মহম্মদপুরে চাঞ্চল্যকর আজিজুর হত্যাকান্ডের রহস্য উদ্ঘাটন

মূলহোতা গ্রেপ্তার, খন্ডিত মাথা ও পা উদ্ধার
মহম্মদপুরে চাঞ্চল্যকর আজিজুর হত্যাকান্ডের রহস্য উদ্ঘাটন

মাগুরার মহম্মদপুরের চাঞ্চল্যকর আজিজুর রহমান হত্যাকান্ডের রহস্য উদ্ঘাটন করেছের্ যাব। হত্যার ৯ দিন পর সোমবার সদর উপজেলার সংকোচখালি গ্রামের যুবক হোমিও চিকিৎসক ডাক্তার আশরাফ আলী বিশ্বাসকে গ্রেপ্তার করেছের্ যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন-৬ এর সদস্যরা। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে যশোরের শার্শা থেকে আশরাফকে গ্রেপ্তার করা হয়। এ সময় তিনির্ যাবের কাছে হত্যার দায় স্বীকার করেন। তার স্বীকারোক্তি অনুযায়ী মাগুরা সদরের জগদল এলাকা থেকে নিহতের খন্ডিত মাথা ও একটি পা উদ্ধার করের্ যাব। হত্যাকান্ডের পর ডাক্তার আশরাফ একাই তার শরীর ৬ খন্ড করে আলাদা তিনটি বস্তায় ভরে পৃথক স্থানে ফেলেন।

সূত্রমতে, আজিজুরের ব্যবসায়িক ক্লায়েন্ট হোমিও ডাক্তার আশরাফ আলী বিশ্বাস মাত্র আড়াই হাজার টাকার জন্য গত ৫ জুন মাগুরা শহরের বেলতলার হিজামা অ্যান্ড হোমিও সেন্টারের কাঁচের ঘেরা ঘরের পেছনের কক্ষে তাকে নির্মমভাবে হত্যা করেন।

ডা. আশরাফ স্বীকারোক্তিতে জানান, সামান্য আঘাতের পর আজিজুর মারা গেলে ধারালো ছুরি দিয়ে শরীর থেকে হাত-পা এবং মাথা বিচ্ছিন্ন করে ভিন্ন ভিন্ন স্থানে ফেলে আসেন। ঘটনার পর থেকে পলাতক ছিলেন। সোমবার ভারতে পালিয়ে যাওয়ার সময় যশোরের শার্শা থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়। আশরাফ মাগুরার সদর উপজেলার মালিক গ্রামের আহমেদ আলী বিশ্বাসের ছেলে।

এ ব্যাপারে মহম্মদপুর থানার ওসি তারক বিশ্বাস জানান, আজিজুর হত্যাকান্ডে থানায় মামলা হওয়ার পর সিআইডি মামলাটি গ্রহণ করায় গ্রেপ্তার আসামিকে তাদের হাতে হস্তান্তর করা হতে পারে।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

আরও খবর

Copyright JaiJaiDin ©2021

Design and developed by Orangebd


উপরে