logo
শনিবার, ২৪ অক্টোবর ২০২০ ৯ কার্তিক ১৪২৭

  সিলেট অফিস   ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০০:০০  

এমসি কলেজ ছাত্রাবাসে গণধর্ষণ

সাইফুর, অর্জুন ও রবিউল ৫ দিনের রিমান্ডে

সাইফুর, অর্জুন ও রবিউল ৫ দিনের রিমান্ডে
গণর্ধষণের প্রতিবাদে সোমবারও সিলেট ছিল উত্তাল। সকাল থেকে নগরীর বিভিন্ন মোড়ে খন্ড খন্ড মিছিল-মানববন্ধন হয়েছে। এদিকে, ধর্ষণের ঘটনায় ছাত্রলীগকর্মী সাইফুর রহমান, অর্জুন লস্কর ও রবিউল ইসলামের পাঁচ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছে আদালত। সোমবার সিলেট মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট দ্বিতীয় আদালতের বিচারক সাইফুর রহমান তাদের এই রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে সোমবার বেলা ১১টা থেকে আদালত এলাকায় পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। পুলিশি পাহারার প্রিজন ভ্যানে করে বেলা ১১-৪০ মিনিটে সাইফুর রহমান ও অর্জুনকে আদালতে নিয়ে আসা হয়।

ওইদিন আদালতে গ্রেপ্তারকৃত সাইফুর রহমান ও অর্জুন লস্করকে হাজির করে ধর্ষণ মামলার তদন্ত কর্মকর্তা শাহপরাণ থানার ওসি (তদন্ত) ইন্দ্রনীল ভট্টাচার্য সাতদিনের রিমান্ড আবেদন করেন। শুনানি

শেষে আদালতের বিচারক পাঁচদিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

এদিকে, এই মামলার অপর আসামি রবিউল ইসলামকেও পাঁচদিনের রিমান্ডে নিয়েছে পুলিশ। সোমবার বিকাল সাড়ে ৩টার দিকে সিলেট মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট দ্বিতীয় আদালতের বিচারক সাইফুর রহমান তাদের এই রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার শেখ মো. সেলিম জানান, রবিউলকে গ্রেপ্তার করতে ওইদিন দুপুর ২টা থেকে পুলিশের তৎপরতা ছিল। কিছু গোপন সূত্র ধরে কাজটি করা হয়েছে।

তিনি জানান, গোয়েন্দা তথ্যের ভিত্তিতে হবিগঞ্জের পুলিশ সুপার মোহাম্মদ উল্যার দিকনির্দেশনায় তাকে আমরা গ্রেপ্তার করতে সক্ষম হয়েছি। তিনি বলেন, কিছু গোয়েন্দা তথ্যের সূত্র ধরে আমরা জানতে পারি, রবিউল নবীগঞ্জের কোথাও অবস্থান করছে।

রবিউল ইসলামকে গ্রেপ্তারের বিষয়ে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার শেখ সেলিম জানান, রোববার রাত ৯টার দিকে আমরা রবিউলের অবস্থান সম্পর্কে নিশ্চিত হই। এ সময় সে নবীগঞ্জের ইনাতগঞ্জ ইউনিয়নের মধ্যসমত গ্রামে এক আত্মীয়ের বাড়িতে অবস্থান করছিল বলে আমরা নিশ্চিত হই।

তিনি জানান, রবিউলের অবস্থান নিশ্চিত করে ওই বাড়িটিকে ঘিরে ফেলে পুলিশ। পরে বাড়িতে ঢোকার সময় দেখা যায়, রবিউল ঘর থেকে বের হয়ে আসছে। পুলিশের অবস্থান টের পেয়ে রবিউল আবারও দ্রম্নত ঘরের ভেতর চলে যায়। সঙ্গে সঙ্গে ঘরের ভেতরে ঢুকে তাকে আটক করা হয়। পরে ওইদিন রাতেই তাকে সিলেট মেট্রোপলিটন পুলিশের কাছে হস্তান্তর করা হয়। গ্রেপ্তারকৃত রবিউল সুনামগঞ্জের দিরাই উপজেলার জগদল গ্রামের বাসিন্দা।

সিলেট মহানগর পুলিশের সহকারী কমিশনার (প্রসিকিউশন) অমূল্য কুমার চৌধুরী জানান, ধর্ষণ মামলায় সাইফুর ও অর্জুন লস্করের পাঁচদিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছে আদালত।

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার শেখ মো. সেলিম বলেন, 'বাংলাদেশ পুলিশ সবসময় আইনের সর্বোচ্চ প্রয়োগের মাধ্যমে অপরাধীদের সাজার ব্যবস্থা করে থাকে। ব্যতিক্রম ঘটেনি এমসি কলেজের গণধর্ষণের ঘটনার ক্ষেত্রেও। পুলিশ সুপারের দিকনির্দেশনায় আমার নেতৃত্বে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সদর, ওসি ডিবি মানিকুল ইসলাম, এসআই আজাদ ও মোজাম্মেলসহ অন্য পুলিশ সদস্যদের টানা আট ঘণ্টার সফল অভিযানে গণধর্ষণ মামলার অন্যতম আসামি মো. রবিউল হাসানকে নবীগঞ্জ থানা এলাকা থেকে গ্রেপ্তার করা হয়।'

পলস্নীসমাজের মানববন্ধন

গণধর্ষণের ঘটনায় অপরাধীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবিতে সিলেট জেলার গোলাপগঞ্জ উপজেলায় পলস্নীসমাজের উদ্যোগে মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করা হয়।

সোমবার বিকালে মানববন্ধনে বক্তারা এ রকম ন্যক্কারজনক ঘটনার তীব্র নিন্দা জানান। ধর্ষণ মামলার সব আসামির দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করেন।

বক্তারা আরও বলেন, সমাজকে সঠিক এবং সুন্দর করতে হলে বিচারহীনতার বেড়াজাল থেকে বেড়িয়ে এসে অপরাধীদের বিচারের আওতায় এনে সঠিক বিচার করতে হবে। তাহলেই দেশে আইনের শাসন প্রতিষ্ঠিত হবে এবং মানুষ সামাজিকভাবে মর্যাদা নিয়ে বাঁচতে পারবে। অপরাধীরা যাতে কোনোভাবেই পার না পায়, সে ব্যাপারে প্রশাসন ও আইনের সতর্ক দৃষ্টি কামনা করছি।

মানববন্ধনে উপস্থিত ছিলেন পলস্নীসমাজ নেত্রী আয়শা বেগম, কল্পনা রানী, গীতা রানী ও রোকেয়া বেগম। আরও উপস্থিত ছিলেন স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তি, ব্র্যাক কর্মকর্তা মঞ্জুর হোসেন, কামরুল ইসলাম, মহসীন হোসেন, মো. কায়েমউদ্দীন, শ্যামল শর্মা ও মোকলেস উদ্দীন প্রমুখ।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সকল ফিচার

রঙ বেরঙ
উনিশ বিশ
জেজেডি ফ্রেন্ডস ফোরাম
নন্দিনী
আইন ও বিচার
ক্যাম্পাস
হাট্টি মা টিম টিম
তারার মেলা
সাহিত্য
সুস্বাস্থ্য
কৃষি ও সম্ভাবনা
বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি
close

উপরে