শুক্রবার, ৩১ মে ২০২৪, ১৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১

হাইকোর্টের রায়ে ডিন পদে নিয়োগ পেলেন যবিপ্রবির ড. শিরিন

যবিপ্রবি প্রতিনিধি
  ১৮ মার্চ ২০২৪, ২১:১৮
হাইকোর্টের রায়ে ডিন পদে নিয়োগ পেলেন যবিপ্রবির ড. শিরিন

অবশেষে হাইকোর্টের রায়ে যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (যবিপ্রবি) ফলিত বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি অনুষদের ডিন হিসেবে নিয়োগ পেয়েছেন পুষ্টি ও খাদ্য প্রযুক্তি বিভাগের অধ্যাপক ড. শিরিন নিগার। হাইকোর্টের রায়ের পর সোমবার (১৮ মার্চ) যবিপ্রবি রেজিস্ট্রার স্বাক্ষরিত এক অফিস আদেশে ড. শিরিন নিগারকে এই দায়িত্ব প্রদান করা হয়।

ড. শিরিন নিগার জানিয়েছেন, এই রায় ও রায়ের বাস্তবায়ন যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকদের বিজয়ের মাইলফলক হয়ে থাকবে। বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার প্রকৌশলী মো. আহসান হাবীব স্বাক্ষরিত এক অফিস আদেশে ডিন হিসেবে নিয়োগের বিষয়টি জানানো হয়েছে।

অফিস আদেশে বলা হয়েছে, যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের ফলিত বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি অনুষদের ডিন নিয়োগের বিষয়ে বাংলাদেশ সুপ্রিম কোর্টের হাইকোর্ট ডিভিশন এর রিট পিটিশন নং-৯৯৮২ এর ২০২৩ এর পরিপ্রেক্ষিতে বাদী পক্ষের আইনজীবী ব্যারিস্টার-এট-ল মোস্তফা গোলাম কিবরিয়া কর্তৃক প্রদত্ত সংশ্লিষ্ট বিষয়ে হাইকোর্টের রায় সংক্রান্ত প্রত্যয়নের প্রেক্ষিতে পুষ্টি ও খাদ্যপ্রযুক্তি বিভাগের অধ্যাপক ড. শিরিন নিগারকে২০২৪ সালের ১৯ ফেব্রুয়ারি পূর্বাহ্ন হতে পরবর্তী দুই বছরের জন্য ফলিত বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি অনুষদের ডিনের দায়িত্ব প্রদান করা হলো।

হাইকোর্টের রায় প্রসঙ্গে রিট পিটিশন দাখিলকারী ড. শিরিন নিগারের আইনজীবী অ্যাড. মোস্তফা গোলাম কিবরিয়া জানান, গতবছর ২৩ জুলাই যবিপ্রবির ফলিত বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি অনুষদের ডিন হিসেবে পরিবেশবিজ্ঞান বিভাগের ড. মাহফুজুর রহমানকে নিয়োগ করে রেজিস্ট্রার দফতর চিঠি ইস্যু করে। কিন্তু বিধান অনুযায়ী, ডিন নিয়োগ পাওয়ার কথা পুষ্টি ও খাদ্যপ্রযুক্তি বিভাগের অধ্যাপক ড. শিরিন নিগারের। নিয়মের ব্যত্যয় ঘটিয়ে ডিন নিয়োগ দেয়ায় ড. শিরিন নিগার যবিপ্রবি কর্তৃপক্ষকে লিগ্যাল নোটিশ পাঠান। কিন্তু কোনো জবাব না পেয়ে গত ৭ আগস্ট তিনি উচ্চ আদালতের দ্বারস্থ হন।

গত ১০ আগস্ট হাইকোর্টে তার রিটের শুনানি হয়। শুনানি শেষে বিচারপতি মো. নজরুল ইসলাম তালুকদার ও বিচারপতি খিজির হায়াত রুল জারি করেন। রিটের আদেশে আদালত ‘ড. মাহফুজুর রহমানের ডিন নিয়োগ কেন অবৈধ ঘোষণা করা হবে না এবং তা বাতিলপূর্বক ড. শিরিন নিগারকে কেন ডিন নিয়োগের নির্দেশ দেয়া হবে না’ এর জবাব দেয়ার নির্দেশ দেন।

যবিপ্রবির জবাবের পর গত ১৯ ফেব্রুয়ারি হাইকোর্টের বিচারপতি শেখ হাসান আরিফ ও মো. বজলুর রহমান যবিপ্রবি ফলিত বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি অনুষদের ডিন হিসেবে ড. মাহফুজুর রহমানের নিয়োগ অবৈধ ঘোষণা করেন এবং ডিন হিসেবে ড. শিরিন নিগারকে নিয়োগের নির্দেশ দেন। হাইকোর্টের এই রায়ের প্রত্যয়ন হওয়ার পর ১৮ মার্চ যবিপ্রবি রেজিস্ট্রার স্বাক্ষরিত এক অফিস আদেশে ড. শিরিন নিগারকে ফলিত বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি অনুষদের ডিন হিসেবে নিয়োগ প্রদান করা হয়েছে।

ডিন হিসেবে নিয়োগ পাওয়ার পর অধ্যাপক ড. শিরিন নিগার বলেন, আমি আদালতে ন্যায়বিচার পেয়েছি। হাইকোর্টের দেয়া রায়ে আমি খুবই খুশি। এই রায় ও রায়ের বাস্তবায়ন যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকদের বিজয়ের মাইলফলক হয়ে থাকবে। আশা করি ভবিষ্যতে বিশ্ববিদ্যালয় ন্যায়বিচার নিশ্চিত করবে এবং কখনো কোন শিক্ষককে অধিকার আদায়ের জন্য আদালতের শরণাপন্ন হতে হবে না। আদালতের রায়ের প্রতি শ্রদ্ধা রেখে ডিনের দায়িত্ব প্রদান করায় যবিপ্রবি কর্তৃপক্ষকে ধন্যবাদও জানিয়েছেন তিনি।

যাযাদি/ এম

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়
X
Nagad

উপরে