মাঠপর্যায়ে চাষের অনুমোদনের অপেক্ষায় 'ভেনামী' চিংড়ি

পরীক্ষামূলক চাষের উৎপাদন দেখে গেলেন সচিব
মাঠপর্যায়ে চাষের অনুমোদনের অপেক্ষায় 'ভেনামী' চিংড়ি

খুলনার পাইকগাছায় দ্বিতীয় বছরের মতো পরীক্ষামূলক চাষ হচ্ছে ভেনামী চিংড়ি। মাঠপর্যায়ে ভেনামী চাষের অনুমোদন দিতে এখনো চূড়ান্ত পর্যায়ে পৌঁছেনি সরকার কিংবা মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রাণালয়। শুক্রবার সকালে বাংলাদেশ মৎস্য গবেষণা ইনস্টিটিউট লোনাপানি কেন্দ্র পাইকগাছায় পরীক্ষামূলক ভেনামী চাষের উৎপাদন দেখতে আসেন মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের সচিব ডক্টর মুহাম্মদ ইয়ামিন চৌধুরী। এ বছরও ভেনামীর ভালো উৎপাদন হয়েছে বলে দাবি করেছেন বেসরকারি প্রতিষ্ঠান এমইউসি ফুড লি.-এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক শ্যামল দাশ।

পরিদর্শনকালে সচিব ইয়ামিন চৌধুরী বলেন, ভেনামী একটি নতুন প্রজাতি। এ জন্য আমরা সরাসরি চাষের অনুমোদন দিতে চাচ্ছি না। এটি পরিবেশ এবং অর্থনৈতিক গুরুত্ব সম্পন্ন অন্য প্রজাতির ওপর কি ধরনের প্রভাব ফেলে, সেটি দেখার জন্য বিগত বছরের ন্যায় এ বছরও পরীক্ষামূলকভাবে চাষ করে দেখা হচ্ছে। ফলাফল পজিটিভ হলে তখন আমরা বিষয়টি ভেবে দেখব।

এ সময় বাংলাদেশ মৎস্য গবেষণা ইনস্টিটিউটের মহাপরিচালক ডক্টর ইয়াহিয়া মাহমুদ জানান, বাগদা চিংড়ির ন্যায় ভেনামীও একটি প্রজাতি। এটি আমাদের এখানে একেবারে নতুন। গত বছর থেকে বিএফআরআই'র লোনা পানি কেন্দ্রে এটি পরীক্ষামূলক চাষ হচ্চ্ছে। তবে বাগদাকে বাদ দিয়ে ভেনামী চাষের কোনো পরিকল্পনা বা গবেষণা আমরা করছি না। মূলত ভেনামী আমাদের পরিবেশ এবং উৎপাদনের জন্য কতটা উপযোগী, সেটি পরীক্ষামূলক চাষের মাধ্যমে দেখা হচ্ছে।

অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন- মৎস্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক খন্দকার মাহবুবুল হক, মৎস্য অধিদপ্তরের প্রধান বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা মোহাম্মদ হাবিবুর রহমান, খুলনার উপ-পরিচালক তোফাজউদ্দীন আহমেদ, লোপাকে'র কেন্দ্র প্রধান ও প্রধান বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা ডক্টর মো. লতিফুল ইসলাম, জেলা মৎস্য কর্মকর্তা জয়দেব পাল, ইউএনও মমতাজ বেগম, সাসটেইনেবল কোস্টাল অ্যান্ড মেরিন ফিশারিজ প্রকল্পের উপ-প্রকল্প পরিচালক সরোজ কুমার মিস্ত্রি, বিএফএফইএ সভাপতি হুমায়ুন কবির, সিনিয়র উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা টিপু সুলতান, লোপাকে'র ঊর্ধ্বতন বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা দেবাশীষ মন্ডল প্রমুখ।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

আরও খবর

Copyright JaiJaiDin ©2022

Design and developed by Orangebd


উপরে