logo
মঙ্গলবার, ১৮ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ৬ ফাল্গুন ১৪২৬

  ক্রীড়া ডেস্ক   ১৫ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ০০:০০  

ব্যস্ততার জন্য দক্ষিণ আফ্রিকার পাকিস্তান সফর স্থগিত

দ. আফ্রিকার পাকিস্তান সফর সফরটা আপাতত স্থগিত করা হয়েছে। পরবর্তীতে সুবিধাজনক সময়ে পাকিস্তান সফরে যাবে দক্ষিণ আফ্রিকা

প্রায় এক দশক পর পাকিস্তানের মাটিতে ফিরেছে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট। এজন্য অনেক কাঠখড় পুড়াতে হয়েছে দেশটির ক্রিকেট বোর্ডকে (পিসিবি)। শ্রীলংকার পর পাকিস্তান সফর করল বাংলাদেশ দুই দফা। সামনে এপ্রিলে তৃতীয় দফা সফরে যাবে টাইগাররা একটি করে ওয়ানডে ও টেস্ট খেলতে।

কিন্তু রাষ্ট্রপ্রধানদের মতো কঠোর নিরাপত্তা পেয়েও পাকিস্তান সফরে যাবে না দক্ষিণ আফ্রিকা। মার্চে তিন ম্যাচের টি২০ খেলতে ইমরান খানের দেশে সফরে যাওয়ার কথা ছিল প্রোটিয়াদের। ক্রিকেটারদের ব্যস্ত সময়সূচির ধকল কমানোর জন্যই এ সিদ্ধান্ত নিয়েছে ক্রিকেট দক্ষিণ আফ্রিকা (সিএসএ)।

তবে সফরটা একেবারে বাতিল হয়ে যায়নি। আপাতত স্থগিত করা হয়েছে। পরবর্তীতে সুবিধাজনক সময়ে পাকিস্তান সফরে যাবে দক্ষিণ আফ্রিকা।

আগামী মাসে ভারত সফরে যাবে ফাফ-ডু পেস্নসিস ও কুইন্টন ডি ককরা। এই সফর শেষ করে পাকিস্তানে যাওয়া প্রোটিয়া ক্রিকেটারদের জন্য কষ্টকর হয়ে দাঁড়াবে। দুই সফরের মাঝে পর্যাপ্ত বিশ্রাম না থাকায় ক্রিকেটারদের ইনজুরিতে পড়ার সম্ভাবনা থেকে যায়। খেলোয়াড়দের ক্লান্তিমুক্ত ও ফিট রাখতে পাকিস্তান সফরের সিদ্ধান্ত থেকে আপাতত সরে এসেছে আফ্রিকান দলটি।

ভারত সফরে দক্ষিণ আফ্রিকা খেলবে তিনটি ওয়ানডে। যার সর্বশেষটি হবে ১৮ মার্চ। এরপর পাকিস্তান তাদের দুবাইতে রাখতে চেয়েছিল। ২২ মার্চ পিএসএল শেষ হলে তিন ম্যাচের টি২০ খেলতে তাদের সোজা রাওয়ালপিন্ডিতে উড়িয়ে নিয়ে যেত পিসিবি।

চার টেস্ট ও তিন ওয়ানডে খেলে এখন তিন ম্যাচের টি২০ সিরিজে ইংল্যান্ডকে মোকাবিলা করছে প্রোটিয়ারা। এরপর অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে হোম সিরিজে তিনটি করে টি২০ ও ওয়ানডে খেলবে তারা। যার শেষ ম্যাচটি হবে ৭ মার্চ। সিরিজ শেষ করেই ভারতের উদ্দেশে রওয়ানা হবে দক্ষিণ আফ্রিকার টিম।

২৮ মার্চ থেকে আবার শুরু হওয়ার কথা আইপিএল। এর মধ্যে আরও তিনটি সাদা বলের ম্যাচ ক্রিকেটারদের জন্য বাড়তি চাপ হয়ে দাঁড়াবে। ঠিক এ কারণেই পাকিস্তান সফরে যাচ্ছে না দক্ষিণ আফ্রিকা।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
close

উপরে