আজমিরীগঞ্জে লক্ষ্যমাত্রার দ্বিগুণ আমন আবাদ

আনোয়ারায় আখ চাষে স্বপ্ন দেখছেন কৃষক
আজমিরীগঞ্জে লক্ষ্যমাত্রার দ্বিগুণ আমন আবাদ

হবিগঞ্জের আজমিরীগঞ্জে এ বছর আমনের বাম্পার ফলন হয়েছে। উপজেলাজুড়ে এবার লক্ষ্যমাত্রার দ্বিগুণ আবাদ করা হয়েছে। এদিকে, চট্টগ্রামের আনোয়ারায় আখ চাষে স্বপ্ন বুনছেন সেখানকার কৃষকরা। প্রতিনিধিদের পাঠানো তথ্যে বিস্তারিত ডেস্ক রিপোর্র্ট-

আজমিরীগঞ্জ (হবিগঞ্জ) প্রতিনিধি জানান, রোপা আমন চাষে আগামীর স্বপ্ন বুনছেন হবিগঞ্জের আজমিরীগঞ্জ উপজেলার কৃষকরা। ছেলেমেয়ে ও পরিবার-পরিজন সুখে থাকবে এমনই স্বপ্নে বিভোর তারা। রোদ-বৃষ্টি মাথায় নিয়ে রোপা আমন আবাদ, বাচাই ও পরিচর্চায় ব্যস্ত সময় পার করছেন উপজেলার কৃষকরা।

এবার রোপা আমন শুরুতেই পর্যাপ্ত পরিমাণে বৃষ্টি হওয়ায় অনেক উপকার হয়েছে ধান গাছের। বৃষ্টির পানি পেয়ে রোপা আমন ধানের চারা রোপণে ব্যস্ত কৃষকরা।

আজমিরীগঞ্জ উপজেলা কৃষি অধিদপ্তর সূত্রে জানা যায়, চলতি মৌসুমে উপজেলার পাঁচটি ইউনিয়ন ও একটি পৌরসভায় চাষের লক্ষ্যমাত্রা ছিল ৩ হাজার ৯৯০ হেক্টর জমি। কিন্তু আবাদ হয়েছে ৭ হাজার ৭০০ হেক্টর জমি। গত মৌসুমের চেয়ে এ মৌসুমে ৩ হাজার ৭১০ হেক্টর জমি বেশি আবাদ হয়েছে।

কৃষক আলতাব হেসেন বলেন, এ বছর পর্যাপ্ত পরিমাণে বৃষ্টি হয়েছে। পুরোদমে ধানের চারা রোপণ করছেন। তবে শ্রমিক সংকটে অতিরিক্ত মূল্য দিতে হচ্ছে। বাহার মিয়া বলেন, গত রোপা আমন মৌসুমে তিনি ১৮ বিঘা জমি চাষ করেছিলেন। ভালো ফলন ও মূল্য পাওয়ায় এবার চাষ করেছেন ৩৫ বিঘা।

উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা বনি আমিন খান বলেন, এ বছর হাওড়ের পানি দ্রম্নত নেমে যাওয়ায় লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে দ্বিগুণের চেয়েও বেশি জমিতে রোপা আমন আবাদ করা হয়েছে। সরকারের পক্ষ থেকে কৃষকদের সহযোগিতা করা হচ্ছে।

আনোয়ারা (চট্টগ্রাম) প্রতিনিধি জানান, আখ বাংলাদেশের একটি অন্যতম অর্থকরী ফসল। আখ থেকে চিনি ও গুড় তৈর ছাড়াও মানুষের কাছে খুব জনপ্রিয়। অন্যান্য কৃষি ফসল উৎপাদনে উপকরণের দাম বৃদ্ধি ও অল্প খরচে বেশি লাভবান হওয়ায় চট্টগ্রামের আনোয়ারায় দিন দিন বাড়ছে আখের চাষ। রোগবালাই কম ও লাভজনক হওয়ায় আখ চাষে স্বপ্ন বুনছেন কৃষকরা। চলতি বছর আনোয়ারায় বেলজিয়াম ও হাইব্রিড জাতের ৬ একর জমিতে আখ চাষ করা হয়েছে। কৃষি অফিস থেকে আখ চাষে চাষিদের সব ধরনের সহযোগিতা করা হচ্ছে।

সরেজমিন বটতলী ও ওষখাইন এলাকা ঘুরে দেখা যায়, ধানি জমিতে আখের বাম্পার ফলন হয়েছে। মাঠ থেকে আখ উত্তোলন শুরু করেছেন কৃষকরা। বাজারজাত ও পরিবহণের ঝামেলা ছাড়াই ভালো দামে মাঠের আখ মাঠে খুচরা ও পাইকারি দামে বিক্রি করে বেজায় খুশি তারা। উপজেলা কৃষি অফিস সূত্রে জানা যায়, অন্যান্য কৃষি ফসলের তুলনায় আখ চাষ বেশি লাভজনক। উপজেলার বটতলী, পরৈকোডা, হাইলধর ইউনিয়নে আখ চাষ করেছেন কৃষকরা। চলতি বছর ৬ একর জমিতে আখ চাষ করা হয়েছে। যা গত বছর ছিল ৩ একর।

বটতলী এলাকার কৃষক নেজাম উদ্দিন বলেন, ধান চাষে খরচ বেশি তাই গত বছর থেকে আখ চাষ শুরু করেছেন। এ বছর ১০ গন্ডা জমিতে আখ চাষ করেন। এতে খরচ হয়েছে ২০ হাজার টাকা। এ পর্যন্ত ৮০ হাজার টাকার বিক্রি হয়েছে। আরও লক্ষাধিক টাকার আখ মাঠে আছে।

উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা রমজান আলী বলেন, আনোয়ারায় আখ চাষ সম্পর্কে কৃষকদের ধারণা ছিল না। উপজেলা কৃষি অফিসের সহযোগিতা ও পরামর্শে গত বছর থেকে বাণিজ্যিকভাবে আখ চাষ শুরু হয়। আবহাওয়া অনুকূলে থাকায় চলতি বছর তেমন রোগবালাই দেখা দেয়নি। তাই কৃষকরা ভালো দাম পেয়ে লাভবান হবেন।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

আরও খবর

Copyright JaiJaiDin ©2022

Design and developed by Orangebd


উপরে