রোববার, ১৪ জুলাই ২০২৪, ৩০ আষাঢ় ১৪৩১

মাদ্রাসাছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগে গ্রেপ্তার ১

জয়পুরহাট প্রতিনিধি
  ২৪ জুন ২০২৪, ১৩:০৩
ছবি: যায়যায়দিন

জয়পুরহাটে একটি মহিলা মাদ্রাসার ১১ বছর বয়সের ছাত্রীকে জোরপূর্বকভাবে ধর্ষণের অভিযোগে মামলা দায়ের হয়েছে ওই মাদ্রাসার প্রতিষ্ঠাতার বিরুদ্ধে। পরে রাতে মাদ্রাসার প্রতিষ্ঠাতা আজিজুল হক ফেন্সি (৫৭) কে গ্রেফতার করে পুলিশ। সে শহরের বিশ্বাসপাড়া মহল্লার মৃত আবুল কাশেম আকন্দের পুত্র। মামলা সূত্রে জানা যায়, জেলা শহরের কাশিয়াবাড়ি এলাকায় অবস্থিত হযরত ফাতেমা (রা.) কওমি হাফেজিয়া মহিলা মাদরাসার চতুর্থ শ্রেণিতে পড়াশুনা করত নওগাঁ জেলার ধামুইরহাট উপজেলার পূর্ব তাহেরপুর গ্রামের এক শিশু শিক্ষার্থী। ঈদের ছুটিতে মাসিক বেতন বকেয়া থাকায় ওই শিক্ষার্থীকে মাদ্রাসা থেকে ছুটি দেয়া হয়নি। মাদ্রাসাতে থাকার সময় মাদ্রাসার প্রতিষ্ঠাতা আজিজুল হক ফেন্সি ওই শিক্ষার্থীকে আটকে রেখে তার বাগান বাড়িতে নিয়ে গিয়ে ধর্ষণ করে। সেখান থেকে মাদ্রাসায় এনে আবার তালা দিয়ে রাখা হয় তাকে। ঈদের ছুটির পরে রোববার মাদ্রাসা খুললে মেয়েটি মাদরাসা থেকে পালিয়ে পার্শ্ববর্তী বান্ধবীর বাড়িতে আশ্রয় নেয়। এসময় তার বান্ধবীর পরিবারের সদস্যদের নিকট ধর্ষণের বিষয়টি জানায়। পরে অভিভাবকেরা তাৎক্ষণিক ওই ছাত্রীকে থানায় নিয়ে যায়।

ধর্ষণের শিকার ঐ ছাত্রীর সাথে কথা বললে সে জানায়, মাদ্রাসার মাসিক বেতনের বকেয়া টাকা পরিশোধ করতে পারেনি পরিবার। এইজন্য মাদরাসার প্রতিষ্ঠাতা আজিজুল হক ফেন্সি আমাকে বাড়িতে যেতে দেয়নি। পরে তিনি আমাকে তার বাগান বাড়িতে নিয়ে যায়। সেখানে নিয়ে আমাকে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে। আমি তাকে বাবা ডেকেও রেহাই পাইনি। একপর্যায়ে রোববার সেখান থেকে পালিয়ে আমার এক বান্ধবীর বাড়িতে গিয়ে আশ্রয় নেই। এ ঘটনার সুস্থ বিচার চাই।

জয়পুরহাট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) হুমায়ুন কবির জানান, জয়পুরহাট সদর থানায় রোববার রাতে শিশুটির পিতা বাদী হয়ে একটি ধর্ষণ মামলা দায়ের করেছে। মামলা নং-৩০, তাং-২৩.০৬.২০২৪। মামলা দায়েরের পর ছাত্রীকে ধর্ষণের দায়ে মাদ্রাসার প্রতিষ্ঠাতা আজিজুল হক ফেন্সিকে শহরের মাছবাজার এলাকা থেকে গ্রেফতার করা হয়েছে। তাকে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হবে।

যাযাদি/ এসএম

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়

উপরে