বৃহস্পতিবার, ০২ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ১৯ মাঘ ১৪২৯
walton1

ইরানকে হারিয়ে শেষ ষোলোতে যুক্তরাষ্ট্র

ক্রীড়া প্রতিবেদক
  ০১ ডিসেম্বর ২০২২, ০০:০০
দোহার আল থুমামা স্টেডিয়ামে ইরান ও যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যকার খেলার একটি মুহূর্ত -ওয়েবসাইট

চলতি কাতার বিশ্বকাপে একই গ্রম্নপে পড়েছিল বিশ্ব রাজনীতিতে চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী দুই দেশ ইরান ও যুক্তরাষ্ট্র। ফলে মাঠের লড়াইয়ে এই দুই দলের খেলায় উভয় দলের সামনেই সুযোগ ছিল নকআউট পর্বে জায়গা করে নেওয়ার। জিতলেই শেষ ষোলোর টিকিট নিশ্চিত হত, আর ড্র করলে অপর ম্যাচের দিকে চেয়ে থাকতে হতো তাদের। কিন্তু বি-গ্রম্নপের এমন ম্যাচে ইরানকে গোল করার কোনো সুযোগই দিল না যুক্তরাষ্ট্র। শেষ পর্যন্ত লড়াই করেও যুক্তরাষ্ট্রের বিপক্ষে কোনো পয়েন্ট আদায় করতে পারল না ইরানিয়ানরা। ক্রিস্টিয়ান পুলসিকের একমাত্র গোলে জয় তুলে নেয় যুক্তরাষ্ট্র। বুধবার দোহার আল থুমামা স্টেডিয়ামে ম্যাচের প্রথমার্ধের ৩৮ মিনিটে ক্রিস্টিয়ান পুলিসিকের গোলে এগিয়ে যুক্তরাষ্ট্র। তবে দ্বিতীয়ার্ধে দুর্দান্ত খেলা উপহার দেয় ইরান। বারবার আক্রমণের চেষ্টা করেও দুর্ভাগ্যের কবলে পড়ে গোলের দেখা পায়নি। ফলে ১-০ গোলে পরাজয় বরণ করে দলটি। তাদের কাঁদিয়ে শেষ ষোলোর টিকিট নিশ্চিত করল যুক্তরাষ্ট্র। দুর্দান্ত এ জয়ে আট বছর আর পাঁচ ম্যাচ পর বিশ্বকাপে ম্যাচ জয়ের স্বাদ পেল যুক্তরাষ্ট্র। শেষ ষোলোয় 'এ' গ্রম্নপের চ্যাম্পিয়ন নেদারল্যান্ডসের মুখোমুখি হবে তারা। শুরুর ১০ মিনিট ব্যাপক তোড়জোড় চালিয়েও আক্রমণ শাণাতে ব্যর্থ হয় ইরান। একাদশ মিনিটে প্রথম ভালো সুযোগ পায় যুক্তরাষ্ট্র। তবে পুলিসিকের শট সহজেই ঠেকিয়ে দেন ইরান গোলরক্ষক। ২৯তম মিনিটে আরেক ফরোয়ার্ড টিমোথি উইয়াহর শটও রুখে দেন এই গোলকিপার। যার কারণে ম্যাচের ৩০ মিনিটের মধ্যেই ৫ বার ইরানের গোলপোস্টে শট নেয় যুক্তরাষ্ট্র। তবে কাঙ্ক্ষিত গোলের দেখা পাচ্ছিল না তারা। তবে ৩৯ মিনিটেই কাঙ্ক্ষিত গোলের দেখা পায় যুক্তরাষ্ট্র। ডান পাশ থেকে ডি-বক্সে সার্জিনো ডেস্টের হেডের বল ইরানের ডিফেন্ডারদেরকে কাটিয়ে গোল করেন পুলিসিক। প্রথমার্ধের যোগ করা সময়ে আবারও বল জালে পাঠায় যুক্তরাষ্ট্র। কিন্তু অফসাইডের কারণে বাতিল করা হয় সে গোল। যার সুবাদে ১-০ ব্যবধানেই বিরতিতে যায় আমেরিকানরা। বিরতি থেকে ফিরে দ্বিতীয়ার্ধের শুরু থেকেই আক্রমণের যায় ইরানিয়ানরা। তবে কোন শটই গোলমুখে নিতে পারছিল না তারা। তবে ম্যাচ শেষের মিনিট তিনেক আগে সুযোগ এসেছিল তাদের সামনে। তবে মোর্তেজা পুরালিগাঞ্জির হেড যুক্তরাষ্ট্রের গোলের লক্ষ্যে থাকেনি। রেফারি বাঁশি দেওয়ার একেবারে শেষ মুহূর্তে যুক্তরাষ্ট্রের ডি-বক্সে মেহদি তারেমি পড়ে গেলে পেনাল্টির আবেদন করে ইরান। তবে সেই আবেদনে সাড়া দেননি রেফারি। ফলে কাঁদতে কাঁদতেই মাঠ ছাড়েন ইরান। আর জয়ের সঙ্গে নকআউট পর্ব নিশ্চিতে উলস্নাসে মাতে যুক্তরাষ্ট্রের সমর্থকরা।

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়

উপরে