কালো টাকার দৌরাত্ম্য

অর্থনৈতিক ভারসাম্য নষ্ট হচ্ছে
কালো টাকার দৌরাত্ম্য

যতই দিন যাচ্ছে দেশে কালো টাকার দৌরাত্ম্য বেড়েই চলেছে। কালো টাকার দাপটে সাদা টাকা অসহায়। অসহায় দেশের সৎ মানুষও। বাজেটে কালো টাকা সাদা করার সুযোগ রাখা হয়েছে। কালো টাকার দাপটের কারণেই দেশে অর্থনৈতিক ভারসাম্য নষ্ট হচ্ছে। অবাক ব্যাপার, ১৯৭২-৭৩ অর্থবছর থেকে শুরু করে ২০১৮-২০১৯ বছর পর্যন্ত বাংলাদেশে কালো টাকার পরিমাণ দাঁড়িয়েছে ৮৮ লাখ ৬১ হাজার কোটি টাকা। একই সময়ে বিদেশে অর্থ পাচারের পরিমাণ ৮ লাখ কোটি টাকা। রোববার অর্থনীতি সমিতির অডিটোরিয়ামে 'বাংলাদেশ অর্থনীতি সমিতির বিকল্প বাজেট প্রস্তাবনা ২০২২-২৩ : একটি জনগণতান্ত্রিক বাজেট প্রস্তাব' শীর্ষক সংবাদ সম্মেলনে সমিতির সভাপতি অধ্যাপক ড. আবুল বারকাত এ সব তথ্য জানান। অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন বাংলাদেশ অর্থনীতি সমিতির সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক ড. মো. আইনুল ইসলাম।

দেশের আয় বৃদ্ধি ও বাজেট ঘাটতি পূরণের বিষয়ে অধ্যাপক ড. আবুল বারকাত বলেন, অভ্যন্তরীণ সম্পদ আহরণে অন্যতম উৎস হলো সম্পদ কর ও অতিরিক্ত মুনাফার ওপর কর। এ ছাড়া কালো টাকা উদ্ধার থেকে প্রাপ্ত অর্থ এবং পাচার ও বিদেশি নাগরিক থেকে প্রাপ্ত কর। তাই আমরা ওই টাকা সংগ্রহের কথা বলছি। কালো টাকা উদ্ধার ও পাচার হওয়া অর্থ ফিরিয়ে বাজেট ঘাটতি পূরণের কথা বলা হয়েছে। প্রত্যক্ষ করের ওপর জোর দেওয়ার পাশাপাশি বিকল্প বাজেটে বৈদেশিক ঋণ ও ব্যাংক ঋণকে নিরুৎসাহিত করা হয়েছে।

আমরা মনে করি কালো টাকার দাপট কমাতে না পারলে এর কুপ্রভাব সমাজের সর্বস্তরে পড়বে। দেশ থেকে দারিদ্য হ্রাস করা কঠিন হয়ে পড়বে। এক প্রতিবেদনে প্রকাশ, দেশের সবচেয়ে কম দরিদ্র মানুষের বসবাস ঢাকার অভিজাত এলাকা গুলশানে, মাত্র ০ দশমিক ৪ শতাংশ। আর সবচেয়ে বেশি দরিদ্র মানুষের বসবাস কুড়িগ্রামের চর রাজিব উপজেলায়, ৭৯ দশমিক ৮ শতাংশ। ২০১৬ সালের দারিদ্র্যের তথ্য-উপাত্ত ব্যবহার করে উপজেলা ও মেট্রোপলিটন এলাকার দরিদ্র মানুষের সংখ্যা বের করে বাংলাদেশ পরিসংখ্যান বু্যরো (বিবিএস) এ সব তথ্য জানিয়েছে।

স্বাধীন ও সার্বভৌম বাংলাদেশকে নিয়ে আমরা গর্বিত ও আশাবাদী। এই দেশ এক দিন উন্নত দেশের কাতারে যাবে। এমন স্বপ্ন দেশদরদি জনগণ দেখে, দেখে সরকারও। প্রত্যাশা করা, স্বপ্ন দেখা আর তা বাস্তবে রূপ দেওয়া এক কথা নয়। কঠিন সাধনার মাধ্যমে সত্যের মুখোমুখি হওয়া এবং তাকে সফল পরিণতির দিকে নিয়ে যাওয়া সহজ ব্যাপার নয়। পরিকল্পনা, পরিশ্রম, গঠনমূলক চিন্তা ছাড়া যেমন ব্যক্তি, পরিবার, সমাজের উন্নয়ন সম্ভব নয়, একইভাবে সম্ভব নয় রাষ্ট্রের উন্নয়নও। রাষ্ট্র তা যত ক্ষুদ্রই হোক তার চরিত্র হতে হবে গণমুখী তথা জনকল্যাণমূলক। আমাদের দুর্ভাগ্য, বাংলাদেশকে নিয়ে বিগত পাঁচ দশকে অনেক স্বপ্ন দেখলেও রাষ্ট্রের কাঠামোগত চরিত্র দাঁড় করানো সম্ভব হয়নি। যার কারণে কালো টাকার দাপট বেড়েই চলেছে। দুঃখজনক বাস্তবতা হচ্ছে, দুর্নীতির রাহুগ্রাস থেকে বাংলাদেশ এখনো মুক্ত হতে পারেনি। যার কারণেই চারদিকে কালো টাকার ছড়াছড়ি। সরকারের পরিকল্পিত উদ্যোগই কেবল পারে দেশ থেকে কালো টাকার দাপট কমাতে।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

আরও খবর

Copyright JaiJaiDin ©2022

Design and developed by Orangebd


উপরে