শনিবার, ১৩ জুলাই ২০২৪, ২৯ আষাঢ় ১৪৩১

মাহমুদউলস্নাহ-তামিমকে নির্ভার রাখতে চান লিটন

ক্রীড়া ডেস্ক
  ২১ সেপ্টেম্বর ২০২৩, ০০:০০
মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামে বুধবার সংবাদ সম্মেলনে বাংলাদেশের ভারপ্রাপ্ত অধিনায়ক লিটন কুমার দাস -ওয়েবসাইট

গত মার্চে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে সিরিজের পর থেকে জাতীয় দলে নেই মাহমুদউলস্নাহ রিয়াদ। বিশ্বকাপের ঠিক আগের সিরিজে আবার তাকে ফেরানো হয়েছে। নেতৃত্ব ছেড়ে দেওয়া তামিম ইকবালও খেলায় ফিরেছেন আড়াই মাস পর। অভিজ্ঞ এই দুই তারকাকে ঘরের মাঠে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে নির্ভার রাখতে চান বাংলাদেশ দলের ভারপ্রাপ্ত অধিনায়ক লিটন কুমার দাস।

ইংল্যান্ডের বিপক্ষে সিরিজের পর বিশ্রামের আদলে বাদ পড়েন মাহমুদউলস্নাহ রিয়াদ। এরপর আরও তিন সিরিজ ও এশিয়া কাপে দলে জায়গা হয়নি তার। ৩৭ পেরুনো ব্যাটারের বিশ্বকাপ খেলার সম্ভাবনা মিইয়ে গিয়েছিল। কিন্তু এশিয়া কাপে কয়েকজনের ব্যর্থতায় ফের সুযোগ পেয়েছেন তিনি। নিউজিল্যান্ড সিরিজে ভালো করলে মিলতে পারে বিশ্বকাপের টিকিট।

আর তামিমের প্রেক্ষাপট আরেকটু ভিন্ন। জুলাইতে আফগানিস্তানের বিপক্ষে ছিলেন দলের অধিনায়ক। প্রথম ওয়ানডের আগে ফিটনেস নিয়ে বিতর্ক তৈরির পর বদলে যায় আবহ। প্রথম ম্যাচ খেলে আচমকা আন্তর্জাতিক ক্রিকেট ছেড়ে দেন। প্রধানমন্ত্রী হস্তক্ষেপে ফিরেও আসেন আরও একদিন পর। এরপর পীঠের চোট নিয়ে ছিলেন চিকিৎসাধীন। সে কারণে ছিলেন না এশিয়া কাপে। এই সিরিজ দিয়ে তারও ফেরা। ফিট থাকলে তার বিশ্বকাপ খেলা নিয়ে সংশয় নেই।

নিয়মিত অধিনায়ক সাকিব আল হাসান ও প্রধান কোচ চন্ডিকা হাথুরুসিংহের অনুপস্থিতিতে লিটনই দলের নেতা। দুই অভিজ্ঞ ক্রিকেটার ও সাবেক অধিনায়ককে দলে পেয়ে তাদের কাজে লাগাতে চান তিনি। বুধবার মিরপুর শেরে বাংলা ক্রিকেট স্টেডিয়ামে সংবাদ সম্মেলনে বললেন, এই দু'জনকে বাড়তি কোনো চাপ দিতে চান না তিনি। তিনি বলেন, 'দুইজন সিনিয়র খেলোয়াড় থাকলে তো অবশ্যই সব দিক থেকে সাহায্য হয়। অনেক দিন পর তারা খেলতে এসেছেন। আমি চাই না কোনো কিছু নিয়ে তাদের চাপ দিতে। তারা খেলাটা এনজয় করুক। বাংলাদেশের প্রতিটি ম্যাচেই উপভোগ করতে পারলে সাফল্যের সম্ভাবনা বেশি থাকে।'

শেষ বছরচারেক দারুণ কেটেছে লিটনের। বিশ্বকাপে তাকে নিয়ে তাই দারুণ প্রত্যাশা দলের। কিন্তু বিশ্বকাপ কাছে আসতেই যেন নিজেকে হারিয়ে খুঁজছেন এই ব্যাটার। মাঝে মাঝে ইনিংসে শুরু পাচ্ছেন কিন্তু টানতে পারছেন না, আবার মাঝে মাঝে শুরুতেই কাবু হচ্ছেন। এই সংকটের পেছনে ঘাটতি কোথায় তা খুঁজে বের করার চেষ্টা করছেন তিনি।

২০১৯ বিশ্বকাপের পর ওয়ানডেতে বাংলাদেশের সর্বোচ্চ রান লিটনের। এ সময় ৪৩ ম্যাচ খেলে ৩৯.৬৮ গড়ে ১ হাজার ৫০৮ রান করেছেন, ৮৭.৬২ স্ট্রাইকরেটে। এই পরিসংখ্যানের ধারা ধাক্কা খেয়েছে সর্বশেষ ১০ ম্যাচে। এই সময়ে স্রেফ ২৮.৬২ গড় ও ৯২.৩৩ স্ট্রাইকরেটে ২২৯ রান আসে তার ব্যাটে। ফিফটি করেন দু'টি। শূন্য রানে আউট হয়েছেন দু'বার।

বিশ্বকাপের আগে ঘরের মাঠে নিউজিল্যান্ড সিরিজ তাই লিটনের জন্য ছন্দে ফেরার বড় পরীক্ষা। নিজের ঘাটতি খুঁজে বের করতে চেষ্টা চলছে তার। তিনি বলেন, 'আমি চেষ্টা করছি (সমস্যা খুঁজে বের করার), অনুশীলন করছি, কীভাবে খুঁজে বের করা করা যায়। আশা করছি, তাড়াতাড়ি ফিরে আসতে পারব (ছন্দে)। আত্মবিশ্বাসের বিষয় না। প্র্যাকটিস করছি, দেখা যাক কী করতে পারি।'

রান না পাওয়ায় ফের সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে তাকে নিয়ে চলছে ট্রল। আগে যেসব জিনিসে পীড়িত হতেন এবার সেসব দেখারই সময় নেই বলে জানান তিনি। তিনি বলেন, 'এখন এত পরিমাণে খেলা, সোশ্যাল মিডিয়া দেখার মতো সময় আমাদের হাতে নেই। প্রত্যেক খেলোয়াড়েরই নেই। যে যার ব্যক্তিগত জীবন নিয়ে ব্যস্ত থাকে, পরিবারকে সময় দেয়। আমার মনে হয় না কোনো খেলোয়াড়কে এসব প্রভাবিত করে।'

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়

উপরে