logo
বৃহস্পতিবার, ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ১৫ ফাল্গুন ১৪২৬

  মো. বাহারুল ইসলাম মোলস্না, ব্রাহ্মণবাড়িয়া   ১৫ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ০০:০০  

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় সূর্যমুখী চাষে সফলতা

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় সূর্যমুখী চাষে সফলতা
ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় সদর উপজেলার বুধল ইউনিয়নে সূর্যমুখী ফুলের বাগান -যাযাদি
ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় এই প্রথমবারের মতো সূর্যমুখী ফুলের চাষ করছেন কৃষকরা। প্রথম বছরেই ব্রাহ্মণবাড়িয়া পৌর এলাকাসহ সদর উপজেলার বুধল, মজলিশপুর ও মাছিহাতা ইউনিয়নের ৮০ বিঘা জমিতে কৃষকরা সূর্যমুখী ফুলের চাষ করেছেন। ইতোমধ্যেই সূর্যমুখী গাছে ফুল ধরতে শুরু করেছে। প্রতিদিন বিকালে শহরসহ আশপাশ এলাকা থেকে সৌন্দর্যপিয়াসুরা দল বেঁধে আসেন এই সূর্যমুখী ফুলের বাগান দেখতে। অনেকেই বাগানে ঢুকে শখ করে ছবি তুলেন। এ যেন এক মনোমুগ্ধকর পরিবেশ।

সরেজমিন সদর উপজেলার বুধল ইউনিয়নের সুতিয়ারা ও চান্দিয়ারা গ্রামে এবং মজলিশপুর ইউনিয়নের বিভিন্ন গ্রামে ঘুরে দেখা গেছে সূর্যমুখী ফুলের বাগান। চাষিরা জানিয়েছেন বুধল ও মজলিশপুর ইউনিয়নের বিভিন্ন গ্রামে ৩০ বিঘা জমিতে সূর্যমুখীর চাষ করা হয়েছে। ইতোমধ্যেই গাছে ফুল ধরেতে শুরু করেছে। চারদিকে হলুদ রঙের ফুলের মনমাতানো ঘ্রাণ, হলুদের সমাহার। প্রতিটি বাগানেই মৌমাছির দল গুণগুণ শব্দে ঘুরে বেড়াচ্ছে।

সদর উপজেলা কৃষি সম্প্রসারণ অফিস সূত্রে জানা গেছে, চলতি বছরে ব্রাহ্মণবাড়িয়া পৌর এলাকাসহ সদর উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়নে প্রথমবারের মতো সূর্যমুখীর চাষ করা হয়েছে। মোট ৮০ বিঘা জমিতে কৃষকরা হাইসান-৩৩ জাতের সূর্যমুখী ফুলের চাষ করেছেন। উপজেলা কৃষি অফিস থেকে কৃষকদের বিনামূল্যে সূর্যমুখীর বীজ ও সার দেওয়া হয়েছে।

সদর উপজেলার বুধল ইউনিয়নের সুতিয়ারা গ্রামের সূর্যমুখী ফুলের চাষি আহসান উলস্নাহ জানান, আগে তিনি তার জমিতে বিভিন্ন ধরনের সবজির চাষ করতেন। মুজিববর্ষ উপলক্ষে এ বছর উপজেলা কৃষি অফিসারের পরামর্শে তিনি প্রথমবারের মতো তার পাঁচ বিঘা জমিতে হাইসান-৩৩ জাতের সূর্যমুখী ফুলের চাষ করেছেন। তিনি বলেন, কৃষি অফিস থেকে তাদের বিনামূল্যে সূর্যমুখীর বীজ ও সার দেওয়া হয়েছে। ইতোমধ্যেই প্রতিটি গাছেই ফুল ধরেছে। আশা করি সূর্যমুখী চাষে সফলতা আসবে। লাভবান হতে পারব।

এ ব্যাপারে ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর উপজেলা কৃষি অফিসার মুনসী তোফায়েল হোসেন বলেন, আগে কখনো সদর উপজেলার কোনো কৃষক সূর্যমুখী ফুলের চাষ করতেন না। এ বছরই মুজিববর্ষ উপলক্ষে প্রথমবারের মতো সরকারের রাজস্ব খাতের অর্থায়নে পৌর এলাকাসহ সদর উপজেলার ১১টি ইউনিয়নের ৮০ বিঘা জমিতে হাইসান-৩৩ জাতের সূর্যমুখী চাষ করা হয়েছে।

এ ব্যাপারে সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার পঙ্কজ বড়ুয়া বলেন, সূর্যমুখী চাষে উদ্বুদ্ধ করতে কৃষকদের বিনামূল্যে সূর্যমুখীর বীজ ও সার দেওয়া হয়েছে। আগামীতে আরও বেশি জমিতে সূর্যমুখীর চাষ হবে।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
close

উপরে