বুধবার, ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১৫ ফাল্গুন ১৪৩০
walton

অবরোধ সমর্থনে জাবির বিএনপিপন্থী শিক্ষকদের মানববন্ধন

প্রতিনিধি জাবি
  ০২ নভেম্বর ২০২৩, ১৩:৫৬
আপডেট  : ০২ নভেম্বর ২০২৩, ১৪:২৪

নির্দলীয়-নিরপেক্ষ তত্ত্বাবধায়ক সরকারের অধীনে জাতীয় সংসদ নির্বাচন ও বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়াসহ সকল রাজবন্দির মুক্তির দাবিতে এবং শান্তিপূর্ণ মহাসমাবেশে সন্ত্রাসী হামলার প্রতিবাদে ডাকা চলমান অবরোধের সমর্থনে মানববন্ধন করেছে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের (জাবি) জাতীয়তবাদী শিক্ষক ফোরাম।

বৃহস্পতিবার (২ অক্টোবর) সকাল ১১ টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান ফটকে (ডেইরি গেট) এ মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়।

মানববন্ধনে ফার্মেসি বিভাগের অধ্যাপক মোহাম্মদ মাফরুহী সাত্তারের সঞ্চালনায় নেতৃবৃন্দ ‘সাধারণ জনগণ এ সরকার চায় না’ উল্লেখ্য করে সারাদেশে বিএনপি নেতাকর্মীদের আটক ও নির্যাতনের ঘটনার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানান।

ভূগোল ও পরিবেশ বিভাগের অধ্যাপক ড. মোঃ নূরুল ইসলাম বলেন, ‘আমরা এই জবরদস্তি সরকারের পদত্যাগ চাই। দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া ও বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলামসহ সকল রাজবন্দীর অবিলম্বে মুক্তির দাবি জানাই।’

দর্শন বিভাগের অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ কামরুল আহসান বলেন, ‘২৮ অক্টোবরের সমাবেশে পুলিশি হামলা ও নির্যাতনের প্রতিবাদস্বরুপ আমরা এখানে দাঁড়িয়েছি। নির্দলীয়-নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে নির্বাচনের দাবি জানানোর কারণে ২৮ অক্টোবর হামলা চালানো হয়েছে। তাই এটা এখন জনগণের আন্দোলন হয়ে দাঁড়িয়েছে। বর্তমানে সরকার দলের সাথে সম্পৃক্ত না হলেই তাদের নির্যাতনের শিকার হতে হয়। বিশ্ববিদ্যালয়ের হলগুলোতে সরকারবিরোধী কোনো শিক্ষার্থী অবস্থান করতে পারেন না। শুধুমাত্র রাজনৈতিক কারণে তাদের হলের বাইরে থাকতে হয়। তাই সকলের সমর্থনে আমরা একটি শান্তিপূর্ণ বিশ্ববিদ্যালয় চাই। এজন্য প্রয়োজন জনগনের ভোটে নির্বাচিত সরকার। বাঙালি জাতি সবসময় অন্যায়ের বিরুদ্ধে দাঁড়িয়েছে। তাই আমরাও জনগণের পক্ষে আজ মানববন্ধনে দাঁড়িয়েছি।’

সমাপনী বক্তব্যে সরকার ও রাজনীতি বিভাগের অধ্যাপক ড. মো. শামছুল আলম মানববন্ধনে অংশগ্রহণকারী সকল শিক্ষককে ধন্যবাদ জানিয়ে বলেন, ‘২৮ অক্টোবরের সমাবেশ সরকার সুপরিকল্পিতভাবে পুলিশি বাহিনী দিয়ে পন্ড করেছে। বিএনপিকে সন্ত্রাসী সংগঠন হিসেবে আখ্যা দেওয়া হয়েছে। অথচ সকলেই জানে, মুলত আওয়ামী লীগই সন্ত্রাসী দল। ২০১৪ ও ২০১৮ সালের নির্বাচনের ঘটনা পুনরায় ঘটতে দেওয়া হবে না। আমাদের এ আন্দোলনকে জনগণ সমর্থন করবে বলে বিশ্বাস রাখি।’

এসময় অন্যান্যের মধ্যে আরও উপস্থিত ছিলেন, অধ্যাপক ড. মোঃ সোহেল রানা, অধ্যাপক ড. মোঃ মনোয়ার হোসেন, অধ্যাপক ড. মোঃ আবদুর রব, অধ্যাপক ড. মোহম্মাদ কামরুল আহসান, অধ্যাপক ড. এ. এন. এম. ফখরুদ্দিন, অধ্যাপক ড. মোঃ গোলাম মোস্তফা, অধ্যাপক ড. আবেদা সুলতানা, অধ্যাপক মাসুম শাহরিয়ার, অধ্যাপক ড. মুহম্মদ নজরুল ইসলাম, অধ্যাপক ড. মোঃ আব্দুল হালিম, অধ্যাপক মোঃ জামাল উদ্দীন, অধ্যাপক ড. এ কে এম রাশিদুল আলম, অধ্যাপক ড. মোঃ কামরুজ্জামান, অধ্যাপক চৌধুরী গোলাম কিবরিয়া, অধ্যাপক ড. বোরহান উদ্দিন, সহযোগী অধ্যাপক মোহাম্মদ রেজাউল রকিব, কামরুন নেছা খন্দকার প্রমুখ।

যাযাদি/ এস

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়

উপরে