মালিকপক্ষের দেওয়া প্রস্তাব যৌক্তিক নয় : নৌসচিব

লঞ্চ ভাড়া পুনর্নির্ধারণে সিদ্ধান্ত হয়নি, ওয়ার্কিং কমিটি গঠন

লঞ্চ ভাড়া পুনর্নির্ধারণে সিদ্ধান্ত হয়নি, ওয়ার্কিং কমিটি গঠন

দেশে সব ধরনের জ্বালানি তেলের দাম বাড়ায় লঞ্চের ভাড়া বাড়ানোর আবেদন জানিয়েছে মালিকপক্ষ। তাদের প্রস্তাবের বিষয়ে বৈঠকে বসেছিল নৌপরিবহণ মন্ত্রণালয়। বৈঠকে ভাড়া বাড়ানোর কোনো সিদ্ধান্ত হয়নি তবে বিষয়টি নিয়ে একটি ওয়ার্কিং কমিটি গঠন করা হয়েছে।

সোমবার লঞ্চ মালিকদের সঙ্গে বৈঠক শেষে নৌপরিবহণ মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. মোস্তফা কামাল এ তথ্য জানান। তিনি জানান, জ্বালানি তেলের নতুন দাম পুনর্র্নির্ধারণ করা হয়েছে। এর ফলে বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহণ কর্তৃপক্ষের প্রেসিডেন্ট ভাড়া পুনর্র্নির্ধারণের জন্য একটি চিঠি দিয়েছেন। এছাড়া লঞ্চ মালিক সমিতির পক্ষ থেকেও সভাপতি আমাদের একটি চিঠি দিয়েছেন। মালিকপক্ষ যে প্রস্তাব দিয়েছে সেটিকে আমরা যৌক্তিক মনে করছি না। এ জন্য একটি ওয়ার্কিং কমিটি গঠন করা হয়েছে। ওয়ার্কিং কমিটি সরকারের কাছে প্রস্তাব দেবে, সে অনুযায়ী ভাড়া বাড়ানো হবে।

তিনি বলেন, বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌ-চলাচল যাত্রী পরিবহণ সংস্থার পক্ষ থেকে প্রস্তাব হচ্ছে প্রতি কিলোমিটার যেখানে আগে দুই টাকা ৩০ পয়সা ছিল সেটা বৃদ্ধি করে ৪ টাকা ৬০ পয়সা করা এবং যেটা দুই টাকা ছিল সেটা বৃদ্ধি করে ৪ টাকা করা। মূল্যবৃদ্ধি বা পুনর্র্নির্ধারণ প্রয়োজন আছে, কিন্তু এটা আমাদের কাছে একটু বেশি মনে হচ্ছে। এ কারণে আমরা একটি ওয়ার্কিং কমিটি করে দিয়েছি।

সচিব বলেন, সভা শেষে ওয়ার্কিং কমিটি বসবে।

যেভাবে আগে মূল্য নির্ধারণ করা হয়েছিল, একইভাবে পুনর্র্নির্ধারণ করা হবে। আমরা কয়েকটি বিষয় এখানে বিবেচনায় নিচ্ছি। শুধু সদরঘাট নয়, সারা বাংলাদেশকে চিন্তা করে সিদ্ধান্তটি নিতে হবে।

তিনি বলেন, আমাদের কাছে তারা সুপারিশ দেবেন। সরকারের বিবেচনার জন্য আমরা উপস্থাপন করব। আমরা আমরা আশা করছি মঙ্গলবার বা ১০ আগস্টের মধ্যে এ বিষয়ে আমরা গেজেট প্রকাশ করতে পারব।

লঞ্চ মালিকদের যে দাবি ছিল সেটা যৌক্তিক মনে করছেন কি না- জানতে চাইলে সচিব বলেন, তারা প্রস্তাব দিয়েছে শতভাগ বৃদ্ধির এবং সেখানে তারা আরও কিছু বিষয় নিয়ে এসেছে অন্যান্য উপকরণ মবিল বা অন্যান্য সরঞ্জাম। আমার মনে হচ্ছে সেগুলো তো নতুন করে বাড়েনি। সেটা আমাদের জন্য মূল বিবেচ্য বিষয় নয়। তবে এটা পুনর্র্নির্ধারণ হবে, অবশ্যই রিজেনেবল হবে। কিন্তু ওনারা যেটা চেয়েছেন সেটা অবশ্যই বেশি, সেটা থেকে কমই হবে বলে আমি মনে করি।

গেজেট প্রকাশ পাওয়ার পর থেকে নতুন ভাড়া কার্যকর হবে বলেও জানান তিনি।

এদিকে, ডিজেলের দাম ২৩ শতাংশ বাড়ানোর পর গত বছরের নভেম্বরেই লঞ্চের ভাড়া ৩৫ শতাংশের বেশি বাড়ানো হয়েছিল। নভেম্বরের আগে লঞ্চে ১০০ কিলোমিটার মধ্যে দূরত্বে প্রতি কিলোমিটারে ভাড়া ছিল ১ টাকা ৭০ পয়সা। তখন তা থেকে বাড়িয়ে ২ টাকা ৩০ পয়সা করা হয়েছিল। ১০০ কিলোমিটারের বেশি দূরত্বে প্রতি কিলোমিটারের ভাড়া নভেম্বরের আগে ছিল ১ টাকা ৪০ পয়সা। তা থেকে বাড়িয়ে করা হয়েছিল ২ টাকা। আর লঞ্চের সর্বনিম্ন ভাড়া ১৮ টাকা থেকে বাড়িয়ে ২৫ টাকা করা হয়েছিল নভেম্বরে।

প্রসঙ্গত, গত শুক্রবার রাত ১২টার পর জ্বালানি তেলের নতুন দাম কার্যকর করেছে সরকার। ডিজেল ও কেরোসিনের দাম লিটারে ৩৪ টাকা বাড়িয়ে ১১৪ টাকা, পেট্রোলের দাম ৪৪ টাকা বাড়িয়ে ১৩০ টাকা এবং অকটেনের দাম ৪৬ টাকা বাড়িয়ে ১৩৫ টাকা করা হয়েছে।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

আরও খবর

Copyright JaiJaiDin ©2022

Design and developed by Orangebd


উপরে