logo
সোমবার ২৬ আগস্ট, ২০১৯, ১১ ভাদ্র ১৪২৬

  ক্রীড়া প্রতিবেদক   ২২ জুলাই ২০১৯, ০০:০০  

তামিমরাই হাথুরুর শেষ প্রতিপক্ষ

তামিমরাই হাথুরুর শেষ প্রতিপক্ষ
চন্ডিকা হাথুরুসিংহে
তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজ খেলতে বাংলাদেশ ক্রিকেট দল এখন শ্রীলংকায় অবস্থান করছে। নিয়মিত ওয়ানডে অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজাসহ দলের গুরুত্বপূর্ণ চার ক্রিকেটার ছাড়াই এবার লংকা সফরে গেছে টাইগাররা। শেষ মুহূর্তে হ্যামস্ট্রিং চোটের কারণে দল থেকে বাদ পড়ায় মাশরাফির পরিবর্তে বাংলাদেশ দলের অধিনায়কত্ব করবেন তামিম ইকবাল। আর এই সিরিজের পর গোটা কোচিং স্টাফ পাল্টে ফেলতে পারে শ্রীলংকার ক্রিকেট বোর্ড (এসএলসি)। অর্থাৎ এর মধ্য দিয়ে শেষ হতে পারে শ্রীলংকা দলে চন্ডিকা হাথুরুসিংহের অধ্যায়।

ইংল্যান্ড বিশ্বকাপের পর আবারও সরব হচ্ছে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট অঙ্গন। বাংলাদেশকে তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজের জন্য আতিথেয়তা দিচ্ছে শ্রীলংকান ক্রিকেট বোর্ড। আর তিন ম্যাচের এই ওয়ানডে সিরিজের পরই দলের কোচিং স্টাফ পাল্টে ফেলতে পারে শ্রীলংকান ক্রিকেট বোর্ড। দেশটির ক্রীড়ামন্ত্রী নাকি তা-ই চান। অর্থাৎ বাংলাদেশের বিপক্ষে ওয়ানডে সিরিজের পরই শেষ হয়ে যেতে পারে শ্রীলংকা দলে চন্ডিকা হাথুরুসিংহের অধ্যায়।

২০১৭ সালের সেপ্টেম্বরে বাংলাদেশের কোচের পদ থেকে আকস্মিক পদত্যাগ করেন চন্ডিকা হাথুরুসিংহে। দলকে দক্ষিণ আফ্রিকা সফরে নিয়ে গিয়ে, সেখান থেকে আর ফেরেননি। শ্রীলংকা দলের কোচ হিসেবে কাজ শুরু করেন ২০১৮ সালের জানুয়ারিতে। শ্রীলংকার হয়ে তার ক্যারিয়ারের দ্বিতীয় অধ্যায়টাও শুরু হয় দুর্দান্ত। বাংলাদেশের মাটিতে বাংলাদেশকে তিন সংস্করণের সিরিজেই হারায় সফরকারী শ্রীলংকা ক্রিকেট দল। তবে এরপর থেকেই খেই হারিয়ে ফেলে লংকানরা। একের পর এক বাজেভাবে পরাজয়ের স্বাদ পেতে হয় হাথুরুসিংহেকে। এমনকি সম্প্রতি শেষ হওয়া বিশ্বকাপেও ভালো করতে পারেনি দিমুথ করুণারত্নের দল। টেবিলের ছয়ে থেকেই বিদায় নিতে হয়েছে গ্রম্নপ পর্ব থেকে। যদিও শ্রীলংকা ক্রিকেট দলের কোচ হাথুরুসিংহে তোপের মুখে ছিলেন বিশ্বকাপের আগে থেকেই। গত মার্চে দক্ষিণ আফ্রিকার মাটিতে ওয়ানডে সিরিজ চলাকালে হাথুরুসিংহেকে হুট করেই দেশে ডেকে পাঠিয়েছিল লংকান ক্রিকেট বোর্ড। তখন থেকেই গুঞ্জন শুরু হয় হাথুরুসিংহে অধ্যায় শেষ হতে যাচ্ছে।

যদিও দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে তাদের মাটিতে ঐতিহাসিকভাবে টেস্ট সিরিজ জিতেজিল হাথুরুর দুর্দান্ত কোচিংয়ে। কিন্তু তাতেই মন গলেনি লংকান ক্রিকেট বোর্ডের কর্মকর্তাদের। প্রথমে তার দল নির্বাচনের দায়িত্বটাও কমিয়ে ফেলে। কিন্তু তারপরও কোচের পদ ছাড়তে চায়নি হাথুরুসিংহে। তখন লংকান ক্রিকেট বোর্ডের কর্মকর্তারা এমন কাজ করার পর মনে করেছিল হয়তো কোচের পদ থেকে সরে যাবেন হাথুরুসিংহে। এরপর তার কোচিংয়ে খেলতে গেল বিশ্বকাপে। কিন্তু সেখানেও আশানুরূপ ভালো ফল করতে ব্যর্থ হলো শ্রীলংকা।

যদিও বিশ্বকাপে ভালো করতে পারলে হয়তো ভিন্ন কিছুই হতো। কিন্তু আপাতত শ্রীলংকার ক্রীড়ামন্ত্রী হরিন ফার্নান্দো চান দলের কোচিং স্টাফে বদল। এসএলসি প্রধান শাম্মি সিলভাও ক্রীড়ামন্ত্রীর ইচ্ছার বাইরে যেতে পারবেন বলে মনে হচ্ছে না, 'আমরাও একই কথা ভাবছি। তবে দেশে ফিরে দেখি কী করা যায়। সবার আগে আমাদের মন্ত্রী মহোদয়ের সঙ্গে কথা বলতে হবে।'

শ্রীলংকান ক্রিকেটে সরকারি হস্তক্ষেপের নজির কম নেই। এটিকে সে ধরনেরই কিছু ধরে নেয়া যায়। তবে বাংলাদেশের বিপক্ষে ওয়ানডে সিরিজে এসব কোনো প্রভাব রাখবে না বলেই মনে করেন এসএলসি সভাপতি, 'কোচিং স্টাফের বিষয়াদির সঙ্গে দলের কোনো সম্পর্ক নেই। কোচদের সঙ্গে খেলোয়াড়দের বেশি মাখামাখি থাকলেই কেবল এটি সমস্যা হয়ে দেখা দিতে পারে। আমার মনে হয় না সফরে এসব কোনো প্রভাব ফেলবে।'

চন্ডিকা হাথুরুসিংহের নেতৃত্বাধীন কোচিং স্টাফে ব্যাটিং কোচ হিসেবে আছেন জন লুইস আর ফিল্ডিং কোচ স্টিভ রিক্সন। সংবাদমাধ্যম জানিয়েছে, মূলত হাথুরুসিংহেকে কেন্দ্র করেই ক্রীড়ামন্ত্রী গোটা কোচিং স্টাফের পদত্যাগ চেয়েছেন। তার চুক্তির মেয়াদ শেষ হতে এখনো ১৬ মাস বাকি। অথচ ২৬ জুলাই শ্রীলংকার বিপক্ষে সিরিজের প্রথম ওয়ানডে খেলবে বাংলাদেশ। ৩১ জুলাই শেষ হবে সিরিজের তৃতীয় ম্যাচটি।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
close

উপরে