logo
রোববার ১৬ জুন, ২০১৯, ২ আষাঢ় ১৪২৬

  ক্রীড়া ডেস্ক   ১২ জুন ২০১৯, ০০:০০  

বাকি ৫ ম্যাচের অন্তত চারটি জিততে হবে

বৃষ্টিতে ভেসে গেল বাংলাদেশের স্বপ্ন

বৃষ্টিতে ভেসে গেল বাংলাদেশের স্বপ্ন
লংকা বধের আশা নিয়েই ব্রিস্টলে মাশরাফি-সাকিবদের খেলা দেখতে বাংলাদেশের পতাকা হাতে এসেছিলেন প্রবাসী-সমর্থকরা; কিন্তু তাদের সে আশা বৃষ্টিতেই বিলীন হয়ে গেছে -বিসিবি
আগে থেকেই আবহাওয়ার পূর্বাভাস বলছিল বাংলাদেশ-শ্রীলংকা ম্যাচে ছড়ি ঘোরাতে পারে বৃষ্টি। তবুও সেসব সতর্কবার্তা একপাশে রেখে লংকানদের বিপক্ষে ম্যাচ নিয়ে স্বপ্নে বিভোর ছিল টিম টাইগার্স। মাশরাফি বাহিনীর সঙ্গে স্বপ্নে মজেছিল টাইগারভক্তরাও। স্বপ্ন দেখবে নাইবা কেন? লংকানদের সঙ্গে ম্যাচের ওপর নির্ভর করছিল

বাংলাদেশ দলের অনেক হিসাবনিকাশ। বিশ্বকাপে অন্য দলগুলোর চেয়ে শ্রীলংকা এই আসরে কিছুটা খর্ব শক্তির দল। আর বাংলাদেশ তাদের হারাতে পারলে পয়েন্ট টেবিলে শক্ত ভিত এবং বড় দলগুলোর বিপক্ষে মাঠে নামার আগে নিজেদের আত্মবিশ্বাস ঝালিয়ে নেয়ার সুযোগ পেত। এ ছাড়া বিশ্বকাপে বাংলাদেশ যে কয়টি দলকে সরাসরি টার্গেট করেছিল তাদের একটি এই শ্রীলংকা। খেলা পরিত্যক্ত হওয়ায় তাই বিপাকে টাইগাররা। লংকানদের সঙ্গে পয়েন্ট ভাগাভাগি করতে হয়েছে। সব মিলিয়ে বিশ্বকাপে চার ম্যাচে বাংলাদেশের পয়েন্ট ৩।

প্রথম ম্যাচে দক্ষিণ আফ্রিকাকে হারিয়ে উড়ন্ত সূচনার পর টানা দুই ম্যাচ হারে কিছুটা ব্যাকফুটে টিম টাইগার্স। তাই শ্রীলংকার সঙ্গে ম্যাচে জয় তুলে নিয়ে শেষ চারে খেলার স্বপ্ন বাঁচিয়ে রাখতে চেয়েছিল মাশরাফি বাহিনী। বাংলাদেশ দলের সেমিফাইনাল সম্ভাবনা টিকিয়ে রাখতে এ ম্যাচের পূর্ণ ২ পয়েন্ট অনেক বেশি জরুরি ছিল। কিন্তু খারাপ আবহাওয়ার কারণে সে ইচ্ছেয় গুড়েবালি। বল মাঠে গড়ানো দূরে থাক বৃষ্টির বাগড়ায় টসও হয়নি। ফলে সব মিলিয়ে পরিস্থিতি বেশ জটিলই।

বৃষ্টির বাগড়ায় এর আগে এবারের আসরের ২টা ম্যাচ বাতিল হয়ে গেছে। পয়েন্ট ভাগাভাগি হয়েছে পাকিস্তান-শ্রীলংকা ও দক্ষিণ আফ্রিকা-ওয়েস্টইন্ডিজের মধ্যে। বাংলাদেশের সেমিফাইনালের দৌড়ে সম্ভাব্য প্রতিদ্বন্দ্বী হিসেবে রয়েছে পাকিস্তান ও ওয়েস্ট ইন্ডিজের নামও। ফলে বৃষ্টির কারণে বাংলাদেশেরও পয়েন্ট ভাগাভাগি হওয়ায় আগের দুই পরিত্যক্ত ম্যাচের বিবেচনায় সমতায় এখন তিন দলই।

এদিন বৃষ্টির কারণে ব্রিস্টলের মাঠে পানি জমে গিয়েছিল। ফলে অফিসিয়ালি ঘোষণা করা হয়, যদি বৃষ্টি থেমেও যায়, তবুও খেলার জন্য মাঠ প্রস্তুত করা অসম্ভব হয়ে পড়বে। এর মধ্যে বৃষ্টি মাথায় নিয়ে আম্পায়াররা মাঠ পরিদর্শন করেন। তারা মাঠের কর্মীদের সঙ্গে পরিস্থিতি নিয়ে আলাপ করেন। পরে বাংলাদেশ সময় মঙ্গলবার সন্ধ্যা ৭টায় ম্যাচ পরিত্যক্ত ঘোষণা করেন। ম্যাচটি হওয়া নিয়ে দর্শকদের মধ্যে আগেই শঙ্কা দেখা দিয়েছিল। কেউ কেউ হতাশ হয়ে মাঠ ছেড়ে বাড়ির পথ ধরেন।

গ্যালারি থেকে প্রবাসী বাংলাদেশি এক দর্শক ক্রিকেইনফোকে এদিন জানান, আমরা চারজন মিলে খেলা দেখতে এসেছিলাম। যারা ব্রিটেনের আবহাওয়ার সঙ্গে পরিচিত, তারা বলছেন- পরিস্থিতি ভালো হবে না। অবস্থা দেখে তাদের কাছে মনে হচ্ছে, খেলা না হওয়ার আশঙ্কা ৭৫ শতাংশ। তাই তারা চলে গেছেন। তার মতে, এই ধরনের বৃষ্টি সাধারণত থামে না। কারণ গুঁড়ি গুঁড়ি বৃষ্টি হচ্ছে। ব্রিটেনের বাস্তবতায় এই ধরনের বৃষ্টি সারাক্ষণই লেগেই থাকে।

ব্রিস্টলের আবহাওয়া বুলেটিনে ম্যাচের আগের দিনই জানানো হয়েছিল, মঙ্গলবার সারাদিন বৃষ্টি হতে পারে। আবহাওয়ার পূর্বাভাস সত্যি হলো। আবহাওয়া বার্তায় ম্যাচের আগেই চিন্তার ভাঁজ পড়েছিল অধিনায়ক মাশরাফির কপালেও। সোমবার ম্যাচ-পূর্ববর্তী সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেছিলেন, প্রথম তিন ম্যাচের একটি ভেসে গেলে অত সমস্যা হতো না। তবে এ ম্যাচটা পন্ড হলে বড় ক্ষতি হয়ে যাবে বাংলাদেশের। আশা করছি, আবহাওয়া পূর্বাভাস যাই বলুক-ম্যাচটা যেন হয়। তা আর হলো কই!

শ্রীলংকার সঙ্গে সবশেষ তিন দেখায় জিতেছে বাংলাদেশ। নিদাহাস ট্রফিতে দুই ম্যাচে এবং এশিয়া কাপে লংকানদের হারিয়েছেন টাইগাররা। তবে বিশ্বকাপে তিনবারের দেখায় একবারও জয় পায়নি তারা।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
close

উপরে