পানির অভাবে আমন আবাদ নিয়ে দুঃচিন্তায় কৃষক

পানির অভাবে আমন আবাদ নিয়ে দুঃচিন্তায় কৃষক

কুড়িগ্রামের চিলমারীতে চলতি রোপা আমন মৌসুম নিয়ে দুঃচিন্তায় দিন পার করছেন কৃষকরা। জমিতে চারা রোপনের সময় পেরিয়ে গেলেও প্রয়োজনীয় পানির অভাবে চারা রোপন করতে পারছেন না তারা। এদিকে চারার বয়স ক্রমশই বাড়তে থাকায় উদ্বিগ্ন কৃষকদের অনেকেই আমন রোপনে সেচ যন্ত্র ব্যবহার করছেন। এতে বাড়তি খরচ পোহাতে হচ্ছে কৃষকদের।

জানাগেছে, গত ৪ আগস্ট উপজেলায় সামান্য পরিমাণ বৃষ্টি হলেও তাতে কোন উপকারে আসেনি। রোপন বিলম্বিত হওয়ায় চারায় পচন ধরছে। বাড়তি খরচে সেচ দেয়ার সামর্থ নেই যাদের সে সব খুদ্র কৃষক জনগোষ্ঠি পড়েছেন সবচেয়ে বিপাকে।

বিষয়টি নিশ্চিত করে উপজেলা উপ-সহকারী উদ্ভীদ সংরক্ষণ অফিসার মৃপেনন্দ্রনাথ সরকার বলেন, চলতি মাসের ৪ আগস্ট ২ মিলি মিটার বৃষ্টিপাত হয়েছে। এতে আমন আবাদে তেমন প্রভাব ফেলেনি।

উপজেলা কৃষি অফিস সুত্রে জানাগেছে, উপজেলায় এ বছর আমন চাষের লক্ষমাত্রা ধরা হয়েছে ৮ হাজার ২’শ হেক্টর। এরমধ্যে ১৫’শ হেক্টর জমিতে চারা রোপনের কাজ শেষ করেছে কৃষকরা। এর ৯০ ভাগই সেচের সাহায্যে রোপন করা।

কৃষকরা জানান, সেচ দিয়ে চারা লাগানোর পরেও তীব্র খরায় জমি ফেটে যাচ্ছে। তাই দফায় দফায় সেচ দিতে হচ্ছে। এতে খরচ পড়ছে বেশি। অনেক এলাকায় সেচযন্ত্র চালু না থাকায় কৃষকরা পড়েছেন বিপাকে।

কৃষি অফিসার প্রণয় কৃষাণ দাস বলেন, মধ্য আগস্ট পর্যন্ত চারা রোপনের সময় রয়েছে। তবে চারার বয়স বেড়ে ফলন কম হবার আশঙ্কা দেখা দিয়েছে। তাই কৃষকদের সেচ দিয়ে চারা রোপনের পরামর্শ দেয়া হচ্ছে। তিনি আরও জানান, ইতোমধ্যে উপজেলার ২৮টি গভীর নলকুপের মধ্যে ৭টি চালু করা হয়েছে।

যাযাদি/ এস

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

আরও খবর

Copyright JaiJaiDin ©2021

Design and developed by Orangebd


উপরে