logo
বুধবার ১৬ অক্টোবর, ২০১৯, ১ কার্তিক ১৪২৬

  অনলাইন ডেস্ক    ০৯ অক্টোবর ২০১৯, ০০:০০  

ধুনটে বউ মেলায় দর্শনার্থীদের ভিড়

ধুনটে বউ মেলায় দর্শনার্থীদের ভিড়
বগুড়ার ধুনট পৌর এলাকার সরকারপাড়া ইছামতি নদীর তীরে মঙ্গলবার বসেছিল ঐতিহ্যবাহী বউমেলা -যাযাদি
ইমরান হোসেন ইমন, ধুনট

সব অপশক্তি বিনাস করে কল্যাণ প্রতিষ্ঠায় দেবী দুর্গা মর্তলোক ছেড়ে চলে যাওয়ার মধ্য দিয়ে শেষ হলো হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের শারদীয় দুর্গোৎসব। প্রতিমা বিসর্জন উপলক্ষে বগুড়ার ধুনট পৌর এলাকার সরকারপাড়া ইছামতি নদীর তীরে মঙ্গলবার গড়ে উঠেছিল ঐতিহ্যবাহী বউমেলা। শতাব্দীপ্রাচীন এই বউ মেলায় প্রতি বছরের ন্যায় এবারও ছিল ক্রেতা ও দর্শনার্থীদের উপচেপড়া ভিড়। ব্যাপক উৎসাহ উদ্দীপনা আর নানা আনন্দ আয়োজনে দেবী দুর্গা বিসর্জনের মধ্য দিয়ে শান্তিপূর্ণ পরিবেশে একদিনের বউ মেলার অনুষ্ঠানিকতা শেষ হয়।

সরেজমিন জানা যায়, ধুনট পৌরসভার ছোট একটি গ্রাম সরকারপাড়া। ওই গ্রামে শতভাগ হিন্দু সম্প্রদায়ের বসবাস। গ্রামের পূর্বপাশ দিয়ে বহমান ইছামতি নদী। নদীতে ধুনট সদর, চরধুনট, দাসপাড়া ও মালোপাড়াসহ আশপাশের প্রতিমা এক সাথে বিসর্জন দেয়া হয়। প্রতিমা বির্সজন উপলক্ষে লোকজনের সমাগম হওয়ায় ওই গ্রামে প্রতিবছর মেলা বসে। শতাব্দী প্রাচীন এ মেলায় বেলা গড়ার সাথে সাথে দর্শনার্থীদের সমাগম ঘটে। সব বয়সের উৎসুক মানুষের মিলন মেলায় পরিণত হয়। ধুনট সদর থেকে পূর্ব দিকে মেলার দূরত্ব মাত্র এক কিলোমিটার। গ্রামীণ সড়ক জুড়ে মানুষের কোলাহল। শিশুর হাতে মেলার বাঁশি। হাওয়ায় ভাসা রঙিন বেলুন। নব সাজে বধূর ঘোমটার ফাঁক দিয়ে উঁকি মারছে সিঁথির সিঁদুর। গ্রামটি যেন হঠাৎ করে জেগে ওঠে কোনো এক অজানা পরশে। বাঙালি হিন্দু সম্প্রদায়ের অন্যতম ধর্মীয় উৎসব শারদীয় দুর্গাপূজাকে ঘিরে সরকারপাড়া হয়ে ওঠে এক উৎসবমুখর গ্রাম। মেলায় হিন্দু ধর্মাবলম্বী লোকজন আসে ভক্তি আর মানত নিয়ে। কিন্তু অন্য ধর্মের লোকজন আসে আনন্দ উৎসব করতে। মুহুর্মুহু উলুধ্বনি, সাঁকের আওয়াজ, ঢাক কাঁসরের তালে তালে চলে আরতির নাচ। ধূপের সুরভিত ধোঁয়া, বাতাসে নাড়ু-সন্দেস-মিষ্টির গন্ধ আর সাউন্ড বক্সের হাই ভলিয়মের শব্দ মেলার উৎসবের আমেজ। সকল অপশক্তি বিনাস করে কল্যাণ প্রতিষ্ঠায় দেবী দুর্গা মর্তলোক ছেড়ে এক বছরের জন্য চলে যাওয়ার দৃশ্য দেখাই এই মেলার প্রধান আকর্ষণ। বিজয় দশমীতে সূর্যাস্তের সঙ্গে সঙ্গে প্রতিমা বিসর্জনের মধ্য দিয়ে মেলার সমাপ্তি হয়। যুগ যুগ ধরে এই মেলা হয়ে আসছে। দিন বদলের সঙ্গে সঙ্গে মেলার রূপ, মাধুর্যের পরিবর্তন ও প্রসার ঘটছে।

মেলায় আগত ক্রেতা সুরভি রানী, অনিতা রানী, আরতি রানী ও জান্নাতুল ফেরদৌস জানায়, মেলার ভেতরে কোনো পুরুষ লোক না থাকায় অনেক স্বাচ্ছন্দ্যে কেনাকাটা করেছি এবং দামও কিছুটা কম।

ধুনট উপজেলা পূজা উদযা্‌পন কমিটির সভাপতি শ্রী বিকাস চন্দ্র সাহা জানান, শান্তিপূর্ণ পরিবেশে দুর্গাপূজা অনুষ্ঠিত হয়েছে। প্রতিমা বিসর্জন উপলক্ষে প্রতি বছরের ন্যায় এবারও শতাব্দী প্রাচীন বউ মেলায় ক্রেতা ও দর্শনার্থীদের উপচেপড়া ভিড় ছিল।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
close

উপরে