৮৫ দিনের মাঝে কর্তন করা যায় সরিষা চাষের পর খুব সহজেই বোরো ধান চাষ করা যাবে তবে সরিষাকে অন্তর্ভুক্ত করে অঞ্চলভিত্তিক শস্যবিন্যাসে পরিবর্তন আনা যেতে পারে

অন্যান্য তেল ফসলের ক্ষেত্রে বিশেষ করে তিল, চিনাবাদাম, সয়াবীন এবং সূর্যমূখীর উচ্চফলনশীল জাত চাষাবাদের মাধ্যমে তেলফসলে বাংলাদেশকে সমৃদ্ধ করা সম্ভব নদীমাতৃক বাংলাদেশে রয়েছে অসংখ্য চর যেখানে তেলফসল খুব সহজে করা যায়, রয়েছে বিস্তীর্ণ হাওর যা হবে তেলফসলের অপার ভূমি বছরজুড়ে শুধু ধান চাষ করলে জমির উর্বরাশক্তিতে নেগেটিভ প্রভাব পড়তে পারে কারণ প্রতিনিয়ত চাষের ফলে মাটির স্তরে এক ধরনের শক্ত প্লেট অথবা আবরণ সৃষ্টি হয় জমির উর্বরাশক্তিতে নেগেটিভ প্রভাব ফেলে তাছাড়া বছরজুড়ে একই ফসল চক্রাকারে চলতে থাকলে কীটপতঙ্গ রোগবালাইয়ের হাব তৈরি হতে পারে ফলে ফসলের উৎপাদন ব্যয় বৃদ্ধি পেতে পারে সামগ্রিক বিবেচনায় আমাদের প্রচলিত বোরো-পতিত-রোপাআমন শস্যবিন্যাসের মাঝে পতিত অংশে সরিষাকে অন্তর্ভুক্ত করলে সবদিক থেকেই সুবিধা হবে সরিষা চাষের বেশ কিছু সুবিধাও আছে সরিষা গাছের পাতা মাটির সাথে মিশে জৈব পদার্থ যুক্ত করে তাছাড়া সরিষা থেকে খৈল উৎপন্ন হয় যা জমিতে জৈব সার হিসেবে ব্যবহার করা যায় তবে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হলো সরিষা চাষের সাথে মৌচাষ মৌচাষের মাধ্যমে কৃষকের অতিরিক্ত আয় হবে এবং মৌমাছি ফুলের পরাগায়নে সহযোগিতা করার দরুণ সরিষা উৎপাদনও বৃদ্ধি পায় সব মিলিয়ে সরিষা ফসলকে আমাদের প্রচলিত শস্যবিন্যাসে যুক্ত করতে সকলকে প্রচারণা চালাতে হবে নতুবা আগামী মৌসুমেও ভোজ্যতেল নিয়ে আমাদের ভোগান্তি পোহাতে হবে

সুজলা-সুফলা-শস্য-শ্যামলা এই দেশের কৃষক ভাইদের পক্ষে সবই সম্ভব আমার বিশ্বাস কৃষক ভাইয়েরা কথা রাখবে, তারা নিজেরা বাঁচতে দেশের মানুষকে বাঁচাতে মরিয়া হয়ে কাজ করবে তবে কৃষিপণ্যের ন্যায্যমূল্য নিশ্চিত করার জন্যে আমাদের কাজ করতে হবে এছাড়া স্থানীয়ভাবে সরিষা থেকে তেল তৈরীর ছোট ছোট যন্ত্র আরো সহজলভ্য করতে হবে যেন কৃষক ভাইয়েরা নিজেদের উৎপাদিত সরিষা থেকে খুব সহজেই তেল সংগ্রহ করতে পারে তবেই পরিকল্পনাটি টেকসই হবে আমরা স্বপ্ন দেখি আগামী দিনে নিজেদের উৎপাদিত তেলফসলে নিজেরা সমৃদ্ধ হবো

যাযাদি/এস

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

আরও খবর

Copyright JaiJaiDin ©2022

Design and developed by Orangebd


উপরে