বুধবার, ১৭ এপ্রিল ২০২৪, ৩ বৈশাখ ১৪৩১

নাগেশ্বরীতে অসচ্ছল পরিবার পেল ৬ টাকায় ব্যাগ ভর্তি বাজার

নাগেশ্বরী (কুড়িগ্রাম) প্রতিনিধি
  ০৪ এপ্রিল ২০২৪, ০০:০০
কুড়িগ্রামের নাগেশ্বরীতে গরিব, অসচ্ছল ও নিম্ন আয়ের মানুষের মধ্যে নামমাত্র ৬ টাকায় বিক্রি করা হচ্ছে ব্যাগভর্তি সবজি -যাযাদি

কুড়িগ্রামের নাগেশ্বরীতে গরিব, অসচ্ছল ও নিম্নআয়ের মানুষের মধ্যে নামমাত্র ৬ টাকায় ব্যাগভর্তি সবজি বিক্রি করেছে 'ফাইট আনটিল লাইট' (ফুল) নামের একটি স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন। রমজান মাসের এই ঊর্ধ্বমুখী বাজারে মাত্র ৬ টাকায় ব্যাগভর্তি সবজির বাজার কিনতে পেরে খুশি নিম্নআয়ের মানুষ। গত মঙ্গলবার বেলা ১২টায় উপজেলা অফিসার্স ক্লাবের সামনে এসব সবজি বিক্রির উদ্বোধন করেন উপেজলা নির্বাহী অফিসার সিব্বির আহমেদ। এ সময় উপস্থিত ছিলেন পৌর মেয়র মোহাম্মদ হোসেন ফাকু, সমাজসেবা অফিসার জামাল হোসেন, সংগঠনটির নির্বাহী পরিচালক আব্দুল কাদেরসহ অনেকে।

উদ্বোধনী দিনে নাগেশ্বরী পৌরসভা এলাকার ২ শতাধিক হত-দরিদ্র ও নিম্নআয়ের মানুষের মাঝে এক কেজি পরিমাণ আলু, এক কেজি পরিমাণ গাজর, এক কেজি পরিমাণ বেগুন, এক কেজি পরিমাণ ঢেঁড়স, এক কেজি পরিমাণ করলা, এক কেজি পরিমাণ শসা, একটি মিষ্টি কুমড়া, একটি বাঁধাকপি বিক্রি করে সংগঠনটি। যার বাজার মূল্য প্রায় ৩০০ টাকা। মাত্র ৬ টাকার মধ্যে এতগুলো সবজি কিনতে পেরে খুশি ক্রেতারা। তারা জানান রমজানের এই ঊর্ধ্বমুখী বাজারে ৮ প্রকার সবজি তাদের সংসারে ৫-৭ দিনের সবজি বাজারের খোরাক জোগাবে।

হত-দরিদ্র সবিজি ক্রেতা আদরী বেগম ও জোসনা বেগম জানান, তারা কখনো একবারে এত টাকার বাজার কিনতে পারেননি। আজ মাত্র ৬ টাকায় এতগুলো বাজার করতে পেরেছেন বলে অনেক খুশি তারা। এসব বাজার ঘরে থাকলে তাদের কয়েকদিনের জন্য আর কাঁচা বাজার করতে হবে না।

বাহাদুর আলী নামের আরেকজন ক্রেতা জানান, বর্তমান সময়ে ৫০০ টাকা নিয়ে বাজারে গেলে ব্যাগের তলাই ঢাকে না। সে জায়গায় আজ দরিদ্র মানুষরা মাত্র ৬ টাকায় ব্যাগভর্তি বাজার পেল। এমন উদ্যোগ আসলেই প্রশংসনীয়।

ফাইট আনটিল লাইট (ফুল) এর নির্বাহী পরিচালক আবদুল কাদের জানান, গরিব, 'অসচ্ছল ও নিম্নআয়ের মানুষের জন্য বিভিন্ন সেবামূলক কাজ করে আসছে আমাদের এই সংগঠন। এর আগে আমরা ২ টাকায় ৮০ টাকার ইফতার বিক্রি, ১০ টাকায় শাড়ি-লুঙ্গি বিক্রিসহ বিভিন্ন কল্যাণমূলক কাজ করেছি। এসব কার্যক্রম আমাদের অব্যাহত রয়েছে। তারই অংশ হিসেবে আমরা নামমাত্র ৬ টাকায় সবজি বিক্রি করছি। আমরা এ উপজেলার ৩ হাজার পরিবারের মাঝে ৬ টাকার সবজি বিক্রি কার্যক্রম অব্যাহত রাখব। আমরা মূলত ত্রাণ প্রথা থেকে মানুষকে বেড়িয়ে এসে সম্মানের সঙ্গে বাঁচবার জন্য ৬ টাকা করে সবজি বিক্রি কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছি।'

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়

উপরে