logo
মঙ্গলবার, ০৭ জুলাই ২০২০, ২৩ আষাঢ় ১৪২৬

  যাযাদি ডেস্ক   ০৫ জুন ২০২০, ০০:০০  

কারখানা খুললেও যন্ত্রাংশ সরবরাহ নিয়ে বিপাকে গাড়ি নির্মাতারা

লকডাউন শেষে স্বাস্থ্য সুরক্ষা মেনে সতর্কতার সঙ্গে ধীরে ধীরে কারখানা কার্যক্রমে ফিরছে গাড়ি নির্মাতা কোম্পানিগুলো। তবে নতুন করে উৎপাদনে যেতে তাদের সামনে হাজির হয়েছে যন্ত্রাংশসহ বিভিন্ন পার্টসের সরবরাহ সংকট। কারণ যেসব কারখানায় এসব পার্টস তৈরি করা হয়, সেগুলোয় এখনো পূর্ণমাত্রায় উৎপাদন শুরু করা সম্ভব হয়নি। খবর সিএনএন বিজনেস।

গাড়ি নির্মাণ খাতে যন্ত্রাংশ সরবরাহ শৃঙ্খল সচল থাকা খুবই জরুরি। কারণ একটি গাড়ি নির্মাণে বহু ধরনের যন্ত্রাংশ ও পার্টস প্রয়োজন হয়। এসব পার্টসের সব হাতে না আসা পর্যন্ত একটি গাড়ির নির্মাণ সম্পন্ন করা সম্ভব নয়। আর বর্তমান পরিস্থিতিতে গাড়ি নির্মাতাদের ঠিক এ সংকটের মধ্য দিয়েই যেতে হচ্ছে। গত বৃহস্পতিবার যুক্তরাষ্ট্রে ফোর্ডের ডিয়ারবর্ন ট্রাক পস্নান্টে নির্ধারিত সময়ের আগেই উৎপাদন কার্যক্রম বন্ধ করে দিতে হয়। সিট শেষ হয়ে যাওয়ায় বন্ধ হয়ে যায় এফ-১৫০ মডেলের পিকআপ তৈরির কাজ। পরে গত সোমবার প্রয়োজনীয় পার্টস আসার পর পস্ন্যান্টটিতে পুনরায় উৎপাদন শুরু হয়।

এদিকে গত সপ্তাহে জেনারেল মোটরস (জিএম) যুক্তরাষ্ট্রের কারখানায় পর্যাপ্ত পার্টসের অভাবে শিফট চালু করতে গিয়েও পারেনি। পরে সোমবার পার্টসের সরবরাহ এলে জিএম যুক্তরাষ্ট্র ও কানাডায় তাদের তিনটি এসইউভি (স্পোর্টস ইউটিলিটি ভেহিকল) পস্ন্যান্টে অতিরিক্ত আরও একটি শিফট চালু করে। জিএমের মুখপাত্র জিম কেইন বলেন, গাড়ি নির্মাণ খাতের পরিস্থিতি খুবই নাজুক। পার্টস তৈরির কারখানাগুলোয় যথেষ্ট সুরক্ষা ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে কিনা, তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে। এক্ষেত্রে জিএম তার সরবরাহকারীদের কাছ থেকে পুরো ব্যবস্থার বিস্তারিত বিবরণ নিচ্ছে। একইভাবে মেক্সিকোর যন্ত্রাংশ সরবরাহ পস্ন্যান্টগুলোয় কর্মীদের সুরক্ষার জন্য কী ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে, তা খতিয়ে দেখছে দেশটির সরকার। নভেল করোনাভাইরাসের সংক্রমণ প্রেক্ষাপটে মধ্য মার্চে কারখানা কার্যক্রম বন্ধ করে দেয় জিএম, ফোর্ড ও ফিয়াট ক্রাইসলারের মতো গাড়ি নির্মাতা কোম্পানি। এ তিনটি কোম্পানিই গত মাসের মাঝামাঝি সময়ে ফের উৎপাদনে ফেরে। যুক্তরাষ্ট্রের গাড়ি শিল্পে কর্মরত ১০ লাখের মতো কর্মী। এদের মধ্যে দুই-তৃতীয়াংশই কাজ করেন সরবরাহ পস্ন্যান্টে।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
close

উপরে