পাবিপ্রবিতে  জাতীয় শোক দিবস পালন

পাবিপ্রবিতে  জাতীয় শোক দিবস পালন

১৫ আগস্ট জাতীয় শোক দিবস। বাঙালির শোকের দিন। ১৯৭৫ সালের এই দিনে ইতিহাসের নৃশংস ও মর্মস্পর্শী এক হত্যাকান্ডের ঘটনায় বাংলাদেশের মানুষ হারায় জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানসহ তাঁর পরিবারের সদস্যদের। ১৯৭৫ এর ১৫ আগস্টের শহীদদের বিনম্র শ্রদ্ধা আর ভালোবাসায় স্মরণ করেছে পাবনা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় পরিবার।

সকালে জাতীয় পতাকা অর্ধনমিত রাখা হয়। শিক্ষক- শিক্ষার্থী, কর্মকর্তা-কর্মচারীরা কালোব্যাচ ধারণ করেন। সকাল সাড়ে নয়টায় প্রশাসনিক ভবন হতে শোক র‌্যালী বের হয়ে ক্যাম্পাস প্রদক্ষিণ শেষে জাতির পিতার জম্মশতবর্ষ স্মারক ম্যুরাল জনক জ্যোতির্ময়ে গিয়ে শেষ হয়। সেখানে ১৫ আগস্টে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানসহ শহীদদের স্মৃতির প্রতি পুষ্পার্ঘ্য অর্পণ করেন মাননীয় উপাচার্য অধ্যাপক ড. হাফিজা খাতুন, উপ-উপাচার্য অধ্যাপক ড. এস এম মোস্তফা কামাল খান ও রেজিস্ট্রার বিজন কুমার ব্রহ্ম।

এরপর শ্রদ্ধা জানান বিভিন্ন অনুষদের ডিন, বিভিন্ন বিভাগের চেয়ারম্যান, বঙ্গবন্ধু পরিষদ, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান হল প্রশাসন, শেখ হাসিনা হল প্রশাসন, প্রক্টর অফিস, ছাত্র উপদেষ্টা পরিচালক, পরিবহন পুল, কর্মচারী সমিতিসহ বিভিন্ন সামাজিক সাংস্কৃতিক সংগঠন। এরপর এক মিনিট নিরবতা পালন করা হয়।

শ্রদ্ধার্ঘ্য শেষে জনক জ্যোর্তিময় প্রাঙ্গণে এক সংক্ষিপ্ত বক্তব্যে উপাচার্য অধ্যাপক ড. হাফিজা খাতুন বলেন, ২৪ বছর আন্দোলনের মাধ্যমে বঙ্গবন্ধু দেশ স্বাধীন করেন। যুদ্ধবিধ্বস্ত দেশের উন্নয়নে বঙ্গবন্ধু রাতদিন কাজ করছিলেন। দেশকে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছিলেন তখনই ঘাতকরা বঙ্গবন্ধু, বেগম ফজিলাতুন নেছাসহ পরিবারের সদদ্যদের হত্যা করে। পৃথিবীর ইতিহাসের জঘন্য, নৃশংস, বর্বরোচিত এই হত্যকান্ডের মাধ্যমে বাংলাদেশের স্বাধীনতাকে মুুছে দিতে চেয়েছিল ঘাতকরা। দেশকে পিছনের দিকে নিতে চেয়েছিল ষড়যন্ত্রকারীরা। কিন্তু বঙ্গবন্ধুর মৃত্যু নেই। তাঁর আদর্শ আজ প্রতিটি বাঙালির ঘরে ঘরে। বাঙালির সবচেয়ে ভালোবাসার মানুষ শেখ মুজিবুর রহমান। আমরা সবাই মিলে বঙ্গবন্ধুর আদর্শকে এগিয়ে নেব। শিক্ষার্থীদের আদর্শ নাগরিক হিসেবে গড়ে উঠতে হবে। দেশ গঠনে সবাইকে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে। তবেই বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন সোনার বাংলা হবে বাংলাদেশ। উন্নত আধুনিক বাংলাদেশ গড়ার কারিগর জননেত্রী মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করব আমরা।

উপ-উপাচার্য অধ্যাপক ড. এস এম মোস্তফা কামাল খান বলেন, আজকে বাঙালির শোকের দিন। ইতিহাসের কলঙ্কিত দিন। ৭৫ এর আজকের দিনে ছাপান্ন হাজার বর্গমাইলের বাংলাদেশকে কান্নায় ভাসিয়েছিল খুনিরা। পৃথিবীর ইতিহাসের এক অন্ধকার দিন আজ। তবে বঙ্গবন্ধুু বেঁচে আছেন বাংলার মাটি ও মানুষের মাঝে। সারা পৃথিবীর নির্যাতিত আর মুক্তিকামী মানুষের মাঝে। বঙ্গবন্ধুর আদর্শ আমাদের সামনে রয়েছে। তাঁর আদর্শকে বুকে ধারণ করে আমরা এগিয়ে যাব। বঙ্গবন্ধুর আদর্শের প্রধান বাহন জননত্রেী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে সুখী সমৃদ্ধ দেশ গড়ে তুলবো।

শেষে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানসহ ১৫ আগস্টের শহীদদের আত্মার মাগফেরাত কামনায় দোয়া করা হয়। এছাড়া বাদ যোহর কেন্দ্রীয় মসজিদে দোয়া ও মিলাদ মাহফিলের আয়োজন করা হয়।

যাযাদি/ এসএইচ

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

আরও খবর

Copyright JaiJaiDin ©2022

Design and developed by Orangebd


উপরে