ঢাকা ও নাটোরে দুই মরদেহ উদ্ধার

ঢাকা ও নাটোরে দুই মরদেহ উদ্ধার

নাটোরের কালিকাপুর আমহাটি থেকে নুরসাদ প্রামাণিক নামে এক যুবকের মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। শনিবার সকালে সদর উপজেলার ছাতনী ইউনিয়নের কালিকাপুর আমহাটি রেল লাইনের পাশ থেকে মরদেহটি উদ্ধার করা হয়। নিহত নুরসাদ প্রামাণিক একই এলাকার রূপচান প্রামাণিকের ছেলে ও পেশায় একজন দিনমজুর ছিলেন।

নাটোর সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (তদন্ত) আবুল কালাম আজাদ ও নিহতের পরিবারের সদস্যরা জানান, শুক্রবার বিকালে কালিকাপুর আমহাটি বাজারে কেরাম খেলা নিয়ে নুরসাদের সাথে স্থানীয়দের কথা কাটাকাটির ঘটনা ঘটে। এরপর সে বাড়িতে এসে সন্ধ্যার দিকে বাড়ি থেকে বের হয়ে যায়। কিন্তু রাতে সে আর বাড়িতে ফিরে আসেনি। অনেক রাতেও নুরসাদ বাড়িতে ফিরে না আসায় পরিবারের সদস্যরা বিভিন্নস্থানে তাকে খোঁজাখুঁজি করেও কোনো সন্ধ্যান পায়নি। শনিবার সকালে স্থানীয়রা নুরসাদের মরদেহটি রেল লাইনের পাশে পড়ে থাকতে দেখে পুলিশে খবর দেয় এবং মরদেহটি স্থানীয় মসজিদে নিয়ে রেখে দেয়। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন এবং মরদেহটি ময়নাতদন্তের জন্য নাটোর সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠায়। শুধুমাত্র মাথায় আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। এছাড়াও শরীরের কোথাও কোনো আঘাতের চিহ্ন নাই। ময়নাতদন্ত প্রতিবেদন পাওয়ার পর মৃতু্যর সঠিক কারণ জানা যাবে।

এদিকে অভয়নগর (যশোর) প্রতিনিধি জানান, ঢাকায় কর্মরত অবস্থায় মো. পলাশ ওরফে বুরাক (২৭) নামে যশোরের অভয়নগরের এক যুবকের মৃতু্য হয়েছে। বিদু্যৎস্পর্শে নিহত ওই যুবকের মরদেহ শনিবার ভোর রাতে উপজেলার পাঁচকবর এলাকায় পৌঁছায়। নিহত পলাশ পাঁচকবর এলাকার নজরুল ইসলামের বড় ছেলে। সে ঢাকার উত্তর বাড্ডা এলাকায় 'এক্স স্টিল' নামের একটি প্রতিষ্ঠানে ওয়েল্ডিং মিস্ত্রির সহকারী হিসেবে কর্মরত ছিল।

পলাশের সহকর্মী ও প্রত্যক্ষদর্শী রাশেদ খান আলম বলেন, 'শুক্রবার বিকাল আনুমানিক সাড়ে ৫টার সময় প্রতিষ্ঠানের ভেতরে কর্মরত অবস্থায় বিদু্যৎস্পর্শে পলাশ আহত হয়। দ্রম্নত বাড্ডা ফারাজী প্রাইভেট হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক পলাশকে মৃত বলে ঘোষণা করেন।'

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

আরও খবর

Copyright JaiJaiDin ©2022

Design and developed by Orangebd


উপরে