চকরিয়ায় ৩২ হেক্টর জমিতে আখ চাষে কৃষকের মুখে হাসি

চকরিয়ায় ৩২ হেক্টর জমিতে আখ চাষে কৃষকের মুখে হাসি

কক্সবাজারের চকরিয়া উপজেলায় চলতি মৌসুমে আখ চাষে আশানুরূপ ফলন ও বিপুল লাভের মুখ দেখছেন চাষিরা। মৌসুমের এক গুরুত্বপূর্ণ অর্থকরী ফসল আখ। উচ্চফলনশীল দীর্ঘমেয়াদি এ ফসল অত্যধিক লাভজনক চাষ। চকরিয়ায় আবাদি জমিতে অন্যান্য ফসলের চেয়ে চাষিরা আখক্ষেত করে বিপুল লাভ পেয়ে খুশি। অন্যান্য কৃষিজ সবজি চাষের চেয়ে এবার আখ চাষে ভালো ফলন হয়েছে বলে চকরিয়া উপজেলা কৃষি অফিস সূত্রে জানা গেছে।

জানা গেছে, চকরিয়া উপজেলার ১৮টি ইউনিয়নে আবাদি জমির পরিমাণ ২২ হাজার ২২৩ হেক্টর। এর মধ্যে আমণ ও বোরো ধানের চাষ হয় অধিকাংশ জমিতে। চকরিয়ায় ঋতুভেদে সবজি চাষ হয় ব্যাপক। বিগত কয়েক বছর আগে ব্যাপক হারে গোলাপ চাষ হতো চকরিয়ার বরইতলী ইউনিয়নে। কৃত্রিম (পস্নাস্টিক) ফুলের উৎপাদন ও চাহিদা বেড়ে যাওয়ায় গোলাপের চাষ এখন বিলুপ্তির পথে।

এখন তাই সবজি, ধান, তামাক চাষের পাশাপাশি আখ চাষ করছেন কৃষকরা। লাভ ভালো হওয়ায় কৃষকরা আখ চাষের প্রতি ঝুঁকে পড়ছেন। বর্ষা ঋতুর আষাঢ়-শ্রাবণ মাস অতিক্রম হতে চললেও বছরের এ মৌসুমে ভারীবর্ষণ না হওয়ায় চকরিয়ায় বন্যার প্রকোপ দেখা যায়নি। ফলে এ মৌসুমে কৃষকরা আখ চাষ করে সফলতা অর্জন করেছে।

উপজেলার কৃষি উন্নয়ন শাখার উপসহকারী কৃষি কর্মকর্তা রাজীব দে জানান, চকরিয়া উপজেলায় এ মৌসুমে ৩২ হেক্টর জমিতে আখ চাষ করা হয়েছে। আখ চাষিদের উন্নত প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করতে পারলে কৃষিজ উৎপাদনের মধ্যে আখ একটি অন্যতম অর্থকরী ফসল হিসেবে স্থান করে নেবে বলে কৃষি বিশেষজ্ঞরা ধারণা করছেন। এছাড়া ইক্ষুকলে পর্যাপ্ত পরিমাণে আখের জোগান দিতে পারলে চিনি রপ্তানিতে দেশ বৈদেশিক মুদ্রা অর্জনে সক্ষম হবে।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

আরও খবর

Copyright JaiJaiDin ©2022

Design and developed by Orangebd


উপরে