বললেন বিসিবি সভাপতি

পাকিস্তান সফরে ছাড়পত্র পাচ্ছে বিসিবি

নাজমুল হাসান পাপন বলেন, 'আমরা নিরাপত্তার ব্যাপারে সরকারের কাছে যে আবেদন করেছিলাম, আমরা নিরাপত্তা ছাড়পত্র পেয়ে যাব।'
পাকিস্তান সফরে ছাড়পত্র পাচ্ছে বিসিবি

বাংলাদেশের পাকিস্তান সফরের ব্যাপারে সরকারের কাছ থেকে ছাড়পত্র পাওয়ার সম্ভাবনা দেখছেন বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান। বোর্ড প্রধান জানান আগামী চার-পাঁচদিনের মধ্যেই বিষয়টি সুরাহা হয়ে যাবে। তারা নিতে পারবেন চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত।

এফটিপি অনুযায়ী আগামী মাসে দুই টেস্ট ও তিন টি২০'র সিরিজ খেলতে পাকিস্তানে যাওয়ার কথা বাংলাদেশের। কিন্তু নিরাপত্তার কারণে সে সফর হবে কি না তা নিয়ে আছে অনিশ্চয়তা। নিরাপত্তার ছাড়পত্র পেতে তাই সরকারের সিদ্ধান্তের অপেক্ষায় আছে বোর্ড।

শনিবার বিসিবি সভাপতি বলেন, 'সরকারের কাছে তাদের করা আবেদন ইতিবাচক দিকে মোড় নিচ্ছে বলে ধারণা করছেন তিনি, 'আমরা নিরাপত্তার ব্যাপারে সরকারের কাছে যে আবেদন করেছিলাম, নিরাপত্তা ব্যবস্থার ব্যাপারে ছাড়পত্র পাব কি না- সেটা নিয়ে চিঠি পাঠিয়েছিলাম। এর আগে মেয়েদের দল গিয়েছে, অনূর্ধ্ব-১৬ দল গিয়ে খেলে এসেছে। জাতীয় দলের ছাড়পত্র এখনো আমরা পাইনি। যদিও সিকিউরিটির ব্যাপারে জিজ্ঞেস করেন সেটা অনূর্ধ্ব-১২ হোক, জাতীয় দল হোক নিরাপত্তা নিরাপত্তাই। সবার জন্য একই হওয়ার কথা। তাই আমরা ধরে নিচ্ছি সম্ভাবনা আছে আমরা নিরাপত্তা ছাড়পত্র পেয়ে যাব।'

পাকিস্তানের নিরাপত্তা খতিয়ে দেখতে সরকারের একটি দল পাকিস্তান ঘুরে এসেছে। সব মিলিয়ে বিসিবি প্রধানের আশা শিগগিরই ছাড়পত্র হাতে আসবে তাদের, তবে ছাড়পত্র পাওয়ার পরই সফর নিশ্চিত হচ্ছে না, ক্রিকেটারদের সঙ্গে আলাপ করে তবেই সিদ্ধান্ত নেবে বোর্ড, 'উনারা (সরকারের প্রতিনিধি) গিয়েছেন, দেখেছেন। সেক্ষেত্রে আমরা আশা করছি যেকোনো দিন পেয়ে যাব (ছাড়পত্র)। পাওয়ার পর বলতে পারব আমরাদের সিদ্ধান্তটা কী। কারণ এখানে একটা হচ্ছে সিকিউরিটি ক্লিয়ারেন্স। পরবর্তীতে বড় প্রশ্ন আছে খেলোয়াড়দের। তাদের মতামতও এখানে গুরুত্বপূর্ণ কে যেতে চাবে কী চায় না। এখানে অনেকগুলো ব্যাপার আছে। বোর্ডের সিদ্ধান্তের ব্যাপার আছে। সবমিলিয়ে সবকিছু প্রায় শেষের দিকে আছে। নিরাপত্তা ছাড়পত্র পাওয়ার পরই আমরা বসব। আশা করছি আগামী ৪-৫ দিনের মধ্যে এটার একটা সিদ্ধান্ত নিতে পারব।'

নিরাপত্তার কারণে কোনো ক্রিকেটার বা কোচ যদি পাকিস্তান সফরে না যেতে চান তাহলে বিসিবি জোরাজুরি করবে না বলেও জানান বোর্ড প্রধান, 'এটা তো জোর করার কিছু নেই। বোর্ড থেকে কাউকে জোর করে পাঠানো হবে না। এটা হলো এখন পর্যন্ত আমাকে যদি জিজ্ঞেস করেন আমার চিন্তা। কাউকে জোর করে পাঠানোর কোনো প্রশ্নই ওঠে না।'

২০০৯ সালে শ্রীলংকা দলের ওপর হামলার পর আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে নির্বাসিত হয় পাকিস্তান। বেশ ক'বছর পর সীমিত আকারে ফেরা শুরু করে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট। সম্প্রতি শ্রীলংকা দল প্রথমে দ্বিতীয় সারির স্কোয়াড দিয়ে খেলে আসে টি২০ সিরিজ। এখন পুরো শক্তির শ্রীলংকা দলই পাকিস্তানে টেস্ট সিরিজ খেলছে। শ্রীলংকা দলের সফরের মধ্য দিয়ে দশ বছর পর টেস্ট ফেরে বারবার সন্ত্রাসী হামলায় জর্জরিত পাকিস্তানে।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

Copyright JaiJaiDin ©2021

Design and developed by Orangebd


উপরে